জিটিএ ও বিমল গুরুঙের দিন শেষ, পাহাড়ে এবার নয়া বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন বিনয় তামাং

জিটিএ ও বিমল গুরুঙের দিন শেষ, পাহাড়ে এবার নয়া বোর্ডের চেয়ারম্যান হলেন বিনয় তামাং
West Bengal Chief Minister Mamata Banerjee (L) and GJM chief Bimal Gurung (R).

পাহাড়ে একইসঙ্গে জিটিএ ও বিমল গুরুঙের দিন শেষ। জিটিএ-র বদলে পাহাড়ে বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর তৈরি করল রাজ্য।

  • Share this:

#দার্জিলিং: পাহাড়ে একইসঙ্গে জিটিএ ও বিমল গুরুঙের দিন শেষ। জিটিএ-র বদলে পাহাড়ে বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর তৈরি করল রাজ্য। পাহাড়ের নেতা হিসাবে সরকারিভাবে স্বীকৃতি পেয়ে গেলেন বিনয় তামাঙ, অনীত থাপাও। নতুন বোর্ডের চেয়ারম্যান হচ্ছেন বিনয়। ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব অনীত। গতি পাহাড়ের সবদলের প্রতিনিধিদেরই নিয়ে তৈরি হয়েছে নতুন বোর্ড।

পাহাড়ে নিয়ে কৌশলী পদক্ষেপ করল রাজ্য প্রশাসন। জিটিএ-র পরিবর্তে প্রশাসনিক কাজ চালাতে তৈরি হল বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর। জিটিএ-র মতোই পাহাড়ের প্রশাসন ও উন্নয়নের কাজে তদারকি করবে নতুন বোর্ড। ৯ জনের বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটরে চেয়ারম্যানের দায়িত্বে বিনয় তামাঙ।

২৯ অগস্টের পরই পাহাড়়ের নতুন নেতা হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন বিনয় তামাং। এবার তাতে প্রশাসনিক শিলমোহর পড়ল। বোর্ডে পাহাড়ের সব দলের প্রতিনিধিত্ব রেখে নতুন সম্ভাবনাও তৈরি করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

বেশ কয়েকটি বিষয় নিশ্চিত করতেই এই পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

জিটিএ ভেঙে যাওয়ায় স্থানীয় প্রশাসনিক সংস্থা তৈরির প্রয়োজন ছিল

বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটরের মাধ্যমেই সেই কাজ হবে

জিটিএ-র সদস্য হলেও সই কার ক্ষমতা ছিল না বিনয়, অনীতদের

এই বোর্ডের মাধ্যমে দুজনের হাতে সেই ক্ষমতা এল

বোর্ড তৈরি না হলেও উন্নয়নের কাজ থমকে যেত

সেই সমস্যা এড়াতেই সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের

এতে পাহাড়ে আরও কোণঠাসা হয়ে পড়ল গুরুং বাহিনী

নতুন বোর্ডে পাহাড়ের সব দলের প্রতিনিধিত্ব থাকছে। ঐক্যমতের ভিত্তিতেই কাজ করবেন বোর্ড সদস্যরা। জিটিএ-র বদলে নতুন বোর্ড তৈরির ঘোষণা করে একই সাথে অনেক লক্ষ্যপূরণ করতে চলেছে রাজ্য সরকার।

পাহাড়ের পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক করতে উদ্যোগী হবে নয়া বোর্ড

থেমে থাকা উন্নয়নের কাজ শুরু হবে

ক্ষমতা হারিয়ে আরও চাপে পড়ার সম্ভাবনা বিমল গুরুংদের

জিটিএ-র পরিবর্তে প্রশাসনিক বডি তৈরি হওয়ায় আইনি জটিলতা কাটবে

সবমিলিয়ে নতুন বোর্ড তৈরির ঘোষণায় পাহাড়ে শেষ জটিলতাটুকুও কাটানোর পথ থুলে দিল রাজ্য সরকার।

First published: 09:47:07 AM Sep 21, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर