Home /News /life-style /
Skin care and Hair care: আদা থেকে গোলমরিচ, হেঁশেলের এই সব মশলাই যে ত্বক করে ঝকঝকে

Skin care and Hair care: আদা থেকে গোলমরিচ, হেঁশেলের এই সব মশলাই যে ত্বক করে ঝকঝকে

মশলা দিয়েও বানিয়ে ফেলা যায় কার্যকরী ফেস স্ক্রাব কিংবা মাস্ক। তবে শুধু ত্বকের যত্নও নয়, চুলের জন্যও এগুলো দুর্দান্ত।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রতিটা মশলার নির্দিষ্ট কিছু গুণ আছে। এগুলো রান্নার স্বাদ তো বাড়ায়ই, সঙ্গে এর স্বাস্থ্য উপকারিতাও অনেক। তবে শুধু স্বাস্থ্য উপকারিতা নয়, ত্বক চর্চাতেও এই সব মশলার জুড়ি মেলা ভার। কারণ এগুলি প্রয়োজনীয় পুষ্টি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি এজেন্টে সমৃদ্ধ। তাই প্রতিদিনের স্কিনকেয়ার রুটিনে চোখ বন্ধ করে এই সব মশলা যোগ করা যায়। রান্নাঘরের বয়ামের মশলা দিয়েও বানিয়ে ফেলা যায় কার্যকরী ফেস স্ক্রাব কিংবা মাস্ক। তবে শুধু ত্বকের যত্নও নয়, চুলের জন্যও এগুলো দুর্দান্ত।

দারচিনি: সমস্ত ধরনের ত্বকেই দারুচিনির ফেস মাস্ক ব্যবহার করা যায়। ব্রণ নিরাময়ে এটা দুর্দান্ত কাজে দেয়। এটা ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বাড়ায় ফলে ত্বক উজ্জ্বল দেখায়। ত্বকের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য এটা দারুণ কার্যকরী। দু-তিনটি দারচিনি পিষে নিয়ে তাতে ২ টেবিল চামচ মধু এবং ১/২ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। এবার মিশ্রণটা মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করতে হবে। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলতে হবে জল দিয়ে। ব্রণ নিরাময় এবং পরিষ্কার ত্বক পেতে সপ্তাহে একবার লাগাতে হবে এই ফেস প্যাক।

লবঙ্গ: লবঙ্গ অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এবং অ্যান্টিফাঙ্গাল বৈশিষ্ট্যে সমৃদ্ধ। খোসা ছাড়ানো একটা আপেল পিষে মসৃণভাবে পেস্ট তৈরি করে নিতে হবে। এবার গ্রিন টি বানিয়ে ঠান্ডা করে সেটা মিশিয়ে দিতে হবে আপেলের পেস্টে। তাতে যোগ করতে হবে এক ফোঁটা লবঙ্গ তেল। এবার সবকটা উপাদান ভালো করে মিশিয়ে মুখে এবং ঘাড়ে লাগাতে হবে। শুকোনোর জন্য ১৫ থেকে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে ধুয়ে ফেলতে হবে ঠান্ডা জলে। তারপর লাগাতে হবে ময়েশ্চারাইজার।

আরও পড়ুন: স্ট্র দিয়ে জুস থেকে জল পান করার অভ্যেস? বড় কোনও ক্ষতি হয়ে যাচ্ছে না তো?

কালো মরিচ: কালো মরিচ বা গোলমরিচ অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট গুণে ভরপুর। ব্ল্যাকহেডস, পিম্পল এবং ব্রণ নিরাময়ে দারুণ কার্যকরী। শুধু তাই নয়, এটা দুর্দান্ত এক্সফোলিয়েটিং এজেন্ট হিসেবেও কাজ করে। এক চা চামচ কালো মরিচের গুঁড়ো, এক চা চামচ হলুদ গুঁড়ো এবং সামান্য গোলাপ জল মিশিয়ে একটা পেস্ট তৈরি করতে হবে। তারপর পরিস্কার মুখে লাগিয়ে ৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে ঠান্ডা জলে। এই ফেস প্যাকটিতে হলুদ এবং গোলাপ জলের শক্তিশালী উপকারিতা রয়েছে। ত্বক পরিষ্কার করতে এর জুড়ি নেই।

আরও পড়ুন: বর্ষায় মাথায় জমাট বাঁধা খুশকি? কয়েকটি টোটকাতেই সমস্যা সমাধান

আদা: এটা তাৎক্ষণিকভাবে ত্বকে তাজা আভা এনে দেয় এবং উজ্জ্বলতা বাড়ায়। আদার আশ্চর্যজনক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে। আদা ত্বকের টোনকে আরও বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে, বিশেষ করে যদি হাইপারপিগমেন্টেশন থাকে। এটা ব্যবহার করা সবচেয়ে সহজ। একটা আদা কেটে মুখে ঘাড়ে তার রস লাগাতে হবে। শুরুতে জ্বালা করতে পারে। তবে ঠিক হয়ে যাবে। ১৫ মিনিট পর শুকিয়ে গেলেই ধুয়ে ফেলতে হবে ঠান্ডা জলে। এটা ত্বককে পুনরুজ্জীবিত করার সবচেয়ে সহজ উপায়গুলির মধ্যে একটা।

Published by:Teesta Barman
First published:

Tags: Hair and skin care, Indian spices, Skin Care Tips

পরবর্তী খবর