ফের রাজ্যের বিরুদ্ধে তোপ রাজ্যপালের, শিক্ষাব্যবস্থায় রাজনীতিকরণ নিয়ে সরব ধনখড়

ফের রাজ্যের বিরুদ্ধে তোপ রাজ্যপালের, শিক্ষাব্যবস্থায় রাজনীতিকরণ নিয়ে সরব ধনখড়

অবিলম্বে শিক্ষাক্ষেত্র থেকে রাজনীতি দূরে সরানো উচিত।

  • Share this:

Avijit Chanda 

#কলকাতা: শিক্ষাব্যবস্থার রাজনীতিকরণ নিয়ে সরব রাজ্যপাল জাগদীপ ধনখড়। রবিবার সায়েন্স সিটিতে বিজেপি প্রভাবিত জাতীয়তাবাদী অধ্যাপক ও গবেষক সংঘের একটি সেমিনারের উদ্বোধন করতে এসে রাজ্যপাল বিস্ফোরক হয়ে উঠলেন। রাজ্যে উচ্চশিক্ষা দোকানে পরিণত হয়েছে, রাজ্যের বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয় উচ্চ শিক্ষায় একদম নিম্নগামী, অবিলম্বে শিক্ষাক্ষেত্র থেকে রাজনীতি দূরে সরানো উচিত।

'আমি এখন এ রাজ্যে সবচেয়ে বেশি চিন্তিত ব্যক্তি',রাজ্যের শিক্ষার একের পর এক ইট ভেঙে পড়ছে। সবজি কাটার ছুরি দিয়ে বাইপাস সার্জারি হচ্ছে ।এটা চলতে পারে না, অত্যন্ত চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে শিক্ষা ব্যবস্থা। সমস্ত ক্ষেত্রে আমাকে বাধা দেওয়া হচ্ছে।গত ৪ সপ্তাহে সতেরোটি অনুষ্ঠান বাতিল হয়েছে,যেখানে আমার থাকার কথা ছিল।আয়োজকদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে, রাজ্যপালকে ডাকলে ফল ভালো হবে না।আমি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে গিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীকে উদ্ধার করেছিলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য হিসাবে।আমি ব্যক্তি মানুষ হিসাবে কোন কাজ করছি না,গোটাটাই করছি রাজ্যপাল হিসেবে, সংবিধানসম্মত আইন মেনে। আমারও একটা

ধৈর্য আছে। ধৈর্যের শেষ সীমায় চলে যাচ্ছি।তবু আমি বাংলার মানুষকে আশ্বস্ত করছি যে,আমি শেষ দিন পর্যন্ত আপনাদের সৈনিক হিসাবেই রয়ে যাবো। আমি ভয় পাচ্ছি না। এই মাটি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নেতাজি, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মাটি। মাটি আঁকড়ে আমি লড়াই চালিয়ে যাব।বিধানসভায় ঢোকার সময় আমাকে অপমান করা হয়েছিল।যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালযয়ের সমাবর্তন নিয়েও যা চলছে তা মানা যায় না।’’ রাজ্য সরকারের দৃষ্টিভঙ্গি মারাত্মক। নিজে কিছু করতে পারে না বলে আমাকেও পদে পদে বাধা দেয়,নাম না করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে তীব্র সমালোচনা। রাজ্যপাল হিসেবে শপথ নেওয়ার পর থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে রাজ্যপালের দ্বৈরথ চরমে। আর সম্প্রতি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় সমাবর্তনকে কেন্দ্র করে দু'পক্ষের এই দ্বন্দ্ব আরও চরমে উঠল।

আরও পড়ুন - #Viral: পরণে কালো ক্রপ টপ, পার্কিং লটে নেহা কক্বরের সে কী নাচ, সে কী নাচ!

এদিনের এই অনুষ্ঠানে রাজ্যের বিভিন্ন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের ভিড় লক্ষ্যণীয় ছিল।রাজ্যপালের আগে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় প্রাক্তন উপাচার্য অভিজিৎ চক্রবর্তী,রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তও একইভাবে এ' রাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থায় রাজনীতিকরণ নিয়ে তীব্র সমালোচনা করেন বর্তমান রাজ্য সরকারের।

আরও দেখুন

First published: 06:14:41 PM Dec 22, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर