Lifestyle Tips: মুক্তোর মতো দাঁতে মন কাড়তে চান, আযুর্বেদের হাতে অব্যর্থ ওষুধ

how to take care of your teeth and mouth in ayurvedic way- Photo-Representative

Lifestyle Tips: মুক্তোর মতো দাঁতে (Teeth) মন কাড়তে চান, আযুর্বেদের (Ayurvedic) হাতে অব্যর্থ ওষুধ, আয়ুর্বেদিক পদ্ধতি ব্যবহার করে দাঁতের ক্ষয়জনিত সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কম।

  • Share this:

#কলকাতা: দিনে অন্তত দু'বার দাঁত (Teeth) ব্রাশ করা এবং ফ্লস করা মুখের স্বাস্থ্য (Oral Health) বজায় রাখার জন্য সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ। আয়ুর্বেদশাস্ত্র দাঁত সঠিক ভাবে পরিষ্কার করার গুরুত্ব কতখানি সেটা বিশ্বাস করে। প্রাচীনকালে, মানুষ দাঁত পরিষ্কার করার জন্য নির্দিষ্ট গাছের ডাল ব্যবহার করত এবং সেই ঐতিহ্য এখনও অনেক জায়গায় অনুসরণ করা হয়। আয়ুর্বেদিক পদ্ধতিতে (Ayurvedic) মুখের স্বাস্থ্যবিধি মানা এবং ব্রাশ করার আধুনিক পদ্ধতিতে স্বাস্থ্যবিধি মানার মধ্যে বিস্তর পার্থক্য রয়েছে। আয়ুর্বেদিক পদ্ধতি ব্যবহার করে দাঁতের (Teeth) ক্ষয়জনিত সমস্যায় আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা কম। কিন্তু কেন ব্রাশ করার প্রাচীন পদ্ধতি আধুনিক পদ্ধতির চেয়ে ভালো? দেখে নেওয়া যাক এক ঝলকে।

প্রাচীন পদ্ধতি

প্রাচীনকালে মানুষ দাঁত পরিষ্কার করতে তেতো গাছের ডাল যেমন নিম গাছের ডাল ব্যবহার করত। তিক্ত-স্বাদযুক্ত ডালের অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান মুখের (Oral Health) ভিতর জীবাণু মুক্ত এবং স্বাস্থ্যকর রাখতে সহায়তা করত। কড়া স্বাদযুক্ত গুল্মগুলি মুখ থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দেয় এবং দুর্গন্ধের বিরুদ্ধেও লড়াই করে। নিম, আম, এবং পিপল গাছের ডালগুলি এই কাজে ব্যবহৃত হত।

আরও পড়ুন - Snakes নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য পেলেন বিজ্ঞানীরা, Dinosaursদের অবলুপ্তির পরেই কীভাবে এল সাপ

কী ভাবে গাছের ডাল ব্যবহার করতে হবে

ডালটি ২৫ সেন্টিমিটার লম্বা এবং হাতের আঙুলের মতো মোটা হওয়া উচিত যাতে এটি সহজে ধরে রাখা যায়। ব্রাশ হিসাবে ডালটি ব্যবহার করার জন্য প্রথমে এর আগা চিবাতে হবে এবং তা রপরে আলতো করে এটি দিয়ে দাঁত ঘষতে হবে।

how to take care of your teeth and mouth in ayurvedic way how to take care of your teeth and mouth in ayurvedic way

ভেষজ টুথপেস্ট বিষয়ে দু'চার কথা

আজকাল বাজারে বিভিন্ন ধরনের টুথপেস্ট পাওয়া যায়। দাবি করা হয় এগুলি বিভিন্ন ডালপালা দদিয়ে তৈরি। ভেষজ টুথপেস্ট ব্যবহার করা যায় কারণ এগুলি ভেষজ উদ্ভিদ থেকে তৈরি এবং রাসায়নিক মুক্ত। এগুলি রাসায়নিক দেওয়া আধুনিক টুথপেস্টের চেয়ে ভালো।

আরও পড়ুন - IPL 2021: Anushka Sharma-র থেকে কোন অনুপ্রেরণা নিচ্ছেন Virat Kohli

দাঁত ব্রাশ করার সঠিক উপায়

বিজ্ঞান অনুসারে, কমপক্ষে দুই মিনিটের জন্য সঠিকভাবে দাঁত ব্রাশ করা উচিত। মুখের প্রতিটি কোণ পরিষ্কার রাখা দরকার। দাঁতের ফাঁকগুলির মধ্যে বিশেষভাবে পরিষ্কার করতে হবে এবং সঠিকভাবে পরিষ্কার করার জন্য চক্রাকার ভাবে স্ট্রোকগুলিতে ডাল ঘোরাতে হবে।

জিভ স্ক্র্যাপিং

আয়ুর্বেদ দাঁত ব্রাশ করার পর পরই জিভ স্ক্র্যাপ করার পরামর্শ দেয়। স্ক্র্যাপিং মুখের স্বাস্থ্য ভালো রাখার পদ্ধতি সম্পন্ন করে। এটি জিভ থেকে ময়লা বা জমে থাকা আবরণ দূর করতে সাহায্য করে।

Published by:Debalina Datta
First published: