• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • WEST BENGAL MINISTER SADHAN PANDE HEALTH UPDATE HE IS HOSPITALISED AND CONDITION SERIOUS RC

Sadhan Pande Health Update: সাধন পান্ডের শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত আশঙ্কাজনক, রয়েছেন ভেন্টিলেশনে!

সাধন পান্ডে।

বরং তাঁর পরিস্থিতি অত্যন্ত আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে (Sadhan Pande Health Update)।

  • Share this:

#কলকাতা: শুক্রবার রাতেই ফের অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন মানিকতলার বিধায়ক ও তৃণমূলের প্রবীণ নেতা সাধন পান্ডে (Sadhan Pande)। হাসপাতাল সূত্রে খবর, শনিবারও তাঁর শারীরিক পরিস্থিতির কোনও উন্নতি হয়নি। বরং তাঁর পরিস্থিতি অত্যন্ত আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে (Sadhan Pande Health Update)। সম্পূর্ণ ভেন্টিলেশনে রয়েছেন তিনি। গতকাল প্রায় অচৈতন্য অবস্থায় বাইপাসের ধারে এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, চিকিৎসক নবারুণ রায়ের তত্বাবধানে তাঁর চিকিৎসা চলছে৷ শ্বাসকষ্ট, কাশির পাশাপাশি অস্বাভাবিক রক্তচাপের সমস্যাতেও আক্রান্ত তিনি৷ হার্টবিটও বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই৷ ফুসফুসে সংক্রমণ হয়েছে, রক্তচাপ খুবই কম এবং হার্ট বিট খুবই অনিয়মিত রয়েছে। এবং তার সাথে ব্রেনেও অত্যন্ত প্রভাব পড়েছে। যাকে চিকিৎসার পরিভাষায় বলা হয় ব্রেন এন্সেফালোপ্যথি। যদিও পরিবার কোনও কিছুই এই বিষয়ে বলতে চাইছে না এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কেও বলতে বারণ করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

গতকাল তিনি যখন হাসপাতালে ভর্তি হন, তখন তাঁর রক্তে অক্সিজেনের পরিমাণ একেবারেই কমে গিয়েছিল। সেই পরিস্থিতিকে চিকিৎসা পরিভাষায় বলা হয় হাইপক্সিক রেস্পিরাটরি ফেলিওর। রাতেই তাঁর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। সোমবারের আগে এখনই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কোনও সিদ্ধান্তে আসতে পারছে না। ফুসফুসের সিটি স্ক্যান ও এক্স-রে করা হয়েছে। বুকে হাল্কা নিউমোনিয়া ধরা পড়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, আইসিইউ-তে চিকিৎসকদের পর্যবেক্ষণে আছেন তিনি৷ প্রসঙ্গত বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগেই ফুসফুসের সংক্রমণ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন তিনি৷ সুস্থ হয়ে আবার ফিরে আসেন কাজে৷ শুক্রবার দুপুরে ক্রেতা সুরক্ষা দফতরের ট্যাবলো উদ্বোধন কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন তিনি৷ সারাদিন রোদের মধ্যে থেকে বাড়িতে ফেরার পর অসুস্থ বোধ করতে থাকেন৷ এরপরই সত্তরোর্ধ্ব নেতাকে তড়িঘড়ি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷

Published by:Raima Chakraborty
First published: