corona virus btn
corona virus btn
Loading

বউবাজার বিপর্যয়ের পর মহাকরণ মেট্রো স্টেশন তৈরিতে বিশেষ সাবধানতা

বউবাজার বিপর্যয়ের পর মহাকরণ মেট্রো স্টেশন তৈরিতে বিশেষ সাবধানতা

প্রতিটি বাড়ির স্বাস্থ্য সমীক্ষা আগেই করা হয়েছে। গ্রাউটিং করা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। মেট্রোরেলের ভূমিকায় খুশি ব্যবসায়ীরা।

  • Share this:

#কলকাতা: দোকানের বয়স ১৮৫ বছর। দোকানের মধ্যে ঢুকলেই ইতিহাস এসে আপনার সঙ্গে কথা বলবে নিজে থেকেই। চোখ ঘোরালেই নজরে পড়বে নানান বন্দুকের  সম্ভার। রয়েছে টোটা-বারুদও। সূর্য আলো এসে পড়তেই চকচক করে ওঠে তলোয়ার। ঠিকই ধরেছেন, ডালহৌসিতে এন সি দাঁ'র দোকানের কথা হচ্ছে। এন সি দাঁ'র দোকানের মতই এই চত্বরে গায়ে গায়ে দাঁড়িয়ে আছে একাধিক পুরনো দোকান, বাড়ি। রয়েছে স্টিফেন হাউস। এক সময় যেখানে ছিল বিবাদী বাগ মিনিবাস স্ট্যান্ড। এখন সেখানেই গড়ে উঠছে মহাকরণ মেট্রো স্টেশন। বউবাজার বিপর্যয় ঘটার পরে, মহাকরণে এই মেট্রো স্টেশন তৈরির জন্য সাবধানী ভূমিকা পালন করছে প্রস্তুতকারী সংস্থা।

মহাকরণ মেট্রো স্টেশনের ঢোকা আর বেরোনোর জন্য দুটি গেট তৈরি করা হচ্ছে স্টিফেন হাউসের সামনে ফুটপাতের ওপর। গত এক সপ্তাহ ধরে সেখানেই ক্রমাগত গ্রাউটিং করার কাজ চলছে । জল, সিমেন্ট আর হাডোনেট নামে এক ধরনের রাসায়নিকের সংমিশ্রণ তৈরি করে তা পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে মাটির নীচে। মাটি থেকে প্রায় ৩ মিটার নীচে পাঠানো হচ্ছে এই সংমিশ্রণ। কিন্তু কেন এই ব্যবস্থা নিতে হচ্ছে? KMRCL  সূত্রে খবর, এখানেও মাটির নীচে রয়েছে জলস্তর বা আকুইফার। ফলে স্টেশন তৈরির কাজের সময় যখন মেশিনের কম্পন হচ্ছে তাতে ক্ষতি হতে পারে এই পুরনো বাড়িগুলোর। কারণ এই সমস্ত এলাকায় যে সমস্ত বাড়িগুলি রয়েছে তার গাঁথনি আলগা হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এখানে বেশিরভাগ বাড়ি বহু পুরনো হওয়ায় রয়েছে ইটের গাঁথনি। ফলে বাড়ির নীচে মাটি আলগা হয়ে সরে গেলেই কাঠামো ভেঙে পড়ার সম্ভাবনা থাকে। ঠিক যেমনটা হয়েছিল বউবাজারের ক্ষেত্রে। তাই এই সচেতন হয়েই চলছে মেট্রোর স্টেশন তৈরির কাজ মাটির নীচে।

ডালহৌসিতে দেখা গেল বিভিন্ন বাড়িতে ছোট ছোট গর্ত খুঁড়ে তার মধ্যে পাঠানো হচ্ছে রাসায়নিক সংমিশ্রণ। এছাড়া বিভিন্ন বাড়িতে বসানো হয়েছে টিল্ট মিটার। যার মাধ্যমে বোঝা যাবে বাড়ি ডান কিংবা বাঁদিকে হেলে যাচ্ছে কিনা। বসানো হয়েছে সেটলমেন্ট মিটার, যার মাধ্যমে বোঝা যাবে বাড়ি মাটিতে বসে যাচ্ছে কিনা। এছাড়া বিভিন্ন দেওয়ালে বসানো হয়েছে ক্র‍্যাক মিটার। যার মাধ্যমে দেওয়ালে কতটা ক্র‍্যাক হয়েছে তা বোঝা যাবে। কে এম আর সি এল সূত্রে খবর, ৮০ সেন্টিমিটার পুরু, ২.৫ মিটার প্রশস্ত ও ১৭ মিটার লম্বা একটি কংক্রিটের দেওয়াল মাটির নীচে তৈরি করা হচ্ছে। এভাবেই যাতে বউবাজারের সেই ভয়াবহ স্মৃতি ফিরে না আসে, তার জন্য ধীরে ধীরে পা ফেলে এগোচ্ছে মেট্রো।

 ABIR GHOSHAL

Published by: Elina Datta
First published: February 6, 2020, 3:55 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर