• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • A HEPATOLOGIST EXPLAINS WHY PATIENTS WITH CHRONIC LIVER DISEASE ARE AT A HIGHER RISK PB

করোনাভাইরাসের প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে লিভার ! ভয় ধরাচ্ছে যকৃতের অসুখ !

Decoding Long Covid: করোনাভাইরাস কী ভাবে আমাদের যকৃতে প্রভাব ফেলছে, সেই বিষয়টি এবার বিশ্লেষণ করেছেন মুম্বইয়ের মলন্দের ফর্টিস হাসপাতালের (Fortis Hospital) লিভার ট্রান্সপ্লান্ট এবং হেপাটো প্যানক্রিয়াটো বিলিয়ারি (Hepato-Pancreatico-Biliary), সংক্ষেপে HPB সার্জারি কনসালট্যান্ট ডক্টর স্বপ্নিল শর্মা (Swapnil Sharma)।

Decoding Long Covid: করোনাভাইরাস কী ভাবে আমাদের যকৃতে প্রভাব ফেলছে, সেই বিষয়টি এবার বিশ্লেষণ করেছেন মুম্বইয়ের মলন্দের ফর্টিস হাসপাতালের (Fortis Hospital) লিভার ট্রান্সপ্লান্ট এবং হেপাটো প্যানক্রিয়াটো বিলিয়ারি (Hepato-Pancreatico-Biliary), সংক্ষেপে HPB সার্জারি কনসালট্যান্ট ডক্টর স্বপ্নিল শর্মা (Swapnil Sharma)।

  • Share this:

#মুম্বই: কোভিড ১৯ ভাইরাসের প্রভাব কি আমাদের লিভার বা যকৃতে পড়ার কথা? এখনও পর্যন্ত মারণ এই ভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে যে সব চিকিৎসাবিষয়ক লেখালিখি হয়েছে, তা থেকে আমরা জেনেছি যে এই ভাইরাস নাসারন্ধ্র, শ্বাসনালী, কণ্ঠনালীর মাধ্যমে সরাসরি আমাদের শ্বাসযন্ত্র বা ফুসফুসে প্রবেশ করে এবং তার পর তার কার্যকারিতাকে সঙ্কটের মুখে ফেলে। এই কারণেই কোভিড ১৯ ভাইরাসে যাঁরা গুরুতর ভাবে সংক্রমিত হচ্ছেন, তাঁদের মধ্যে শ্বাসকষ্টের উপসর্গ দেখা দিচ্ছে। কিন্তু বিষয়টা এখানেই শেষ হয়ে যাচ্ছে না। যাঁরা করোনা থেকে সেরে উঠছেন, দেখা যাচ্ছে যে অনেক ক্ষেত্রে উপসর্গগুলোর কিছু না কিছু তাঁদের মধ্যে থেকেই যাচ্ছে, কখনও বা আবার শরীরের অন্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গও পড়ছে ক্ষতির মুখে।

করোনাভাইরাস কী ভাবে আমাদের যকৃতে প্রভাব ফেলছে, সেই বিষয়টি এবার বিশ্লেষণ করেছেন মুম্বইয়ের মলন্দের ফর্টিস হাসপাতালের (Fortis Hospital) লিভার ট্রান্সপ্লান্ট এবং হেপাটো প্যানক্রিয়াটো বিলিয়ারি (Hepato-Pancreatico-Biliary), সংক্ষেপে HPB সার্জারি কনসালট্যান্ট ডক্টর স্বপ্নিল শর্মা (Swapnil Sharma)।

ডক্টর শর্মা জানিয়েছেন যে করোনা থেকে সেরে ওঠার পরে কিছু রোগীর যকৃতে ভাইরাসের নেতিবাচক প্রভাব লক্ষ্য করা গিয়েছে। তিনি বলছেন যে যাঁরা ক্রনিক লিভার ডিজিজ (Chronic Liver Disease), সংক্ষেপে CLD-তে ভুগছেন, তাঁদের যদি করোনা হয়, তাহলে কোভিডোত্তর পর্বে জীবনসঙ্কটের সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে! রোগীদের পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে প্রমাণিত হয়েছে যে যাঁদের ক্রনিক লিভার ডিজিজ নেই, তাঁরা কোভিডোত্তর পর্বে যকৃতের অসুখের দিক থেকে অনেকটা নিরাপদে রয়েছেন। ঠিক একই ভাবে আবার যাঁদের অ্যালকোহলিক লিভার ডিজিজ (Alcoholic Liver Disease) বা অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে যকৃতের সমস্যা রয়েছে, তাঁদেরও কোভিডোত্তর পর্বে লিভারের অবস্থা সঙ্কটজনক অবস্থায় এসে ঠেকেছে।

তেমনই নন-অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজ (Non-Alcoholic Fatty Liver Disease), সংক্ষেপে NAFLD যাঁদের আছে, তাঁদের ক্ষেত্রেও করোনা থেকে সেরে ওঠার পর যকৃতের সমস্যা দেখা দিচ্ছে, কোমর্ডিবিটি বাড়ছে। পাশাপাশি, নন-অ্যালকোহলিক স্টেটিওহেপাটাইটিস (Non-Alcoholic Steatohepatitis), সংক্ষেপে NASH-এর ক্ষেত্রেও একথা সমান ভাবে প্রযোজ্য বলে দাবি করছেন ডক্টর শর্মা। যে সব রোগীদের যকৃৎ প্রতিস্থাপন করা হয়েছে, তাঁদের ক্ষেত্রেও করোনা থেকে সেরে ওঠার পরেও বিপদ রয়ে গিয়েছে বলে জানাচ্ছেন তিনি; তাঁর পরামর্শ এক্ষেত্রে সেই সব রোগী যেন যকৃৎ প্রতিস্থাপক শল্যচিকিৎসকের সঙ্গে নিয়মিত ভাবে যোগাযোগ রাখেন, সামান্য অসুবিধা হলেও আরোগ্যের লক্ষ্যে তাঁর পরামর্শ নেন।

যদিও করোনাভাইরাস সরাসরি আমাদের যকৃতে প্রভাব ফেলছে কি না, এই বিষয়টি নিয়ে এখনও সংশয় রয়েছে বলে জানিয়েছেন ডক্টর শর্মা। তিনি বলছেন যে করোনায় আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার জন্য যে সব স্টেরয়েড ওষুধ ব্যবহার করা হচ্ছে, তার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াতেও যকৃতের এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। বিষয়টি এখনও সমীক্ষাধীন, এই নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। তবে অসুবিধা যে একটা হচ্ছেই, সেই নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই বলেই জানিয়েছেন তিনি!

Published by:Piya Banerjee
First published: