Home /News /life-style /
Weight Loss Candy|| বেশি ঝক্কির দরকার নেই, খাওয়ার পর ক্যান্ডি মুখে দিলেই কমতে শুরু করবে ওজন

Weight Loss Candy|| বেশি ঝক্কির দরকার নেই, খাওয়ার পর ক্যান্ডি মুখে দিলেই কমতে শুরু করবে ওজন

আমলা ক্যান্ডি।

আমলা ক্যান্ডি।

Amla Candy Recipe: বাড়িতে কীভাবে সহজে এই আমলা ক্যান্ডি তৈরি করা যায়, জেনে নেওয়া যাক।

  • Share this:

#কলকাতা: আমরা অনেকেই নিয়মিত পেটের সমস্যায় ভুগি! গ্যাস, পেট ফাঁপা কিংবা অ্যাসিডিটিতে জেরবার হয়ে একের পর এক ওষুধ খেয়েও কিছুই লাভ হয় না। এক্ষেত্রে আমাদের সবার জন্য রইল আমলা ক্যান্ডির একটি ঘরোয়া প্রতিকার। যা প্রাকৃতিকভাবে আমাদের যাবতীয় সমস্যা কমাতে সাহায্য করবে। আমলা ক্যান্ডির এই রেসিপি কিন্তু একেবারেই ঘরোয়া, আমাদের পূর্বপুরুষেরা দীর্ঘদিন ধরে বাড়িতে তৈরি করে আসছেন। তার কারণও আছে। আমলকি যেমন হজমে সাহায্য করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, একই সঙ্গে ওজন কমাতেও সাহায্য করে। তাহলে বাড়িতে কীভাবে সহজে এই আমলা ক্যান্ডি তৈরি করা যায়, জেনে নেওয়া যাক।

যা যা লাগবে:

কাঁচা আমলকি- ১ কেজি, ২টি বড় লেবুর রস, আদার পেস্ট- ১০০ গ্রাম, জোয়ানের গুঁড়ো- ৫০ গ্রাম, সৈন্ধব নুন- ৫০ গ্রাম

আরও পড়ুন: সব লক্ষণই কিন্তু করোনা বলে ভুল করবেন না, কী করে বুঝবেন কোনটা কোভিড, কোনটা নয়?

যেভাবে বানাতে হবে:

ক্যান্ডি তৈরির জন্য প্রথমে ভালো করে আমলকি ধুয়ে শুকিয়ে নিতে হবে। এর পর আমলকির বীজগুলি সরিয়ে একটি বড় পাত্রে ছোট টুকরো করে ২-৩ দিন রোদে রেখে দিতে হবে। আমলকি পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে একটি বড় পাত্রে নিয়ে ২টি বড় লেবুর রস, আদার পেস্ট, জোয়ানের গুঁড়ো এবং সৈন্ধব লবণ মেশাতে হবে। হাত দিয়ে সমস্ত উপকরণ ভালোভাবে মিশিয়ে ফের এক সপ্তাহের জন্য রোদে শুকোতে দিতে হবে। এর ফলে আমলকিগুলো শক্ত হয়ে যাবে। আমলকি পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে ঢাকনা এঁটে একটা পাত্রে রেখে দিলেই হল। গ্যাস-অম্বল হলে এর থেকেই এক টুকরো খেলেই উপকার হবে হাতে-নাতে। রোজ খেলে তা বাড়তি ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতেও সাহায্য করবে।

আরও পড়ুন: মাঝে মাঝেই হাতে ব্যথা? শরীর কোনও মারাত্মক রোগের জানান দিচ্ছে না তো?

আমলা ক্যান্ডির উপকারিতা:

আমলা ক্যান্ডি বেশ কার্যকরী এবং কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে কাজ করে। সেক্ষেত্রে খাওয়ার পরে পেট ভার করলে আমলা ক্যান্ডি মুখে রাখতে পারি আমরা। যাঁদের নিয়মিত পেটের সমস্যা যেমন গ্যাস, পেট ফাঁপা, কোষ্ঠকাঠিন্য এবং অ্যাসিডিটি রয়েছে তাঁদের জন্যে খুব উপকারী এটি- নিয়মিত খেলে পেটের সমস্যাগুলো দূর হয়।

খেতে কেমন:

এই ক্যান্ডি দেখতে কিছুটা কালচে হলেও জিভে দিলেই দারুণ স্বাদ আসে। প্রথমে হয় তো খানিকটা তেঁতো লাগতে পারে কিন্তু তার পরেই টক ও নোনতা স্বাদ পাওয়া যায়। ক্যান্ডিটি মুখে রাখলে কিছুক্ষণের মধ্যে মিষ্টি স্বাদও অনুভব হবে।

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Amla, Weight Loss

পরবর্তী খবর