MP Political Crisis| সিন্ধিয়া ছাড়তেই ইস্তফা দিলেন ১৪ বিধায়ক! মধ্যপ্রদেশে সরকার পতনের মেঘ

MP Political Crisis| সিন্ধিয়া ছাড়তেই ইস্তফা দিলেন ১৪ বিধায়ক! মধ্যপ্রদেশে সরকার পতনের মেঘ
কমলনাথ ও জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া

বৈঠক শেষ করেই কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধিকে ইস্তফাপত্র পাঠিয়ে দেন জ্যোতিরাদিত্য৷ কংগ্রেসের সঙ্গে দীর্ঘ ১৮ বছরের সম্পর্কের অবসান ঘটালেন৷ ইস্তফাপত্রে জ্যোতিরাদিত্য লিখলেন, 'কংগ্রেসে থেকে দেশসেবা করতে পারছি না৷'

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: রাত থেকেই সম্ভাবনা ঘনাচ্ছিল৷ বেলা গড়াতেই সব পরিষ্কার হয়ে গেল৷ কংগ্রেস ছেড়ে দিলেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া৷ মঙ্গলবার হোলির উত্‍সবের মধ্যেই জ্যোতিরাদিত্যকে সকাল সকাল সঙ্গে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে যান কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ এরপর তিনজনের বেশ কিছুক্ষণ বৈঠক করেন৷ এ দিন সিন্ধিয়া ইস্তফাপত্র পাঠানোর পরেই মধ্যপ্রদেশের ১৪ জন কংগ্রেস বিধায়ক ইস্তফা দিলেন৷ এঁরা সবাই যদি বিজেপি-তে যোগ দেন, সে ক্ষেত্রে সংখ্যার বিচারে অনেকটাই পিছিয়ে যাবে কংগ্রেস৷

বৈঠক শেষ করেই কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধিকে ইস্তফাপত্র পাঠিয়ে দেন জ্যোতিরাদিত্য৷ কংগ্রেসের সঙ্গে দীর্ঘ ১৮ বছরের সম্পর্কের অবসান ঘটালেন৷ ইস্তফাপত্রে জ্যোতিরাদিত্য লিখলেন, 'কংগ্রেসে থেকে দেশসেবা করতে পারছি না৷'

ট্যুইটারে লিখলেন, 'একেবারে নতুন করে রাজনৈতিক জীবন শুরু করার জন্য এটাই সেরা সময়৷ মানুষের সেবা করতেই রাজনীতি করি৷ কিন্তু কংগ্রেসে থেকে তা করা সম্ভব হচ্ছে না৷'

জ্যোতিরাদিত্য কংগ্রেস ছাড়ার পরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি বললেন, 'মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেসের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নেই৷ তারা সরকার গড়তে পেরেছে ঠিকই, কিন্তু টিকিয়ে রাখতে পারল না৷'

জ্যোতিরাদিত্যকে বিশ্বাসঘাতক আখ্যা দিয়ে কংগ্রেস নেতা গৌরব পান্ধির ট্যুইট, 'বিশ্বাসঘাতক সব সময়ই বিশ্বাসঘাতক৷ এই বিশ্বাসঘাতকতার পরে আর কোনও আলোচনারই দরকার নেই৷ পিরিয়ড!'

মধ্যপ্রদেশের কংগ্রেস নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে যোগাযোগই করতে পারেনি কংগ্রেস৷ রাতভর চেষ্টার পরেও সিন্ধিয়ার সঙ্গে কথা বলতে পারেনি কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব৷ কংগ্রেস নেতা দিগ্বিজয় সিং জানান, জ্যোতিরাদিত্যর সোয়াইন ফ্লু হয়েছে৷ তাই তিনি ফোন ধরছেন না৷

সোমবার রাতারাতি মধ্যপ্রদেশ সরকার সঙ্কটে পড়ে যায়৷ মধ্যরাতে হঠাত্‍ সিন্ধিয়া ঘনিষ্ঠ ১৬ জন বিধায়ক বিদ্রোহ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী কমলনাথের সরকারের বিরুদ্ধে৷ রাতেই ২২ জন মন্ত্রী ইস্তফা দেন৷

হাতে ১২০ বিধায়ক, সংখ্যগরিষ্ঠতার অঙ্ক থেকে যা মাত্র ৪ আসন বেশি৷ ফলে আসন সহজে টলমল হবে, সে কথা বুঝতে পেরেছেন কমলনাথ৷ ওদিকে ঝোপ বুঝে কোপ মারল বিজেপিও৷

First published: March 10, 2020, 1:07 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर