Home /News /kolkata /

আজকের খবরের কাগজ কী বলছে ? দেখে নিন

আজকের খবরের কাগজ কী বলছে ? দেখে নিন

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ সোমবারের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

    anandabazar11

    ১)কুড়ি নয়, ‘বেনামি’ চাঁদা হোক দু’হাজার, প্রস্তাব নির্বাচন কমিশনের ভোটে কালো টাকা রুখতে এ বারে সক্রিয় হল নির্বাচন কমিশন। আইন বদল করে নাম না জানিয়ে নগদে দেওয়া চাঁদার ঊর্ধ্বসীমা বিশ হাজার থেকে এক ধাক্কায় দু’হাজার টাকায় নামানোর প্রস্তাব দিল তারা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কালো টাকা রোখার ব্যাপারে বিস্তর হুঙ্কার দিলেও রাজনৈতিক দলগুলিকে ধরাছোঁয়ার বাইরেই রাখা হয়েছে। এমনকী অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিও যতই দাবি করুন, নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের পরে পুরনো ৫০০ ও এক হাজারের নোট রাজনৈতিক দলগুলি নিতে পারবে না, বাস্তব অন্য কথা বলছে। রাজনৈতিক দলের তহবিলে দেদার কালো টাকা ঢেলে পুরনো তারিখ দেখিয়ে ঘুরপথে তাকে সাদা করা হচ্ছে। সাম্প্রতিক এক স্টিং অপারেশনেও বিষয়টি ধরা পড়েছে। আর তার পরেই সক্রিয় হয়েছে নির্বাচন কমিশন।

    ২) সেনাপ্রধান বাছাই নিয়ে বিজেপিকে বিঁধতে তৈরি হচ্ছে বিরোধীরা সামনে উত্তরপ্রদেশের নির্বাচন। তার আগে নোট বাতিলের জেরে এমনিতেই চাপে নরেন্দ্র মোদী সরকার। মানুষের দুর্ভোগের প্রতিবাদ বিরোধী দলগুলিকে এককাট্টা করে তুলেছে। তার উপর এ বার যন্ত্রণার বিষফোড়া হয়ে দাঁড়ালো নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগ নিয়ে বিতর্ক। কংগ্রেস সহ বিরোধী নেতাদের বক্তব্য, নোট বাতিল নিয়ে সংসদে নাস্তানাবুদ হয়েছে সরকার। সংসদে আরও একটি অস্ত্র যাতে বিরোধীরা না-পেয়ে যান, তাই অধিবেশন শেষ হওয়া মাত্র এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। তবে তাঁরা জানিয়েছেন, সংসদ বন্ধ থাকলেও মোদীর এই ‘তুঘলকি’ আচরণ নিয়ে রাস্তা এবং ময়দানে আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। পাল্টা হিসেবে বিজেপি নেতারা মোদীর বিবেচনা-বুদ্ধির ওপর আস্থা রাখার পরামর্শ দিচ্ছেন। সন্ত্রাস-বিরোধী অভিযানে লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিপিন রাওয়তের অভিজ্ঞতা ও কাশ্মীরে নিয়ন্ত্রণ রেখা সংলগ্ন পুলওয়ামায় দীর্ঘদিন মোতায়েন থাকার বিষয়টিও তুলে ধরছেন। তাঁদের যুক্তি, সব দিক বিবেচনা করে যোগ্যতম লোককেই সেনাপ্রধানের দায়িত্বে এনেছেন মোদী। এ নিয়ে প্রশ্ন তোলার অর্থ দেশের নিরাপত্তার মতো স্পর্শকাতর বিষয় নিয়ে রাজনীতি করা। কিন্তু এই জবাবেই যে সব মিটে যাবে না, শাসক দলের নেতারা বিলক্ষণ বুঝতে পারছেন। তাই কিছুটা হলেও দিশেহারা তাঁরা।

    ৩)লর্ডসের মতো শুধু জামাটাই খুলল না সৌরভ জুয়েল রাজার শটটা গোলে ঢুকতেই চেয়ার ছেড়ে শূন্যে একটা লম্বা লাফ। মুষ্টিবদ্ধ দু’টো হাত উঠে গেল আকাশে। গ্যালারিতে কে নেই তখন? অমিতাভ বচ্চন বসে। নীতা অম্বানী বসে। দেখলাম হাসছেন, হাততালি দিচ্ছেন ভারতের সর্বকালের অন্যতম সেরা অধিনায়কের প্রতিক্রিয়া দেখে। ঠিক ধরেছেন। সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের কথাই বলছি! ক্রিকেট ছেড়ে দিয়েছে বহু দিন। কিন্তু সৌরভের প্যাশনটা এখনও যা দেখলাম, ভোলা সম্ভব নয়। ওর আবেগ, একশো কুড়ি মিনিট ধরে লাগাতার ছটফটানি দেখলে কে বলবে মাঠে যে খেলাটা হচ্ছে তার নাম ফুটবল, ক্রিকেট নয়! এটিকে জেতার পর সৌরভের আবেগ দেখে মনে হচ্ছিল, জায়গাটার নামই যা কোচি, আর জামাটাই যা খুলল না। বাকিটা তো পুরো যেন ন্যাটওয়েস্ট ট্রফি জয়ের লর্ডস!

