দিন দিন দূষিত হচ্ছে দিল্লির বায়ু ! সঙ্কটে রাজধানী

ফের দূষণে জেরবার দিল্লি। ধোঁয়াশায় ঢেকেছে রাজধানী।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 14, 2019 12:43 PM IST
দিন দিন দূষিত হচ্ছে দিল্লির বায়ু ! সঙ্কটে রাজধানী
ফের দূষণে জেরবার দিল্লি
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 14, 2019 12:43 PM IST

#নয়াদিল্লি: ফের দূষণে জেরবার দিল্লি। ধোঁয়াশায় ঢেকেছে রাজধানী। আনন্দবিহারের অবস্থা সবথেকে খারাপ। হরিয়ানা, পঞ্জাবে খামারের বর্জ্য পোড়ানোর জেরে দূষণ বাড়ছে। রাতারাতি বেড়ে চলেছে কার্বন ডাই অক্সাইডের মাত্রা। সোমবার কোয়ালিটি ইনডেক্স ২৩৯ ছুঁয়েছে, যা বিপজ্জনক৷ দিল্লি-সহ গাজিয়াবাদ, ফরিদাবাদ, নয়ডা, বাঘপত, মুরতালে বাতাসের অবস্থা শোচনীয় ৷

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে ধূলিকণার স্বাভাবিক মাত্রা ৬০ পিএম। aqicn.org-এর দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শহরের আবহাওয়াতে দূষণের মাত্রা এখন থাকছে মাঝারি থেকে খারাপ।

কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের তথ্য বলছে, রাতারাতি সবচেয়ে খারাপ অবস্থা হরিয়ানার কারনাল জেলার৷ এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স ০ থেকে ৫০ হল সবচেয়ে ভালো৷ ৫১ থেকে ১০০ হল, সন্তোষজনক৷ ১০১ থেকে ১০০ মাঝারি, ২০১ থেকে ৩০০ খারাপ, ৩০১ থেকে ৪০০ অতি খারাপ৷ ৪০০ থেকে ৫০০ হল বিপদজ্জনক ৷

সোমবার সকালে দিল্লি-এনসিআর-র বেশ কিছু যায়গার এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স ছিল খারাপ থেকে মাঝারি। রোহিনী -২০৭ , দ্বারকা - ১৯৪, পুসা রোড - ১৮২, মন্দির মার্গ- ১৭৯, নয়েডা সেক্টর ৬২ - ২১৭, নয়েডা সেক্টর ১২৫ - ২০২, গাজিয়াবাদ - ২৫২, আনন্দ বিহার -২১৮ এবং পাটপারগঞ্জ ১৮৯। রাজধানীর বায়ুদূষণের পিছনে নানা কারণের পাশাপাশি কাঠগড়ায় উঠেছে পড়শি রাজ্যের খড়কুটো পোড়ানোর অভ্যাসও। তাতেই নাকি দূষণের ছবিটা আরও জটিল হচ্ছে।

কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের তথ্য অনুযায়ী, রবিবার আনন্দ বিহার-এর এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স ছিল ৩২৭, উজিরপুর ৩২৩, বিবেক বিহার ৩১৭, মুন্ডকা ৩০৯, বাওয়ানা ৩০২, এবং জাহাঙ্গীরপুরী ৩০০।

Loading...

শনিবারই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল জানান, পার্শ্ববর্তী রাজ্যে ফসল পোড়ানোর দূষিত ধোঁয়া ঢুকছে দিল্লিতে৷ যার জেরে খারাপ হচ্ছে পরিবেশ৷ তৈরি হচ্চে বিষ বাতাস৷ কেন্দ্রের পূর্বাভাস, ফসল পোড়ানোর ফলে তৈরি হওয়া ধোঁয়ার জেরে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে দিল্লির দূষণের মাত্রা ৬ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে৷ হরিয়ানায় ফসল পোড়ানো খানিকটা কমলেও, পঞ্জাবে ৪৫ শতাংশ বেড়েছে এই ধরনের ঘটনা৷ ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইবুনালের নির্দেশে, দুই রাজ্যেই যে সব চাষিরা ফসল পোড়াচ্ছেন, তাঁদের চালান কেটে জরিমানা করা শুরু হয়েছে৷ তাতেও অবস্থা বিশে, পরিবর্তন হয়নি৷

First published: 12:43:16 PM Oct 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर