Home /News /local-18 /

ভাঙা হবে বারুইপুর থানা! নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতেই দ্রুত পদক্ষেপ জেলা প্রশাসনের

ভাঙা হবে বারুইপুর থানা! নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতেই দ্রুত পদক্ষেপ জেলা প্রশাসনের

ভাঙা হবে বারুইপুর থানা! নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতেই দ্রুত পদক্ষেপ জেলা প্রশাসনের

ভাঙা হবে বারুইপুর থানা! নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতেই দ্রুত পদক্ষেপ জেলা প্রশাসনের

প্রশাসনিক সুবিধার জন্য বারুইপুর থানা ভেঙে নতুন থানা গড়ার প্রস্তাব দীর্ঘদিনের।

  • Share this:

    রুদ্র নারায়ন রায়, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: প্রশাসনিক সুবিধার জন্য বারুইপুর থানা ভেঙে নতুন থানা গড়ার প্রস্তাব দীর্ঘদিনের। সেইমতো নতুন থানা গড়ার জন্য জমি দেখার কাজ শুরু করল জেলা পুলিসের আধিকারিকরা। বারুইপুর থানা বিশাল বড় এলাকা জুড়ে। তাই এই থানা ভেঙে দুইটি নতুন থানা উত্তরভাগ ও টংতলা থানা গড়ার প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। একই সঙ্গে বারুইপুর ব্লক ভেঙে দু’ভাগে ভাগ করে দেওয়ার জন্য বিডিওকে জেলা শাসকের কাছে চিঠি করতে বলা হয়েছে। বারুইপুর থানার অধীনেই বারুইপুর পূর্ব ও পশ্চিম বিধানসভা। এর মধ্যে ১৯টি পঞ্চায়েত সহ বারুইপুর পুরসভার ১৭টি ওয়ার্ড। টংতলায় কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারও এই থানার আওতায়। বারুইপুর থানার মোট আয়তন প্রায় ২১২ বর্গ কিলোমিটার।এই একটি থানা থেকে এত বড় এলাকার আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ কে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়। কোন ঘটনা ঘটলে, এলাকাগুলিতে পৌঁছতে পুলিসের অনেকটাই সময় চলে যায়। আবার অনেক দূরের পঞ্চায়েত এলাকার মানুষদের থানায় আসতে খরচ করতে হয় অনেকটাই অর্থ। এহেন পরিস্থিতিতে নতুন থানা তৈরির খুবই দরকার বলে মনে করছেন এলাকার মানুষ থেকে বুদ্ধিজীবীরা।

    প্রসঙ্গত, এর আগে সোনারপুর থানা ভেঙে নরেন্দ্রপুর ও জয়নগর থানা ভেঙে বকুলতলা এই দুটি নতুন থানা নির্মাণ করা হয়েছে। বারুইপুরে আরও একটি থানা নির্মাণের প্রস্তাব বারুইপুর পূর্বের প্রাক্তন বিধায়ক নির্মল চন্দ্র মণ্ডল মুখ্যমন্ত্রীর প্রশাসনিক বৈঠকে তুলেছিলেন। কিন্তু জমি জটিলতায় সেই কাজ হয়নি। এই পরিস্থিতিতে নতুন থানার জন্য এদিন বারুইপুরের উত্তরভাগে, বারুইপুর পূর্বের বিধায়ক বিভাস সরদার, অতিরিক্ত পুলিস সুপার ইন্দ্রজিত বসু, আই সি দেবকুমার রায় একটি জমি পরিদর্শনে যান। উত্তরভাগ পাম্পিং স্টেশনের অধীনে ওই জমি দেখে অতিরিক্ত পুলিস সুপার বলেন, আমরা জমি দেখেছি। পছন্দও হয়েছে। এবার পুলিসের উচ্চ পদস্থ কর্তাদের জানাবো।

    বারুইপুর পূর্বের বিধায়ক বিভাস সরদার জানান, প্রশাসনিক সুবিধার জন্য থানা নির্মাণ প্রয়োজন। সেচ দপ্তরের জমি দেখা হয়েছে। পরবর্তী কালে আরও আলোচনা করা হবে। পাশাপাশি বারুইপুর পূর্ব ও পশ্চিমে দু’টি আলাদা ব্লক করার কথাও চলছে। সরকারের কাজের সুবিধার কথা ভেবে এগুলো করার চেষ্টা চলছে। ফলে, থানা ভাগ হলে যেমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরো সুনিশ্চিত করা যাবে, পাশাপাশি উপকৃত হবেন সাধারন মানুষও। মত ওয়াকিবহল মহলের।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    Tags: Sonarpur

    পরবর্তী খবর