    ৪) বেতন ফেরাবেন বিজেডি সাংসদ, বিরোধী হুঙ্কারে এ বার বাজেট অধিবেশন নিয়েও চিন্তা মোদীর শীতের সংসদ যে ভাবে ধুয়েমুছে গেল, তাতে এ বার বাজেট অধিবেশন নিয়েও সিঁদুরে মেঘ দেখছেন নরেন্দ্র মোদী। বিজেপি সূত্রের খবর, মন্ত্রিসভার শীর্ষ সদস্যদের কাছে ইতিমধ্যেই এ বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কারণ, বাজেট অধিবেশন শুরু হয়ে যাবে মাসখানেক পরেই। এ দিকে, বিরোধীদের একজোট করে এখন সরকারকে পদে পদে বিপাকে ফেলার চেষ্টা করছেন কংগ্রেস সহ-সভাপতি রাহুল গাঁধী। সংসদ অধিবেশনেই তার প্রমাণ মিলেছে। মোদী শিবির মনে করছে, জানুয়ারির শেষ নাগাদ শুরু হওয়া বাজেট অধিবেশনেও আক্রমণের তীব্রতা বাড়বে বই কমবে না। কারণ, বাজেট অধিবেশনের পরেই উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন। ভোটের আঁচ অবধারিত ভাবে সংসদেও ফেলতে চাইবে বিরোধীরা। আর তখন আরও আক্রমণাত্মক হবে রাহুল, মুলায়ম সিংহ, মায়াবতীর দল।

    bartaman_big11

    ১) পার্টি ফান্ডে ২ হাজারের বেশি দিলেই জানাতে হবে পরিচয় , কেন্দ্রকে জাতীয় নির্বাচন কমিশন ভোটের বাজারে কালো টাকার অবাধ প্রবাহ ঠেকাতে নয়া উদ্যোগ নিতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। রাশ টানতে চাইছে দলগুলির কাছে আসা ভূতুড়ে অনুদানের উপর। এতদিন ২০ হাজার বা তার বেশি অর্থের অনুদানের ক্ষেত্রেই একমাত্র দাতার পরিচয় প্রকাশ করতে হত। তার কম মূল্যের অনুদানের ক্ষেত্রে দাতার পরিচয় জানানো বাধ্যতামূলক ছিল না। কমিশন চাইছে, এবার পার্টিগুলির ফান্ডে চাঁদার পরিমাণ দু’হাজার টাকা হলেই দাতার পরিচয় প্রকাশ করা হোক। এজন্য আইনে যাতে সংশোধন করা হয়, কেন্দ্রের কাছে সেজন্য আবেদনও জানিয়েছে তারা। এমনিতে এধরনের বেনামি অনুদান গ্রহণের ক্ষেত্রে কোনও সাংবিধানিক বা বিধিবদ্ধ নিষেধাজ্ঞা নেই। কিন্তু ১৯৫১ সালের জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ২৯সি ধারায় এক ধরনের ‘পরোক্ষ ও আংশিক’ নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। যদিও তা প্রযোজ্য একমাত্র ২০ হাজার বা তার বেশি মূল্যের অনুদানের ক্ষেত্রে। সেক্ষেত্রেই একমাত্র দাতার নাম ও পরিচয় ঘোষণা করাটা বাধ্যতামূলক।

