Home /News /local-18 /
Travel Special: কমলা, ছোটো গ্রাম আর রবীন্দ্রনাথ! পুজোয় 'স্মৃতি ও আবেগের' জায়গা হতেই পারে মংপু

Travel Special: কমলা, ছোটো গ্রাম আর রবীন্দ্রনাথ! পুজোয় 'স্মৃতি ও আবেগের' জায়গা হতেই পারে মংপু

 'মন ভোলানোর' জায়গা মংপু

 'মন ভোলানোর' জায়গা মংপু

আপনি যদি দার্জিলিংয়ে (Darjeeling) ছুটি কাটানোর পরিকল্পনা করেন, তাহলে আপনি আপনার ভ্রমণপথের অংশ হিসেবে মংপুতে (Mongpu) সুন্দর একটি দিন ভ্রমণ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন।

  • Share this:

    #মংপু: আপনি যদি দার্জিলিংয়ে (Darjeeling) ছুটি কাটানোর পরিকল্পনা করেন, তাহলে আপনি আপনার ভ্রমণপথের অংশ হিসেবে মংপুতে (Mongpu) সুন্দর একটি দিন ভ্রমণ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন। মংপু বা মুঙ্গপু (Mongpu) দার্জিলিং (Darjeeling) জেলার একটি ছোট পাহাড়ি গ্রাম। এটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে গড়ে ৩,৭০০ ফুট উচ্চতায় এবং দার্জিলিং (Darjeeling) থেকে প্রায় ৩১ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।

    আপনি যদি মানুষের কোলাহল থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে কোথাও অবসর কিছুটা কাটাতে চান তবে এই গ্রামটি যাবার উপযুক্ত জায়গা। জায়গাটির শুধুমাত্র রাস্তার প্রাকৃতিক দৃশ্যই আপনাকে উন্মত্ত করে তোলার জন্য যথেষ্ট। রাস্তার ধার দিয়ে চলে যাওয়া সবুজ চা বাগান, অর্কিড, ফুলের নার্সারি এবং প্রাচীন জলের ধারা আপনার রোজকার একঘেঁয়ে জীবনে প্রাণ সঞ্চার করে দেবে। গ্রামটি তার সিনকোন বাগানের জন্যও বিখ্যাত। যার ছালগুলি কুইনাইন (Quinine) নামে ওষুধ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। এটি ম্যালেরিয়ার (Malaria) চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত একটি মহৌষধি বললেই চলে। আপনি মংপুতে সরকার (Mongpu Administration) কর্তৃক স্থাপিত কুইনাইন (Quinine) কারখানায় গেলে ছাল থেকে কুইনাইন নিষ্কাশন প্রক্রিয়াও দেখতে পারবেন।

    মংপুর স্কুলগুলিও দেখতে বেশ আকর্ষণীয়। এখানে মংপু সিম্বিডিয়াম অর্কিড পার্কে (Mungpoo Cymbidium Orchid Park) ১৫০টিরও বেশি প্রজাতির অর্কিড (orchid) পাওয়া যায়। আপনি যদি কিছু শান্তি এবং নির্জনতা খুঁজছেন, তাহলে স্থানীয় বাজার সংলগ্ন একটি পাহাড়ে অবস্থিত একটি বৌদ্ধবিহার দিনচেন শেরাপ ছোয়েলিং গুম্বায় (Dinchen Sherap Choiling Gumpa, Mungpoo) ঘুরে ঘুরে স্থানটির আবহাওয়া অনুভব করতে পারেন।

    তিস্তা নদীর সঙ্গে মিলিত হওয়ার জন্য ৫৫০ মিটার উচ্চতা থেকে যে অসাধারণ কালিঝোরা জলপ্রপাত পড়ে সেটির দর্শন নিতে ভুলবেন না যেন। মংপু (Mongpu) যে জায়গাটির জন্য পরিচিত রবীন্দ্র ভবন, তার পরিদর্শন না করে আপনি কীভাবে চলে যেতে পারেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গ্রীষ্মকালীন বাড়ি বর্তমানে একটি জাদুঘরে পরিণত হয়েছে যেখানে আপনি এখনও মেহগনি ডেস্ক এবং নোবেলজয়ীর ব্যবহৃত বিছানা দেখার সৌভাগ্য পাবেন। এখানে উনার মূল শিল্পকর্মের পাশাপাশি হাতের লেখা কবিতা এবং পদাবলীর ঝলক দেখারও সুযোগ পাওয়া যায়।

    মংপু দেখার সেরা সময় : ভ্রমণকারীরা বছরের যে কোন মাসে এই গ্রামে আসতে পারেন। মনোরম আবহাওয়ার কারণে এখানে পর্যটকরা সারাবছর ধরে ভিড় করে থাকেন। তবুও মংপু (Mongpu) দেখার সেরা সময় হল জুন মাসে এবং তারপর আবার অক্টোবর (October) থেকে ডিসেম্বর (December) পর্যন্ত সময়ে পর্যটকরা পুরোপুরি প্রস্ফুটিত এবং মনোরম আবহাওয়ায় সিনকোনা বাগান দেখার সুযোগ পান।

    কোথায় থাকবেন : মংপু (Mongpu) গ্রামে কোন হোটেল এবং রিসোর্ট নেই। একটি নির্জন জনপদ হওয়ায় আবাসনে থাকাটা খুব কম মানুষ পছন্দ করে। যাইহোক, ভ্রমণকারীরা স্থানীয়দের দ্বারা পরিচালিত হোমস্টেতে (Homestay) থাকতে পারেন। অতিথিরা এখানে শুধু মৌলিক সুবিধাই পাবেন। এছাড়া রুমের প্রাপ্যতার উপর নির্ভর করে পিডব্লিউডির (PWD) গেস্ট হাউসও বুক করা যায়।

    কিভাবে পৌঁছাবেন : নিকটতম রেল স্টেশন নিউ জলপাইগুড়ি (এনজেপি - NJP)। এখান থেকে সেবক দিয়ে কালিজোরা (Kalijhora) হয়ে মংপু (Mongpu) প্রায় ৫২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। আপনি প্রায় ২০০০ টাকায় একটি ছোট গাড়ি ভাড়া করে গন্তব্যে পৌঁছতে পারেন। এনজেপি/শিলিগুড়ি থেকে মংপু পৌঁছতে প্রায় ২.৫ ঘন্টা সময় লাগে। নিকটতম বিমানবন্দর বাগডোগরা (Bagdogra Airport) থেকে দৈনিক সরাসরি আকাশপথে মংপু কলকাতা এবং বাকি ভারতের সঙ্গে যুক্ত হতে পারে।

    ভাস্কর চক্রবর্তী

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Hills, Orange, Rabindranath Tagore, Village

    পরবর্তী খবর