Home /News /national /
যোনির অঙ্গছেদ অর্থাৎ খতনা প্রথা নিয়ে প্রশ্ন তুলল সুপ্রিম কোর্ট

যোনির অঙ্গছেদ অর্থাৎ খতনা প্রথা নিয়ে প্রশ্ন তুলল সুপ্রিম কোর্ট

News18 Bangle Creative

News18 Bangle Creative

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: ‘ধর্মীয় রীতি’, এই কারণ দেখিয়ে বহুদিন ধরেই চলে আসছে শিশুকন্যার জেনিটাল মিউটিলেশন বা যোনির অঙ্গচ্ছেদের মতো নৃশংস প্রথা ৷ এই রীতি নিয়েই প্রশ্ন তুলল শীর্ষ আদালত ৷ একইসঙ্গে বিচারপতি দীপক মিশ্র, বিচারপতি খানউইলকর ও বিচারপতি চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ স্পষ্টভাবে জানিয়েছে, এমন প্রথা যা শিশুর যৌনাঙ্গের ক্ষতি করতে পারে তা কখনও কোনও ধর্মের অংশ হতে পারে না ৷ এমন প্রথা পালন করা সম্পূর্ণ বেআইনী ৷

    মুসলিম ধর্মীয় গোষ্ঠীর একটি শাখার মধ্যে হাজার হাজার বছর ধরে চলে আসছে এই প্রথা ৷ এই রীতি পালনকে বলা হয় খাতনা ৷ প্রধানত দাউদি বোহরা নামের মুসলিম গোষ্ঠীর মানুষরাই বিশেষত এই প্রথার পালন করে থাকেন ৷

    খাতনা বা জেনিটাল মিউটিলেশন প্রথায় আসলে কন্যা সন্তানের জন্মের পর থেকে বয়সন্ধির আগে অথবা ঋতুস্রাব শুরু হওয়ার আগে যোনির বাইরের কিছু অংশ ব্লেড দিয়ে কেটে ফেলা হয় ৷ ব্লেডের কোপে যৌনতা বা যৌনশিক্ষা সম্পর্কে কিছু জ্ঞান হওয়ার আগেই বাদ পড়ে যায় মেয়েটির ক্লিটোরিয়াস, ক্লিটোরাল হুড, ক্লিটোরাল গ্রন্থি, লেবিয়া এবং ভালভা সহ যোনির গুরুত্বপূর্ণ অংশ ৷ এই বিশেষ গোষ্ঠীর মানুষেরা বিশ্বাস করেন মেয়েদের শরীরের পবিত্রতা রক্ষায় এই প্রথা অতিআবশ্যক ৷ এর পিছনে কোনও বৈজ্ঞানিক ব্যাখা না থাকলেও এদের বিশ্বাস, একমাত্র এই প্রথার মাধ্যমেই স্ত্রী দেহে কাম-যৌন আকাঙ্খা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব ৷

    আরও পড়ুন 

    যাদবপুরে কি আজ কাটবে জট? কর্মসমিতির বৈঠক ডাকলেন উপাচার্য

    এই খাতনা প্রথা বন্ধ করতে চেয়েই সুপ্রিম কোর্টে দায়ের হয়েছিল মামলা ৷ এই মামলায় ‘দাউদি বোহরা উইমেনস অ্যাসোসিয়েশন ফর রিলিজিয়াস ফ্রিডম’র তরফে কংগ্রেস নেতা ও আইনজীবী অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি আদালতে জানান, হাজার হাজার বছর ধরে এই প্রথার পালন চলছে ৷ ধর্মীয় রীতি পালনে আদালত বাধার সৃষ্টি করতে পারে না ৷ এই খাতনা প্রথা পালনে শিশুদের স্বাস্থ্যের কোনও ক্ষতি হয় না ৷ এই দাবির বিরোধীতা করে রকারের তরফে অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে ভেনুগোপাল বলেন, এতে শিশুদের মনে ছোটবয়সেই ট্রমার সৃষ্টি হয়, যা সারাজীবনের মতো প্রভাব রেখে যায় ৷ তাই এই খতনা প্রথাকে নিষিদ্ধ করার দাবি তোলা হয় ৷

    আরও পড়ুন 

    এই উপায়ে যৌন সুখই ডেকে আনছে মারাত্মক বিপদ!

    উল্লেখ্য, বহু দেশই ইতিমধ্যেই এই প্রথাকে নিষিদ্ধ বলে ঘোষণা করেছে ৷ এই খাতনা প্রথা সমগ্র মুসলিম গোষ্ঠী নয়, তার একটি বিশেষ শাখাই পালন করে থাকে ৷ ভারতে রাজস্থান, গুজরাট, দিল্লি, মহারাষ্ট্রে বসবাসকারী দাউদি বোহরা জনগোষ্ঠী এই প্রথা পালন করে ৷

    First published:

    Tags: Female Genital Mutilation, Genital Mutilation, Katna Ritual, Khatna, Muslim Ritual, Supreme Court

    পরবর্তী খবর