Home /News /kolkata /

Mamata Banerjee: বিজেপি-কে হারাতে যোগ্যতম মুখ মমতাই, রাখঢাক নয়, স্পষ্ট ঘোষণা তৃণমূলের

Mamata Banerjee: বিজেপি-কে হারাতে যোগ্যতম মুখ মমতাই, রাখঢাক নয়, স্পষ্ট ঘোষণা তৃণমূলের

সোমবার কালীঘাটে যশবন্ত সিনহা, পবন বর্মাদের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

সোমবার কালীঘাটে যশবন্ত সিনহা, পবন বর্মাদের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

সোমবার কালীঘাটে তৃণমূলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকেও এই সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে দলের সংগঠন বিস্তৃতি এবং অন্যান্য রাজ্যে দলকে আরও শক্তিশালী করা নিয়েই আলোচনা হয়েছে (Mamata Banerjee)৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) নিজে বার বার দাবি করেছেন, ২০২৪-এ বিজেপিকে হারাতে বিরোধীদের নেতৃত্ব কে দেবেন, তা নিয়ে এখন থেকেই চর্চা করার মতো সময় আসেনি৷ কিন্তু তৃণমূলের (TMC) তরফে এবার স্পষ্টই বলে দেওয়া হল, বিজেপি-কে হারাতে যোগ্যতম বিরোধী মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই (TMC Projects Mamata Banerjee as Opposition Face)৷ রাজ্যের শাসক দলের সোমবারের বার্তা থেকে পরিষ্কার, ২০২৪-এর আগে কংগ্রেসকে সরিয়ে সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে প্রধান বিরোধী দলের জায়গা নেওয়াই এখন তাদের লক্ষ্য৷

    সোমবার কালীঘাটে তৃণমূলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকেও এই সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে দলের সংগঠন বিস্তৃতি এবং অন্যান্য রাজ্যে দলকে আরও শক্তিশালী করা নিয়েই আলোচনা হয়েছে৷ বৈঠকে অন্যান্য রাজ্যের নেতাদের উপস্থিতিও ছিল চোখে পড়ার মতো৷ মেঘালয় থেকে সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া মুকুল সাংমা সহ কংগ্রেস বিধায়করাও এ দিন কলকাতায় এসে তৃণমূলনেত্রীর সঙ্গে দেখা করেন৷ এ ছাড়াও বৈঠকে হাজির ছিলেন হরিয়ানার অশোক তনওয়ার, বিহারের পবন বার্মার মতো নেতারা৷ এসেছিলেন যশবন্ত সিনহাও৷

    আরও পড়ুন: একসঙ্গে চার জেলার সফরে মমতা, ফিরে এসেই ঝড় তুলবেন পুরভোটের প্রচারে

    বৈঠক শেষে তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন বলেন, 'সারা ভারতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লড়াই, সংগ্রামের বার্তাকে কীভাবে নিয়ে যেতে পারি, তা নিয়েই বৈঠকে আলোচনা হয়েছে৷ বিজেপিকে হারাতে মমতাদিই সবথেকে শক্তিশালী, বিশ্বাসযোগ্য এবং অভিজ্ঞ নেত্রী৷ উনি শুধু তিন বারের মুখ্যমন্ত্রীই নন, সাত বারের সাংসদও৷' দলের আর এক সিনিয়র নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও দাবি করেন, অবিজেপি দলের মতো অন্যান্য রাজ্য থেকে বিজেপি-র অনেকেও তৃণমূলে যোগ দিতে চাইছেন৷ তাঁর দাবি, জাতীয় রাজনীতিতে বিজেপি-র একমাত্র বিকল্প তৃণমূল কংগ্রেসই৷

    ত্রিপুরার পুরভোটে গেরুয়া ঝড় উঠলেও হতাশ নয় তৃণমূল নেতৃত্ব৷ বরং কয়েক মাসের চেষ্টায় যেভাবে আগরতলা পুরনির্বাচনে তৃণমূল দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে, তা যথেষ্ট আশাব্যঞ্জক বলেই মনে করছে তৃণমূল নেতৃত্ব৷ বিশেষত ত্রিপুরার নির্বাচনে শাসক দল বিজেপি-র বিরুদ্ধে যেভাবে বুথ দখল, ছাপ্পা ভোটের অভিযোগ উঠেছে,তাতে এই ফলাফলে জনমতের প্রকৃত প্রতিফলন হয়নি বলেই মনে করছে ঘাসফুল শিবির৷

    আরও পড়ুন: তৃণমূলের দেখানো পথেই বাকিরা? কংগ্রেসের বৈঠক এড়ালো জোটসঙ্গী শিবসেনাও

    এর পাশাপাশি মুকুল সাংমা সহ বারোজন কংগ্রেস বিধায়ক তৃণমূলে যোগ দেওয়ায় উত্তর পূর্বের রাজ্যটিতে এখন প্রধান বিরোধী দল হয়ে উঠেছে তৃণমূল৷ গোয়ায় লুইজিনহো ফেলেইরোর মতো নেতা দলে যোগ দিয়েছেন, আলেমাও চার্চিলেরও তৃণমূলে আসার সম্ভাবনা প্রবল৷ হরিয়ানা থেকে প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অশোক তনওয়ার এবং তাঁর অনুগামীরা তৃণমূলে নাম লিখিয়েছেন৷ উত্তর প্রদেশেও সংগঠন বিস্তার করেছে তৃণমূল৷

    ফলে ধীরে ধীরে পরিকল্পনা করেই দেশের অন্যান্য প্রান্তে পায়ের তলার মাটি শক্ত করে ২০২৪-এর আগে নিজেদের শক্তি যথাসম্ভব বাড়িয়ে নিতে চাইছে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব৷ যাতে কংগ্রেসের শর্ত মেনে চলার প্রয়োজন না হয় তাদের৷ সে পথে যে তৃণমূল আর হাঁটতে রাজি নয়, তা বার বারই স্পষ্ট করে দিয়েছেন দলের নেতারা৷ দিল্লিতে গিয়ে সনিয়া গান্ধি, রাহুল গান্ধিদের সাক্ষাৎ এড়িয়েদলের মনোভাব আরও স্পষ্ট করে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

    এই পরিস্থিতিতে আজ মুম্বাই যাচ্ছেন তৃণমূলনেত্রী৷ সেখানে উদ্ধব ঠাকরে, শরদ পাওয়ারদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা তাঁর৷ ফলে মমতার মু্ম্বাই সফর ঘিরেও জাতীয় রাজনীতিতে কৌতূহল তুঙ্গে৷ ডেরেক ও ব্রায়েন সোমবার জানিয়ে দিয়েছেন, সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে লড়াইয়ের কথা মাথায় রেখেই দলীয় সংবিধানেও কিছু বদল আনবে তৃণমূল৷ তবে সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published:

    Tags: BJP, Mamata Banerjee, TMC

    পরবর্তী খবর