ঘাটে যাওয়া চলবে না? বাড়িতে বসেই সারতে হবে ছট পুজো ? এ মর্মে কী রায় দিয়েছে আদালত?

কোন রাজ্যে, কোন শহরে কী বিধিনিষেধ, এক এক করে দেখে নেওয়া যাক!

কোন রাজ্যে, কোন শহরে কী বিধিনিষেধ, এক এক করে দেখে নেওয়া যাক!

  • Share this:

ক্রমশ বেড়ে চলা কোভিড ১৯ সংক্রমণের কথা মাথায় রেখে দেশের নানা প্রান্তেই নানা ধর্মীয় উৎসব পালিত হচ্ছে একেবারে অকল্পনীয় ভাবে। চলতি বছরে যেমন এই শহরের অনেক মণ্ডপেই দুর্গাপুজোয় পুষ্পাঞ্জলির আয়োজন করা হয়নি, ভক্তদের নৈবেদ্য গ্রহণ করলেও বিতরণ করা হয়নি প্রসাদ! পাছে জমায়েত বা সান্নিধ্য কোনও বিপদ ডেকে আনে!

এ বার সেই লক্ষ্যেই চলতি বছরের ছট পুজোর উৎসবেও কিছু পরিবর্তনের কথা উঠে এল প্রকাশ্যে। তবে এ প্রসঙ্গে উল্লেখ না করলেই নয়, দেশের সব রাজ্য ঘাটে গিয়ে অর্ঘ্য নিবেদন করায় নিষেধাজ্ঞা জারি করেনি। একেকটি রাজ্যের উচ্চ আদালতের রায় অনুসারে ভিন্ন ভিন্ন ভাবে পালিত হচ্ছে ছট পুজোর উৎসব। কোন রাজ্যে, কোন শহরে কী বিধিনিষেধ, এক এক করে দেখে নেওয়া যাক!

১. পশ্চিমবঙ্গ - সবার প্রথমে এই রাজ্যের কথা সেরে নেওয়া যায়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার কর্তৃক পরিচালিত এ রাজ্যে ভক্তদের ঘাটে গিয়ে অর্ঘ্য নিবেদনে বাধা নেই। তবে বড় জমায়েতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি, সম্পূর্ণ রূপে নিষিদ্ধ করা হয়েছে আতসবাজির ব্যবহারও। এই এক বিধি মেনে ছট উদযাপনের রায় দিয়েছে ওড়িশা সরকারও।

২. দিল্লি - রাজধানীর অরবিন্দ কেজরিওয়াল পরিচালিত সরকারের নিয়মনীতি এ বছর বেশ কড়া। পুজোর দিনটিতে ছুটি ঘোষণা করা হলেও জমায়েত নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পাশাপাশি, দিল্লি উচ্চ আদালতের নির্দেশ অনুসারে ঘাটে গিয়ে অর্ঘ্যদানও নিষিদ্ধ।

৩. বিহার - ছট উৎসবের জোয়ার সব চেয়ে বেশি অনুভঊত হয়ে থাকে দেশের মধ্যে বিহার রাজ্যেই। কিন্তু এ বছর কড়া নির্দেশ বিহার সরকারের- কোনও ভাবেই ঘাটে বা অন্যত্র জমায়েত চলবে না। সুরক্ষিত থাকার জন্য বিহার সরকারের তরফে সকলকে ঘরে বসেই অর্ঘ্যদানের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

৪. উত্তরপ্রদেশ - যোগী আদিত্যনাথ সরকার অবশ্য উত্তরপ্রদেশে ছট উদযাপনের ক্ষেত্রে ঘাটে গিয়ে অর্ঘ্যদানে বিধিনিষেধ জারি করেনি। তবে শারীরিক দূরত্ববিধি এবং ফেস মাস্কের ব্যবহার বাধ্যতামূলক হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। পাশাপাশি, সকল অধিবাসীকে নিকটস্থ জলাশয়েই ছট উদযাপনের অনুরোধ জানিয়েছে সরকার।

৫. মহারাষ্ট্র - দেশের এই রাজ্য তার সকল জলাশয়, নদী এবং সমুদ্রসৈকতে ছট উদযাপন নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। পুলিশও তৎপর প্রকাশ্য জমায়েত রোধে!

Published by:Ananya Chakraborty
First published: