• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Exam Anxiety : পরীক্ষা নিয়ে উদ্বেগে নাজেহাল? জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এভাবেই পাশে থাকুন সন্তানের

Exam Anxiety : পরীক্ষা নিয়ে উদ্বেগে নাজেহাল? জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এভাবেই পাশে থাকুন সন্তানের

Exam Anxiety : অনেক ক্ষেত্রে এই উদ্বেগ ভয়াবহ হয়ে দেখা দেয়৷ তাতে ফল বিরূপও হয়

Exam Anxiety : অনেক ক্ষেত্রে এই উদ্বেগ ভয়াবহ হয়ে দেখা দেয়৷ তাতে ফল বিরূপও হয়

পরীক্ষা নিয়ে উদ্বেগ বা পোশাকি ভাষায় ‘এক্সাম অ্যাংজাইটি’-তে (Exam Anxiety ) ভুগতে হয় না, এমন পড়ুয়া বিরল৷ অনেক ক্ষেত্রে এই উদ্বেগ ভয়াবহ হয়ে দেখা দেয়৷ তাতে ফল বিরূপও হয়৷

  • Share this:

    আমাদের দেশে যে পদ্ধতিতে পড়াশোনা হয়, সেখানে পরীক্ষা খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ পরীক্ষার্থী একা নয়৷ ‘পরীক্ষা’ দেন তার বাবা মা এবং পরিবারের বাকিরাও! প্রতিযোগিতা, প্রত্যাশা এবং তুলনা থেকেই এই পরিস্থিতি তৈরি হয়৷ পরীক্ষা নিয়ে উদ্বেগ বা পোশাকি ভাষায় ‘এক্সাম অ্যাংজাইটি’-তে (Exam Anxiety ) ভুগতে হয় না, এমন পড়ুয়া বিরল৷ অনেক ক্ষেত্রে এই উদ্বেগ ভয়াবহ হয়ে দেখা দেয়৷ তাতে ফল বিরূপও হয়৷

    আরও পড়ুন : প্রেমের নামে ‘আরশোলা-ডেটিং’! আপনি এই সম্পর্কের শিকার নন তো?

    পরীক্ষা জীবনের পথে এগোনর একটা ধাপ৷ কিন্তু সম্পূর্ণ জীবন নয়৷ এটা প্রথম থেকেই সন্তানকে বোঝান এবং নিজেও বুঝুন৷ তাছাড়া পরীক্ষা নিয়ে উদ্বেগ অনেক সময়েই ভাল পারফর্ম করার পথে বাধা হয়ে দেখা দেয়৷

    সন্তানকে বলুন, যে কোনও সমস্যায় মন খুলে কথা বলতে৷ বাবা মা ছাড়াও অন্য যে কোনও আত্মীয়, শিক্ষক বা বন্ধুর সঙ্গে  কথা বলতে পারে সে৷

    আরও পড়ুন : ঝগড়া বন্ধ হচ্ছে না? বিবাদের পর পরিস্থিতি তিক্তই থাকছে? রইল সহজ উপায়

    পরীক্ষার আগে সন্তানের খাওয়ার দিকেও নজর রাখুন৷ সুষম পুষ্টিকর আহারের পাশাপাশি প্রচুর জল পান করতে হবে৷ রাত জেগে পড়ার অভ্যাস থাকলেও বেশি কফি একদমই দেবেন না৷ দৈনিক ৭-৮ ঘণ্টা ঘুম কিন্তু অবশ্য প্রয়োজনীয়৷

    সন্তানকে রোজ মেডিটেশন করাতে পারলে ভাল৷ কিছু মুহূর্তের জন্য হলেও গভীর ভাবে শ্বাস প্রশ্বাস বর্জন-গ্রহণের অভ্যাস পড়াশোনায় মনঃসংযোগ গভীর করে তুলবে৷

    আরও পড়ুন : চার পা-ই কেটে দিয়েছিল কেউ, কৃত্রিম অঙ্গ পেয়ে নতুন জীবনে ছোট্ট মনিকা

    পরীক্ষা এসে গিয়েছে বলেই সন্তানের সব শখ আহ্লাদ বন্ধ করে দেবেন না৷ গল্পের বই পড়া, বাইরে খেলতে যাওয়ার মতো অভ্যাস পুরোপুরি বাদ দিয়ে দিতে বলবেন না৷ পড়ার ফাঁকে এই ধরনের অবসর বরং মনঃসংযোগ বাড়াতে তৈরি করে৷ বাড়িতে পোষ্য থাকলে সেটির সঙ্গেও সন্তান খেলতে পারে পড়ার মাঝে অবসরে৷ কারণ পরীক্ষার আগে শরীরের পাশাপাশি মনের সুস্থতাও খুবই দরকার৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: