হোম /খবর /নদিয়া /
এবার করোনার থাবা কল্যাণীর জহরলাল নেহেরু মেডিক্যাল হাসপাতালে

Nadia Covid News- এইবার করোনার থাবা কল্যাণী জহরলাল নেহেরু মেডিক্যাল হাসপাতালে। চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙে পড়ার আশঙ্কা

কল্যাণী জহরলাল নেহেরু মেডিকেল হাসপাতাল

কল্যাণী জহরলাল নেহেরু মেডিকেল হাসপাতাল

জহরলাল নেহেরু মেডিক্যাল কলেজের বিভিন্ন ডাক্তার নার্স এবং পড়ুয়াদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাদের করোনা টেস্ট করানো হয়।

  • Share this:

#নদিয়া: আবারও করোনায় জর্জরিত গোটা দেশ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন তৃতীয় ঢেউ অবশ্যম্ভাবী। এমতাবস্থায় সংক্রমনের রাশ টানতে দেশের একাধিক রাজ্য জারি করেছে বিভিন্ন বিধি নিষেধ। ছোট ছোট করে করা হয়েছে বিশেষ জায়গাগুলিতে কনটেইনমেন্ট জোন। তবুও রাশ টানা যাচ্ছে না করোনা সংক্রমনের। দিনের-পর-দিন লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই চলেছে করোনা সংক্রমণ। ডাক্তার থেকে শুরু করে পুলিশ, প্রত্যেক জায়গায় পড়েছে করোনার থাবা।

এবার করোনার থাবা নদিয়ার কল্যাণী জহরলাল নেহেরু মেডিকেল হাসপাতালে (Nadia Covid News)। প্রথম দিনে চিকিৎসক এবং নার্স সহ মোট করোনা আক্রান্ত ছিলেন ৩০ জন। এবার সেই সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়াল ৬৭। স্বাস্থ্য পরিষেবা বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কায় গোটা সরকারি হাসপাতাল জুড়ে। করোনা সংক্রমনের তৃতীয় ঢেউ ইতিমধ্যেই গোটা দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউকে পিছনে ফেলে দ্রুত গতিতে বেড়ে চলেছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকারের তরফ থেকে আংশিক লকডাউনের কথা ঘোষণা করা হয়েছে। প্রতিটি সাধারণ মানুষকে অনুরোধ করা হয়েছে তারা যেন অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে না বের হয়। রাস্তায় বের হলে নির্দিষ্ট দূরত্ব মেনে চলা এবং মুখে মাস্ক পড়া আবশ্যক করেছে প্রশাসন।

ইতিমধ্যে গোটা জেলা জুড়ে প্রশাসনের তরফ থেকে নিয়ম না মানলে ধরপাকড় করা হচ্ছে (Nadia Covid News)। এই পরিস্থিতিতে কল্যাণী জহরলাল নেহেরু মেডিক্যাল কলেজের বিভিন্ন ডাক্তার, নার্স এবং পড়ুয়াদের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাদের করোনা টেস্ট করানো হয়। আগের রিপোর্ট অনুযায়ী, ওই হাসপাতালের মোট ছয় জন ডাক্তার, ১৯ জন পড়ুয়া এবং পাঁচ জন নার্সের শরীরে করোনা ধরা পড়েছিল। সেই সংখ্যাটা এবার বেড়ে দাঁড়াল ৬৭ তে।

বেশিরভাগ আক্রান্ত স্বাস্থ্যকর্মীরা নিজেদের বাড়িতেই হোম কোয়ারেন্টাইনে চলে গেছেন। অনেকেই সরকারি আবাসনে ভর্তি রয়েছেন (Nadia Covid News)। অনেকেই আবার হাসপাতালে আলাদাভাবে করোনা চিকিৎসা ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন। রীতিমতো গোটা হাসপাতাল জুড়ে স্বাস্থ্যপরিসেবা ভেঙে পড়ার আশঙ্কা চলছে। যদিও রাস্তায় বেরোলেই এখনও অনেকের মধ্যে করোনা সংক্রমণ নিয়ে অসচেতনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

Mainak Debnath

Published by:Samarpita Banerjee
First published:

Tags: Corona fear, Kalyani, Nadia