• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Grow your child’s reading habit : আপনার সন্তান গল্পের বই পড়ে না? আজ থেকেই ওর অভ্যাস তৈরি করুন এই ছোট ছোট ধাপে

Grow your child’s reading habit : আপনার সন্তান গল্পের বই পড়ে না? আজ থেকেই ওর অভ্যাস তৈরি করুন এই ছোট ছোট ধাপে

বইপড়ার অভ্যাস তৈরি হয় শৈশবেই

বইপড়ার অভ্যাস তৈরি হয় শৈশবেই

Grow your child’s reading habit : ছোট ছোট উপায় অনুসরণ করুন৷ তাহলেই দেখবেন আপনার সন্তানও স্মার্টফেোন ছেড়ে বইয়ের দিকে ক্রমশ আকৃষ্ট হচ্ছে

  • Share this:

    শিশুর সর্বাঙ্গীন মানসিক বিকাশের জন্য বই পড়ার অভ্যাসের কোনও বিকল্প নেই (benefits of reading habit)৷ কিন্তু বৈদ্যুতিন গ্যাজেটের প্রভাবে অনেক দিনই বই থেকে দূরত্ব বেড়ে গিয়েছে শৈশবের৷ অতিমারি ও লকডাউন আবহে আরও অনেকটাই বই থেকে দূরে সরে গিয়েছে উত্তর প্রজন্ম৷ তাদের আরও বেশি করে বইমুখী করে তুলতে হবে৷ এতে একদিকে মানসিক বিকাশ হবে৷ অন্যদিকে কমবে স্ক্রিনটাইমও৷ বই পড়ার অভ্যাস কিন্তু প্রথম দিকে অনুকরণীয়৷ আর্থাৎ বাবা মা অথবা অন্য কাউকে বই পড়তে দেখলে তবে বাচ্চাও আগ্রহী হবে বইয়ের সাদাকালো দুনিয়ার প্রতি (Tips to grow your child’s reading habit)৷

    ছোট ছোট উপায় অনুসরণ করুন৷ তাহলেই দেখবেন আপনার সন্তানও স্মার্টফেোন ছেড়ে বইয়ের দিকে ক্রমশ আকৃষ্ট হচ্ছে-

    আপনি নিজে বই পড়ুন

    আপনার হাতেও যেন স্মার্টফোনের বদলে বই বেশি দেখে সন্তান৷ অভিভাবক হিসেবে সন্তানের সামনে দেখান আপনারও প্রধান শখ বই পড়া-ই৷ এই অভ্যাস যে লোভনীয়, সেটা বোঝাতে হবে সন্তানকে৷ তাই বলে সারা ক্ষণ বই পড়তে হবে না৷ কিন্তু সন্তানের মনে কৌতূহল গড়ে তুলুন বই নিয়ে৷

    আরও পড়ুন : হাড়ের সুস্থতা থেকে ভাল ঘুম, ওমেগা-৬ ফ্যাটি অ্যাসিডের অবদান অনেক

    প্রিয় বই নিয়ে আলোচনা

    আপনার প্রিয় বই, লেখক, গল্প কবিতা নিয়ে সন্তানের সঙ্গেও কথা বলুন৷ ছোটবেলায় কার লেখা পড়তে পছন্দ করতেন, জানান সন্তানকে৷ দেখবেন, ধীরে ধীরে সন্তানও ক্রমশ আগ্রহী হয়ে উঠছে বইয়ের প্রতি৷

    পরিবারে বইয়ের জায়গা

    বাড়ি বই দিয়ে সাজিয়ে তুলুন৷ তবে শুধু সাজানোই নয়৷ সেগুলি পড়তেও হবে৷ সন্তানের কাছে যেন এই বার্তা যায় যে বই উপভোগ্য৷ বই নিছক ঘর সাজানোর উপকরণ নয়৷

    আরও পড়ুন : নতুন বছরের শীতে মিষ্টি আলু খাওয়ায় রাশ না টানলেই নয়, জেনে নিন কেন!

    সন্তানকে নিয়ে লাইব্রেরি যান

    অবসরে নিয়মিত সন্তানকে নিয়ে যান লাইব্রেরিতে৷ সময় কাটানোর জায়গা মানেই যে শপিং মল বা অ্যামিউজমেন্ট পার্ক নয়, সেটা বুঝতে দিন সন্তানকে৷ তাকে পাঠাগারে নিয়ে যান৷ পছন্দসই বই বেছে নিতে দিন৷ এভাবেই ধীরে ধীরে লেখক ও সাহিত্যজগতের সঙ্গে ওর পরিচয় তৈরি হবে৷

    দৈনিক রুটিনের অঙ্গ বইপড়া

    বইপড়া এবং লেখার জন্য রোজ কিছুটা হলেও সময় রাখতে বলুন সন্তানকে৷ পড়াশোনার বাইরে কিছুটা সময় থাকুক সিলেবাসের বাইরে অন্য বই পড়া এবং অন্য লেখালেখির জন্য৷ এতে সৃষ্টিশীলতা বাড়বে৷

    আরও পড়ুন : ঠান্ডা থেকে বাঁচিয়ে শীতকালে শরীরকে উষ্ণ রাখে এই সহজলভ্য সব্জিগুলি

    তবে বইপড়ার অভ্যাস একদিনে তৈরি হয় না৷ আপনাকে ধৈর্য ধরে চেষ্টা চালিয়ে যেতে হবে৷ দেখবেন, সন্তান যেন বই থেকে আগ্রহ হারিয়ে না ফেলে৷ দেরি না করে চেষ্টা শুরু করুন তাড়াতাড়ি৷ কারণ বইপড়ার অভ্যাস তৈরি হয় শৈশবেই, বড়বেলায় নয়৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: