• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • BDSM! হিংসাত্মক এই যৌনতায় মাতার আগে মাথায় রাখতে হবে এই ৫ তথ্য

BDSM! হিংসাত্মক এই যৌনতায় মাতার আগে মাথায় রাখতে হবে এই ৫ তথ্য

খুব ভাল রকমের বোঝাপড়া না থাকলে BDSM আনন্দের বদলে কেবল ব্যথাই দেবে! যা রীতিমতো সঙ্কটেরও কারণ হয়ে উঠতে পারে।

খুব ভাল রকমের বোঝাপড়া না থাকলে BDSM আনন্দের বদলে কেবল ব্যথাই দেবে! যা রীতিমতো সঙ্কটেরও কারণ হয়ে উঠতে পারে।

খুব ভাল রকমের বোঝাপড়া না থাকলে BDSM আনন্দের বদলে কেবল ব্যথাই দেবে! যা রীতিমতো সঙ্কটেরও কারণ হয়ে উঠতে পারে।

  • Share this:

#কলকাতা: BDSM শব্দটা চারটে ইংরেজি শব্দের আদ্যক্ষর নিয়ে তৈরি হয়েছে। B অর্থে বন্ডেজ (Bondage) বা বাঁধন, D অর্থে ডমিন্যান্স (Dominance) বা দমন, S অর্থে স্যাডিজম (Sadism) বা অন্যকে শারীরিক ভাবে কষ্ট দেওয়া আর M অর্থে ম্যাসোকিজম (Masochism) বা নিজে শারীরিক ভাবে কষ্ট পাওয়া।

শব্দগুলো সাফ বুঝিয়ে দিচ্ছে যে এ হেন যৌনতা সবার জন্য নয়। কেন না, এখানে এক পক্ষ থাকে কর্তৃত্বে, সেই ব্যক্তি অন্যকে নিগ্রহ করে যৌন সুখ লাভ করেন। অপরপক্ষ নিগৃহীত হয়ে রতিসুখের চূড়ান্তে পৌঁছন। ফলে, খুব ভাল রকমের বোঝাপড়া না থাকলে BDSM আনন্দের বদলে কেবল ব্যথাই দেবে! যা রীতিমতো সঙ্কটেরও কারণ হয়ে উঠতে পারে।

তাই এক যুবক যখন BDSM-এর ইচ্ছা প্রকাশ করে এ ব্যাপারে কী কর্তব্য সেটা জানতে চাইলেন বিশেষজ্ঞ পল্লবী বার্নওয়ালের কাছে, তিনি ৫টি বিষয় মাথায় রাখার পরামর্শ দিলেন। এক এক করে দেখে নেওয়া যাক সেগুলো!

১. কী কী করা হবে ঠিক করে নেওয়া

সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সঙ্গে স্পষ্ট ভাবে কথা বলতে হবে। জানাতে হবে, নিজে কী চাইছেন! সঙ্গে তিনি কী চাইছেন, সেটাও জানা দরকার! তার পর কী কী করা হবে, কতটা নিগ্রহ করা হবে, শারীরিক যন্ত্রণা কেমন ভাবে কত দূর পর্যন্ত দেওয়া হবে, তা ঠিক করে নিতে হবে।

২. কী কী করা হবে না ঠিক করে নেওয়া

একই ভাবে কোন বিষয়গুলি বাদ দেওয়া হবে দুই পক্ষের সুবিধা এবং আনন্দের কথা মাথায় রেখে, সেটারও বোঝাপড়া সেরে নিতে হবে।

৩. সেফ ওয়ার্ড (Safe Word) ঠিক করা

আশ্লেষের রোমাঞ্চে অনেকেই যৌনতার সময়ে 'না, না' বলে থাকেন। সেটাকে তাঁর সম্মতিই ধরে নেওয়া হয়! কিন্তু BDSM-এর ক্ষেত্রে যেহেতু শারীরিক আঘাতের বিষয় থাকে, তাই শুধু 'না' বলা যথেষ্ট নয়! সঙ্গী বা সঙ্গিনী তার অন্য অর্থ করতেই পারেন, বাড়িয়ে দিতে পারেন আঘাতের মাত্রা! তাই কখন থামতে হবে, তার জন্য একটা শব্দ ভাবতে হবে। একেই বলে সেফ ওয়ার্ড। এই শব্দটি উচ্চারণ করলে অন্য পক্ষ থেমে যাবেন, এই হল নিয়ম!

৪. খেলনা ব্যবহার করা

BDSM-এর জন্য খেলনা পাওয়া যায়। যেমন, হাত বাঁধার জন্য নরম পশম বা চামড়ায় মোড়া হ্যান্ডকাফ, আঘাতের জন্য চাবুক এবং এ রকম আরও অনেক কিছু! এগুলো একটা নির্দিষ্ট সীমা পর্যন্ত শারীরিক আঘাত সহ্য করার ক্ষমতা হিসেব করে বানানো হয়। এর জায়গায় ঘরের কোনও জিনিস, যেমন দড়ি, বেত এ সব ব্যবহার করা উচিৎ হবে না! তা প্রাণহানিকর পর্যন্ত হতে পারে! পাশাপাশি, BDSM-এর খেলনাগুলো নিয়মিত ভাবে স্যানিটাইজ করতে হবে!

৫. খেলার থেমে যাওয়ার পরের খেলা

BDSM-এর অভিধানে এই বিষয়টিকে বলা হয় আফটার কেয়ার (After Care)। যিনি অন্য পক্ষের অত্যাচার সহ্য করেছেন, তাঁর কিছু প্রাথমিক প্রয়োজনীয়তার দিকে এই সময়ে দৃষ্টি দিতে হবে। কেন না, তিনি শারীরিক ভাবে বিধ্বস্ত হয়ে থাকবেন। তাই তাঁকে আদর করা এবং দরকারে ওষুধ দেওয়ার বিষয়টাতে ভুল হলে চলবে না!

Pallavi Barnwal

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: