Home /News /murshidabad /
Murshidabad: শ্রাবণের প্রথম সোমবার ভক্তদের ভিড় দেশের একমাত্র পঞ্চমুখী শিব মন্দিরে, জানুন কোথায়...

Murshidabad: শ্রাবণের প্রথম সোমবার ভক্তদের ভিড় দেশের একমাত্র পঞ্চমুখী শিব মন্দিরে, জানুন কোথায়...

title=

সোমবার থেকে শুরু শ্রাবণ মাস। শৈব সম্প্রদায়ের কাছে এই মাস মহাদেবের মাস। অত্যন্ত পুণ্যের মাস শ্রাবণ। মাসের প্রথম সোমবারেই ভক্তদের সমাগমে ভরে উঠেছে মুর্শিদাবাদের বাঘডাঙ্গা পঞ্চমুখী শিব মন্দির।

  • Share this:

    #কান্দিঃ সোমবার থেকে শুরু শ্রাবণ মাস। শৈব সম্প্রদায়ের কাছে এই মাস মহাদেবের মাস। অত্যন্ত পুণ্যের মাস শ্রাবণ। মাসের প্রথম সোমবারেই ভক্তদের সমাগমে ভরে উঠেছে মুর্শিদাবাদের বাঘডাঙ্গা পঞ্চমুখী শিব মন্দির। ভারতবর্ষের একমাত্র পঞ্চমুখী শিব মন্দির হিসেবে খ্যাত মুর্শিদাবাদের বাঘডাঙ্গার এই পঞ্চমুখী শিব মন্দির। এদিন ভক্তদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতো। মনস্কামনা নিয়ে দূরদূরান্ত থেকে ভক্তরা পায়ে হেঁটে শিবের মাথায় জল ঢালার উদ্দেশ্যে এই পঞ্চমুখী শিব মন্দিরে এসেছেন। মুর্শিদাবাদ জেলার স্থানীয় ইতিহাসে অতি পরিচিত বাঘডাঙ্গা হল একটি প্রাচীন জায়গা যা আজও জীর্ণতার চাদর জড়িয়ে মাথা উচুঁ করে দাঁড়িয়ে আছে। এই এলাকার পঞ্চমুখী শিবমন্দির প্রাঙ্গণের মধ্যে কালীশ্বর শিব মন্দির প্রধান, এছাড়া আরও ১৩টি শিবমন্দির রয়েছে। আঠারো শতকের শেষদিকে বাঘডাঙ্গার রাজা কালীশঙ্কর রায় এই মন্দিরগুলি প্রতিষ্ঠা করেন। মূল দ্বার দিয়ে প্রবেশ করে প্রশস্ত অঙ্গনে রয়েছেন কালীশ্বর শিব। দৈর্ঘ্য-প্রস্থে প্রায় ১৮ ফুট। ন'টি চূড়াবিশিষ্ট মন্দিরের উচ্চতা প্রায় ৪০ ফুট। দেওয়ালে দেবদেবী মূর্তি ও ফুলকারি নকশা আছে। কালীশ্বর শিব এখানে পঞ্চমুখের এবং প্রায় চার ফুট উচ্চতার।

    এই প্রাঙ্গণের মধ্যে উত্তরে পাঁচটি শিবমন্দির যার দুটি আটচালা ও বাকিগুলি চারচালা এবং দক্ষিণে আটটি শিবমন্দির যার দুটি আটচালা ও বাকিগুলি চারচালা স্থাপত্য রীতির। মন্দির প্রাঙ্গণ থেকে একটু উত্তরে গেলেই বাঘডাঙ্গা রাজের বিশাল ঠাকুরবাড়িতেও অনেকগুলি মন্দির রয়েছে। ঠাকুরবাড়ির মূল প্রবেশদ্বার দিয়ে প্রবেশ করে প্রাচীর ঘেরা প্রশস্ত অঙ্গন।

    আরও পড়ুনঃ তরুণী ছাত্রীকে খুনের ঘটনায় ৫৪জন স্বাক্ষীর নাম সহ ৭৫দিনের মাথায় চার্জশিট পেশ

    একটি বড় দালান মন্দিরে দেবী সিংহবাহিনী নিত্য পূজিতা হচ্ছেন। মূল বেদীর ওপর দেবী মহিষমর্দিনী রয়েছেন। দুর্গাপূজায় বড় উত্‍সব হয়। এর পশ্চিমদিকে রয়েছে লক্ষ্মী জনার্দনের মন্দির। আঠারো শতকে সূর্যমানের পুত্রবধূ পার্বতীদেবী এগুলি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। একসময় এখানে অনেক মন্দির ছিল ও কাঁসর-ঘণ্টাধ্বনিতে মুখরিত থাকত। আজ প্রায় সব ধ্বংসপ্রাপ্ত।

    আরও পড়ুনঃ সংস্কারের অভাবে বেহাল আহিরণের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা, প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে নিত্য যাতায়াত চলছেই

    রাজবাড়িতে ছিল রাধাকৃষ্ণ মন্দির, কাছেই ছিল একবাংলা সূর্যেশ্বর মন্দির, কত ছোটবড় মন্দির। এখন সবই প্রায় ধ্বংস ও জঙ্গলে পরিপূর্ণ হয়ে গেছে। এখানে নরেশচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়দের পূজিত প্রায় ৩০০ বছরের কষ্টিপাথরের কালীমূর্তি মূল মন্দির নষ্ট হওয়ার কারণে একটি দালান মন্দিরে পূজিত হচ্ছে। কাছেই বিরাট দীঘি রয়েছে নাম সদর পুকুর, বর্তমানে বাঁধানো ঘাট, বসার জায়গা করে দীঘির সৌন্দর্যায়ন করা হয়েছে।

    মন্দিরের গুগল লোকেশনঃ

     Bagdanga

    KOUSHIK ADHIKARY
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Kandi, Murshidabad

    পরবর্তী খবর