হোম /খবর /লাইফস্টাইল /
আঙুল চাটতে থাকবে সবাই! আলু ও মুসুর ডালের যুগলবন্দি আমিষকে দেবে দশ গোল! দেখুন...

Tasty and Unique Recipe: আঙুল চাটতে থাকবে সবাই! আলু ও মুসুর ডালের যুগলবন্দি আমিষকে দেবে দশ গোল! দেখুন রেসিপি

আলু ও মুসুর ডালের লা জবাব পদ

আলু ও মুসুর ডালের লা জবাব পদ

Tasty and Unique Recipe: প্রোটিন সমৃদ্ধ মুসুর ডাল ও বাঙালির অতি প্রিয় আলু দিয়ে তৈরি দারুণ এই পদ খুব কম সময়ে অল্প কিছু জিনিস দিয়েই প্রস্তুত করা যাবে।

  • Last Updated :
  • Share this:

#রেসিপি : বাঙালিরা বেশিরভাগই আমিষ প্রিয়। কিন্তু মাছ-মাংস-ডিম ইত্যাদি খাবার খেতে ভালো লাগলেও রোজ রোজ কী শরীরের জন্য ভালো? তাছাড়া রোজ মাছ মাংস খেতে খেতে একটু স্বাদ বদলও ভালো লাগে অনেক সময়। বাড়িতে হঠাৎ এমন কেউ এসে পড়ল যে নিরামিষ খেতেই পছন্দ করেন তাহলে আবার মাথায় হাত পরে যায় কী মেনুতে চমক দেওয়া যায় এই ভেবে। কারণ আমিষ বা নিরামিষ যাই হোক রান্না পদ মুখরোচক না হলে কারোরই তা মুখে রোচে না। এবার এই প্রতিবেদনে আজ এমনই একটি পুষ্টিকর ও সহজ অথচ অভিনব রেসিপি শেয়ার করা হল যা এককথায় অনবদ্য। প্রোটিন সমৃদ্ধ মুসুর ডাল ও বাঙালির অতি প্রিয় আলু দিয়ে তৈরি দারুণ এই পদ খুব কম সময়ে অল্প কিছু জিনিস দিয়েই প্রস্তুত করা যাবে। রুটি দিয়ে খাওয়ার জন্য মুখরোচক এই পদ একদম উপযুক্ত। খেতে পারেন ভাতের সঙ্গেও। মন্দ লাগবে না বরং মুখে দিয়েই বন্ধুরা জিজ্ঞেস করবেন 'রেসিপি'।

আরও পড়ুন: ঠিক কোন বয়সে বিয়ে করলে পুরুষের আয়ু বাড়ে? ছোট সমীক্ষায় বড় চাঞ্চল্য! 

•উপকরণ:১) মুসুর ডাল২) আলু

৩) সাদা তেল৪) পেঁয়াজ কুচি৫) টমেটো কুচি৬) নুন৭) শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো৮) ভাজা জিরের গুঁড়ো৯) হলুদ গুঁড়ো১০) জল১১) রসুন কুচি১২) গোটা জিরে১৩) গোটা সর্ষে১৪) গোটা শুকনো লঙ্কা১৫) ধনেপাতা কুচি

প্রণালী:প্রথমে একটি পাত্রে ১ কাপ মুসুর ডাল ভালো করে জল দিয়ে ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখতে হবে। অন্যদিকে, তিনটি মাঝারি সাইজের আলু খোসা ছাড়িয়ে লম্বা ও পাতলা করে কেটে নিতে হবে। এরপর ওভেনে একটি ফ্রাইং প্যান বসিয়ে ৩ চামচ সাদা তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। তেল গরম হয়ে গেলে তিনটি মাঝারি সাইজের পেঁয়াজ কুচি ফ্রাইং প্যানে দিয়ে হালকা বাদামি রঙ করে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ ভাজা হয়ে গেলে তার মধ্যে একটি বড়ো সাইজের টমেটো কুচি ও স্বাদ অনুযায়ী নুন দিয়ে পেঁয়াজের সাথে মিশিয়ে আরো ২-৩ মিনিট ভেজে নিতে হবে।

আরও পড়ুন: লেবু-লঙ্কা ঝুলিয়ে রাখা 'কুসংস্কার'? মোটেই নয়! পিছনের বিজ্ঞান জানলে হতবাক হয়ে যাবেন!

টমেটো ভাজা হয়ে গেলে ফ্রাইং প্যানে একে একে ১ চামচ শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো, ১/২ চামচ ভাজা জিরের গুঁড়ো ও ১/২ চামচ হলুদ গুঁড়ো দিয়ে পেঁয়াজ-টমেটোর সঙ্গে মিশিয়ে কিছুক্ষণ ধরে নেড়েচেড়ে নিতে হবে। এরপর ফ্রাইং প্যানে আগে থেকে জল ঝরিয়ে রাখা মুসুর ডাল দিয়ে সবকিছুর সঙ্গে মিশিয়ে দিতে হবে। ৩-৪ মিনিট ধরে সব মেশানোর পর ফ্রাইং প্যানে সামান্য জল ও আলুর টুকরোগুলো দিয়ে আবার মেশাতে হবে। এবারে ফ্রাইং প্যান ২-৩ মিনিট ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে। ঢাকা সরিয়ে আবার সবকিছু নাড়াচাড়া করে ১.৫-২ কাপ জল ফ্রাইং প্যানে দিয়ে ঢাকা দিয়ে রেখে রান্না করে নিতে হবে।

অন্যদিকে ডালে দেওয়ার জন্য তড়কা প্রস্তুত করতে হবে। তড়কা বানানোর জন্য গ্যাসে কড়াই বসিয়ে তার মধ্যে ২ চামচ তেল দিয়ে গরম করে নিতে হবে। এরপর কড়াইয়ে প্রথমে ২ চামচ রসুন কুচি দিয়ে খানিকক্ষণ ভেজে নিতে হবে। রসুন ভাজা হয়ে গেলে তার মধ্যে ১ চামচ গোটা জিরে, ১/২ চামচ গোটা সর্ষে দিয়ে ও ইচ্ছে অনুযায়ী গোটা শুকনো লঙ্কা দিয়ে সোনালী রঙ করে ভাজতে হবে। এবারে ওই তড়কা ফ্রাইং প্যানে ডালের মধ্যে দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। নামানোর আগে ফ্রাইং প্যানে কিছু পরিমাণ ধনেপাতা কুচি মেশাতে হবে। এরপর গ্যাস বন্ধ করে খানিকক্ষণ এমনি‌ই রেখে দিয়ে নামিয়ে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন মুসুর ডাল ও আলুর এই অভিনব পদ। দেখুন আঙুল চাটতে থাকবেন খানেওয়ালারা।

Published by:Sanjukta Sarkar
First published:

Tags: Recipe, Vegetable