Home /News /local-18 /
ঝড়ে বাস্তুহারা পাখিদের পুনর্বাসনে পঁচেট জুয়েল স্টার ক্লাব

ঝড়ে বাস্তুহারা পাখিদের পুনর্বাসনে পঁচেট জুয়েল স্টার ক্লাব

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে মানুষ। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ে শুধু মানুষই না, বিপর্যস্ত হয়েছে পশুপাখি থেকে নানা জীবজন্তু।

  • Share this:

    #পটাশপুর: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে মানুষ। কিন্তু ঘূর্ণিঝড়ে শুধু মানুষই না, বিপর্যস্ত হয়েছে পশুপাখি থেকে নানা জীবজন্তু। ঝড়ে বিধ্বস্ত পাখিদের পাশে পটাশপুরের পঁচেট জুয়েল স্টার ক্লাব। তারা বানিয়ে দিচ্ছে পাখিদের জন্য কৃত্রিম বাসা।

    ঘূর্ণিঝড় ইয়াস তার থাবায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে আমাদের চারপাশ। উপড়ে গেছে বড় বড় গাছ। বাসা হারিয়ে বাস্তুহারা হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে নানান পাখির দল। তাদের জন্য তো কোনো ত্রাণ নেই। সদস্যরা উদ্যোগ নিয়ে গাছের উপর রেখে দিচ্ছেন ছোটো ছোটো বাঁশের উপকরণ দিয়ে তৈরি কৃত্রিম পাখির বাসা। বাসার ভেতরে দেওয়া হচ্ছে খড় ও শুকনো পাতা, বট গাছের ঝুড়ি রাখা হয়েছে কৃত্রিম বাসায়।

    ঝড়ে বাসা হারানো পাখিদের বাসার সমস্যা দূর করতে, পঁচেট বাজার, সমিতি ও রাজবাড়ী এলাকা চিহ্নিত করে বিভিন্ন গাছে ছোটো ছোটো ঝুড়ি ও মাটির কলসি বেঁধে দিয়েছে ক্লাবের সদস্যরা। পাখিরা নিজেদের বাসা নিজেরাই তৈরী করে নেবে একদিন। আপাতত সামান্য একটু ক্ষতিপূরণের জন্য এই বন্দোবস্ত বলে জানিয়েছেন ক্লাবের কর্মকর্তা সৈকত মাইতি।

    এমনিতেই সারা বিশ্বে জনবসতি বৃদ্ধি ও গ্রাম-নগর উন্নয়নের জন্য গাছ কাটা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। ফলে শেষ হচ্ছে প্রকৃতি। সেইসঙ্গে বিপদে পড়েছে প্রাণীজগৎ। পাখিরাও রয়েছে সেখানে। এনিয়ে নানা সময় অভিযোগে তুলেছেন পরিবেশবিদরা। প্রতিবছর নিয়ম করে ঘূর্ণিঝড় আসায় পাখিদের বড়ো ক্ষতি হচ্ছে। ছোটো বড়ো বহু গাছ ভেঙ্গেছে। পাখির বাসা ভেঙ্গে গেছে। কাজেই উদ্বাস্তু জীবন কাটাচ্ছে পাখিরা।

    ঘূর্ণিঝড় আম্ফান বা ইয়াসের ফলে নষ্ট হয়েছে বিধ্বস্ত এলাকার বাস্তুতন্ত্র। নষ্ট হয়েছে জীব বৈচিত্র্য। বিধ্বস্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে মানুষ। এবার পাখিদের পাশে দাঁড়াল পটাশপুর পঁচেট জুয়েল স্টার ক্লাব। পাখি সংরক্ষণের বার্তা দিয়ে, প্রথম দিনেই তারা ত্রিশটি কৃত্রিম পাখির বাসা বানিয়ে এলাকার বিভিন্ন গাছে বেঁধে দেওয়া হয়।

    সৌকত শী

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Panchet garh, Patashpur, Save bird

    পরবর্তী খবর