• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • TMC SHARPLY CRITICIZES 6 LAKH CRORE NATIONAL ASSET MONETIZATION PLAN OF CENTRE AKD

TMC on Privatization| রেল-সড়কে বেসরকারি বিনিয়োগ! সুর চড়াচ্ছে TMC, 'দেশ বিক্রি' বলছে সব বিরোধীরাই

রেল-সড়ক সহ বহু বিষয়ে কর্পোরেটের জন্য দরজা খুলছেন নির্মলা সীতারামন। বিরোধিতায় তৃণমূল।

TMC on Privatization| কেন্দ্র বলছে এই পদ্ধতি বেসরকারিকরণ নয়, তবে তৃণমূল স্পষ্ট বলছে, এটা বেসরকারিকরণের প্রথম ধাপ। ক্রমশ সরকারি বিষয় বেসরকারি হাতে চলে যাবে।

  • Share this:

#কলকাতা: সোমবারই মোদি সরকার অ্যাসেট মনিটাইজেশন প্রকল্প শুরু করার কথা ঘোষণা করেছেন। প্রকল্পের আওতায় রেলস জাতীয় সড়ক, বিদ্যুৎ উৎপাদন, তেল ও গ্যাসের পাইপ লাইন থেকে শুরু করে ২৫ টি বিমানবন্দর, কলকাতা হলদিয়া জাহাজ বন্দর পরিকাঠামো নির্দিষ্ট সময়ের জন্য কর্পোরেটের হাতে তুলে দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। এবার এই নীতি নিয়ে অবস্থান স্পষ্ট করল তৃণমূল। তৃণমূলের স্পষ্ট দাবি, অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে যাতে একযোগে ভবিষ্যতে এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামা যায়। কেন্দ্র বলছে এই পদ্ধতি বেসরকারিকরণ নয়, তবে তৃণমূল স্পষ্ট বলছে, এটা বেসরকারিকরণের প্রথম ধাপ। ক্রমশ সরকারি বিষয় বেসরকারি হাতে চলে যাবে। তৃণমূল শিবিরের আশঙ্কা, এই ধরনের বেসরকারিকরণ চালু হলে রেল ভয়ঙ্কর অবস্থায় পৌঁছে যাবে।

এদিন তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায়, পরিসংখ্যান তুলে ধরে দাবি করেন, "রেলে সরকারি পরিষেবা বলে কিছু থাকবে না। তাঁর যুক্তি এই প্রকল্পের অধীনে  ৪০০ রেল স্টেশন দেবে। ৯০ প্যাসেঞ্জার ট্রেন ছাড়াও, ১৪০০ কিমি ট্র‍্যাক, কোঙ্কন রেলওয়ে, টয় ট্রেন, চারটি পার্বত্য রেল, গুডস শেড ২৬৫টি, DFC ৬৭৩ কিমি, রেল কলোনি ও ১৫ স্টেডিয়াম দেওয়া হচ্ছে।"

এই হিসেব তুলে ধরেই বিষোদগার করে সুখেন্দুশেখর বলেন, "সরকার দেউলিয়া হয়ে গেছে। অর্থনৈতিক অবস্থা বিপন্ন করে ফেলেছে। ভ্রান্ত নীতি দেশকে ধ্বংস করছে। এটার মধ্যেও নোট বন্দির কুপ্রভাব আছে৷ সরকার এখন ফর দি করপোরেট, বাই দি করপোরেট হয়ে গেছে। করপোরেট পলিসি তৈরি করছে। সরকারের বেসরকারিকরণ হয়ে গেছে। আমরা এই অর্থনৈতিক সংষ্কারের বিরুদ্ধে।"

এক পা এগিয়ে সুখেন্দুশেখর অভিযোগের সুরে আরও বলেন, "এসব বিক্রি করে দলের ফান্ড বাড়াচ্ছে। এই সব থেকে উৎকোচ যাচ্ছে দলের কাছেও।" এর পরেই তিনি জানান সরকারি সম্পত্তি বিক্রিকে সামনে রেখে আগামী দিনে বিরোধীরা একজোট হয়ে পথে নামতে পারে, কথাবার্তা শুরুও হয়ে গিয়েছে এই মর্মে।

প্রসঙ্গত কংগ্রেসের তরফে ইতিমধ্যেই কেন্দ্রের এই নীতির বিরোধিতা করা হয়েছে। কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজওয়ালা বলেছেন, "এক সময়ে দেশের সম্পদ তৈরি হতো। আর আজ দেশ বিক্রির পরিকল্পনা তৈরি হচ্ছে। মোদি সরকার থাকলে সবই হতে পারে। বিজেপি থাকলে সরকারি ও সম্পত্তি রক্ষা পাবে না।"

Published by:Arka Deb
First published: