Home /News /national /
Bihar Girl Hops on one leg to school: ভাইরাল ভিডিও: দুর্ঘটনায় বাদ গেছে পা, অদম্য জেদে এক পায়ে লাফ দিয়েই স্কুলে পাড়ি পড়ুয়ার!

Bihar Girl Hops on one leg to school: ভাইরাল ভিডিও: দুর্ঘটনায় বাদ গেছে পা, অদম্য জেদে এক পায়ে লাফ দিয়েই স্কুলে পাড়ি পড়ুয়ার!

Video of Physically Challenged Bihar Student: দুই বছর আগে এক সড়ক দুর্ঘটনায় সীমার গুরুতর আহত পা কেটে বাদ দিয়ে ফেলতে হয়।

  • Share this:

    #বিহার: দেশে বুনিয়াদি শিক্ষাব্যবস্থার হাল ও হকিকত অজানা নয় কারও। প্রাথমিক শিক্ষার নাগাল পেতেই প্রজন্মের পর প্রজন্ম অপেক্ষা করে থাকতে হয় বহু সম্প্রদায়কে। সবার জন্য শিক্ষার কথা বলা হলেও শিক্ষা এদেশে মোটেও সহজলভ্য নয়। তারই মধ্যে শিক্ষালাভের অদম্য ইচ্ছার ভরে সমস্ত প্রতিকূলতা লাফিয়ে পার করছে বিহারের এক ছাত্রী। বিহারের জামুই জেলার দশ বছর বয়সী সীমা শারীরিকভাবে প্রতিবন্ধী। কিন্তু নিজেকে শিক্ষিত করার অদম্য ইচ্ছা এবং আবেগে এক পায়ে লাফিয়ে লাফিয়েই স্কুলে পাড়ি দেয় সে। সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে দেখা গিয়েছে ছোট্ট সীমাকে স্কুলের উদ্দেশে এগিয়ে চলেছে এক পায়ের ভরে, লাফ দিয়ে।

    আরও পড়ুন- টয়লেটে বসে মত্ত ভিডিও গেমে! যুবকের নিতম্বে কামড় দিয়ে দাঁত ভাঙল সাপের!

    তবে জন্ম থেকেই শারীরিক এই প্রতিবন্ধকতা ছিল না সীমার। দুই বছর আগে এক সড়ক দুর্ঘটনায় সীমার গুরুতর আহত পা কেটে বাদ দিয়ে ফেলতে হয়। তবে পা বাদ গেলেও স্কুলে যাওয়ার ইচ্ছা বা আগ্রহ কোনওটাই কমেনি তার। সীমার বাড়ি যেখানে, সেখান থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে তার স্কুল। সেই এক কিলোমিটার পথ এভাবেই এক পায়ের ভরে পাড়ি দেয় সীমা। শিশু শিক্ষার ক্ষেত্রে, বিশেষ করে মেয়েদের শিক্ষার প্রচারের জন্য দুরন্ত দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে সীমা। সীমা পড়াশোনা চালিয়ে যেতে চায়, সীমা চায় বড় হয়ে একদিন অন্যদেরও শিক্ষা দেবে সে, শিক্ষক হবে।

    পড়াশোনা করার এই ইচ্ছা এবং অন্যদের শেখানোর লক্ষ্যে অবিচল সীমার বাবা খিরান মাঝি একজন পরিযায়ী শ্রমিক। তিনি প্রতি মাসে যে সামান্য পরিমাণ টাকা পাঠান তা দিয়েই পরিবার চলে। সীমার মা বেবী জানান, ছয় ভাইবোনের মধ্যে দ্বিতীয় সীমা।

    আরও পড়ুন- দেখুন ভাইরাল ভিডিও: জঘন্য অভিজ্ঞতা! ম্যাকডোনাল্ডসের পানীয়ে ভেসে উঠল মরা টিকটিকি!

    সীমার শিক্ষকরাও তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ এবং সীমাকে বই ও অন্যান্য পড়াশোনার জিনিস জোগান তাঁরা। এক পায়ে স্কুলে যাওয়ার ভিডিওটি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল সহ অনেকেরই দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। কেজরিওয়াল সীমার গল্প পড়ে এবং দেখে ট্যুইটও করেছেন।

    সীমার গল্প ইন্টারনেটে ভাইরাল ঠিকই, সীমার গল্প অনেককেই অনুপ্রাণিত ও উত্সাহিত করেছে তাও সত্য। তবে এর পাশাপাশি শিক্ষার অবস্থা এবং গ্রামীণ অঞ্চল থেকে আসা তথা ভিন্নভাবে সক্ষম পড়ুয়াদের জন্য সরকারের কী কী সুবিধা দেওয়ার কথা তা নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অনেকেই।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Bihar, Primary School, Video viral

    পরবর্তী খবর