Home /News /local-18 /

Bengal News| Paschim Midnapore: এক বছরের মধ্যেই দু-দু'বার উচ্ছেদ! মাথায় হাত দোকানিদের!

Bengal News| Paschim Midnapore: এক বছরের মধ্যেই দু-দু'বার উচ্ছেদ! মাথায় হাত দোকানিদের!

Eviction Notice for OT Road Extension from Inda in Khargpur to Pirbaba Junction

Eviction Notice for OT Road Extension from Inda in Khargpur to Pirbaba Junction

বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ফের উচ্ছেদ নোটিশ (Kharagpur) জারি করেছে PWD। আর, এতেই মাথায় হাত দোকানদারদের।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর: এক বছরের মধ্যেই দু-দু'বার উচ্ছেদ! বছরখানেক আগেই উচ্ছেদ নিয়ে তুলকালাম বেধেছিল রেলশহর খড়্গপুরের (Kharagpur Inda) ইন্দা এলাকায়। রাতারাতি ভেঙে দেওয়া হয়েছিল রাস্তার ধারের কিছু দোকানপাট। তারপর উচ্ছেদ প্রক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায় বিভিন্ন কারণে! এরপর, দোকানদাররা (small businessmen) ফের লক্ষ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করে নতুন করে দোকান সাজিয়েছিলেন। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ফের উচ্ছেদ নোটিশ জারি করেছে PWD। আর, এতেই মাথায় হাত দোকানদারদের। তাঁরা বলছেন, "প্রশাসন হাতে না মেরে, আমাদের ভাতে মারতে চাইছে! তাই, নতুন করে এত টাকা বিনিয়োগ করার পর, দোকান ভেঙে ফেলার নোটিশ জারি করেছে।"

    আরও পড়ুন Bengali News| Birbhum Police: করোনাকালে বেড়েছে চুরি-ছিনতাই, পাল্লা দিয়ে চোর পাকড়াও বীরভূম পুলিশের!

    জানা গেছে, কলকাতা হাইকোর্টের নির্দিষ্ট অর্ডার (WPA 7914 of 2020) এবং জাতীয় সড়ক আইন অনুযায়ী এই নির্দেশিকা জারি করেছে রাজ্য সরকারের পিডব্লুডি (PWD) বিভাগ। উল্লেখ্য, আগামী ১৪ ই সেপ্টেম্বরের মধ্যে চৌরঙ্গী থেকে খড়্গপুর লোকাল থানা (পীরবাবা মোড়) পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশের দখল হয়ে যাওয়া জায়গা খালি করার নোটিশ জারি করা হয়েছে (Area to be vacated for road)। রাজ্য সরকারের পিডব্লুডি (PWD) দপ্তরের পক্ষ থেকে এই নোটিশ‌ জারি করা হয়েছে। রাস্তা সম্প্রসারণের জন্য রাস্তার দুই ধারের ৬০ ফুট করে জায়গা দখল-মুক্ত করা হবে জানা গেছে। আপাতত, পীর বাবার মোড় পর্যন্ত উচ্ছেদ করা হবে, অনুমতি পাওয়া গেলে পুরাতন বাজার পর্যন্ত রাস্তা সম্প্রসারণের কাজ হবে বলে জানা গেছে। হবে চার-লেনের রাস্তা।

    আরও পড়ুন Bengal News| Howrah : অসহায় পিতা-মাতাদের নিয়ে নচিকেতার জন্মদিন উদযাপন হাওড়ার বাগনানে

    এতেই মাথায় হাত দোকানদারদের! তাঁরা বলছেন, "এক বছর আগে যখন উচ্ছেদ করা হয়, তখন আমরা অনেকটা পিছিয়ে গিয়ে নতুন করে দোকান করি। কয়েক লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে একেকটা দোকানের জন্য। এই পরিস্থিতিতে ফের যে নোটিশ জারি হবে, তা আমাদের ভাবনাতেও ছিল না!" তাই, তাঁরা উপযুক্ত পুনর্বাসন দাবি করেছেন প্রশাসনের কাছে। এই বিষয়ে এখনও প্রশাসনের তরফে কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    Tags: Khargpur

    পরবর্তী খবর