    ২) দু’জন যোগ্য সিনিয়র থাকা সত্ত্বেও বিপিন রাওয়াতকে সেনাপ্রধান নিয়োগ কেন, উঠছে প্রশ্ন ফের কি কোনও সার্জিকাল স্ট্রাইক মাথায় ঘুরছে নরেন্দ্র মোদির? নাকি নোট বাতিলের জেরে নাজেহাল হওয়ার পর এবার একইসঙ্গে চীন এবং পাকিস্তানের দিকে তির তাক করতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী? সীমান্তে, বিশেষত ভারত-চীন সীমান্তে ‘লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলে’র পাশাপাশি কাশ্মীর উপত্যকায় কাজের অভিজ্ঞতাসম্পন্ন লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিপিন রাওয়াতকে নতুন সেনাপ্রধান নিয়োগ করার সিদ্ধান্তে ওয়াকিবহাল মহলে এই প্রশ্ন উঠেছে। একইসঙ্গে কানাঘুষো শুরু হয়েছে ইস্টার্ন কমান্ডের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল প্রবীণ বক্সী, সাদার্ন কমান্ডের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল পি এম হারিজ এবং সেন্ট্রাল কমান্ডের কমান্ডার লেফন্যান্ট জেনারেল বলবন্ত সিং নেগিকে নিয়ে। তাঁরা কি তাদের জুনিয়রকেই সরকারিভাবে ‘স্যালুট’ করতে মনে মনে রাজি হবেন? নাকি ইন্দিরা গান্ধীর আমলে প্রায় একইরকমভাবে প্রথা ভেঙে লেফটেন্যান্ট জেনারেল এ এস বৈদ্যকে সেনাপ্রধান নিয়োগ করায় তাঁর চেয়ে সিনিয়র লেফটেন্যান্ট জেনারেল এস কে সিনহা যেভাবে ইস্তফা দিয়েছিলেন, তারই পুনরাবৃত্তির সাক্ষী হবে ভারতীয় সেনাবাহিনী?

    ৩) ডাক্তারি পড়ায় ১২ হাজার কোটির কালো টাকার লেনদেন আটকাতে মোদিকে চিঠি, আর্জি চিকিৎসকদের প্রতি বছর দেশের ডাক্তারি শিক্ষায় ১২ হাজার কোটির কালো টাকার লেনদেন হচ্ছে। পুরো লেনদেনটাই হয় নগদে, কোনও প্রমাণ না রেখেই। এটা আটকান। বাঙালি ডাক্তাররা এই মর্মে কাতর আরজি জানিয়ে চিঠি পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। চিঠি পাঠানো হয়েছে তৃণমূলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও। চিঠিগুলির বক্তব্যের নির্যাস হল, ফড়েদের হাত ঘুরে দেশের এক-একটি এমবিবিএস আসনের দাম কমবেশি কোটি টাকা। ডাক্তারি আসনে ভরতির চাহিদা মারাত্মক। তাই ২০১৩ সাল থেকে বড় বড় ডাক্তারি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ঘটে চলেছে। ২০১৫ সালে প্রশ্নফাঁসের জন্য অল ইন্ডিয়া প্রি মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল পরীক্ষা নতুন করে নিতে নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। জানা গিয়েছে, ২০১৪ সালেও একই দুর্নীতি হয়েছিল। এ বছরও উত্তরাখণ্ড হাইকোর্ট এআইপিএমটি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস নিয়ে সিবিএসই-এর কাছে জবাব তলব করেছে। লেক গার্ডেনস-এর ডাঃ এ কে মাইতি এবং উত্তর ২৪ পরগনার বদাইয়ের ডাঃ শঙ্খদীপ মুলার চিঠি দুটি’র বক্তব্য, আসন্ন শিক্ষাবর্ষে দেশজুড়ে মেডিকেলে ভরতির নিট পরীক্ষা দু’দফায় নেওয়া হোক। একটি হোক এমসিকিউ প্রশ্নের মাধ্যমে ‘নিট প্রিলিমস’।

    ৪) নয়ডার অ্যাক্সিস ব্যাংকের শাখার দু’টি অ্যাকাউন্টের বিবরণ তলব করল পুলিশ, দুঃখপ্রকাশ প্রতিষ্ঠানের এমডি’র নয়ডার সেক্টর ৫১-এর অ্যাক্সিস ব্যাংকের শাখার কাছে দু’টি অ্যাকাউন্টের বিস্তারিত বিবরণ চেয়ে পাঠাল পুলিশ। বৃহস্পতিবার এই শাখায় ২০টি ভুয়ো অ্যাকাউন্টে ৬০ কোটি টাকার হদিশ পেয়েছিল আয়কর দপ্তর। তার পরিপ্রেক্ষিতেই মামলা রুজু হয়েছে। নন্দু পাসোয়ান নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে ইডি। কারণ, তাঁকেই মালিক দেখিয়ে হিমানি ইন্টারন্যাশনাল-এর নামে এক কারেন্ট অ্যাকাউন্ট এবং তাঁর নামে একটি সেভিংস অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছিল।

    First published:

    Tags: Monday Morning Headlines, Morning Newspaper, Morning Newspaper headline, Newspaper Headline

    পরবর্তী খবর