Home /News /kolkata /
Anubrata Mondal: হঠাৎ কমে গেল বালির দাম, অনুব্রতর গ্রেফতারির পরই কেন সস্তা! জোর চর্চা শুরু

Anubrata Mondal: হঠাৎ কমে গেল বালির দাম, অনুব্রতর গ্রেফতারির পরই কেন সস্তা! জোর চর্চা শুরু

সস্তা হল বালির দাম৷

সস্তা হল বালির দাম৷

ট্রাক চালকরা বলছেন, গত কয়েকদিনে এই তোলাবাজির অত্যাচার অনেকটাই কমেছে৷

  • Share this:

#কলকাতা:  যাঁরা বাড়ি তৈরি বা নির্মাণ কাজ করছেন, তাঁদের জন্য সুখবর৷ এক ধাক্কায় অনেকটাই কমে গেল বালির দাম৷ বীরভূম, বর্ধমানে যে বালিঘাট গুলি রয়েছে, সেখানে বালি তোলার খরচ কমার ফলে ট্রাক পিছু বালির দাম কমেছে বলে জানা যাচ্ছে৷ ঘটনাচক্রে অনুব্রত মণ্ডল গ্রেফতার হওয়ার পরেই এই দাম কমেছে৷

বীরভূম, পূর্ব বর্ধমানের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে রয়েছে অসংখ্য বালি ঘাট৷ অজয়, কাঁসাই, কংসাবতীর মতো নদ- নদীগুলির বুক থেকেই বালি তোলা হয়৷ সূত্রের খবর, এতদিন এই সমস্ত বালিঘাটে ২৫০ স্কয়ার ফুট বালি তোলার খরচ পড়ত ১০,৫০০ টাকা মতো৷ অভিযোগ, এই বালি ঘাটগুলি থেকে নিয়মিত তোলা আদায় করা হয়৷ সেই বাবদ প্রতি ২৫০ স্কয়ার ফুট বালি বাবদ আরও ২০০০ টাকা করে নিয়ে নিতেন বালিঘাটগুলির মালিকরা৷ এর সঙ্গে বর্ধমান, বীরভূম থেকে কলকাতা আসার পথে লরিগুলি থেকে নানা অজুহাতে টাকা আদায় করা হত বলে অভিযোগ৷

আরও পড়ুন: ধাক্কাধাক্কিতে খুলে গেল জুতো, অনুব্রত তবু 'স্পিকটি নট'! ফিরল সেই কড়া চাউনি

ট্রাক চালকরা বলছেন, গত কয়েকদিনে এই তোলাবাজির অত্যাচার অনেকটাই কমেছে৷ পুলিশের বিরুদ্ধেও এই ধরনের অভিযোগ তুলছেন না ট্রাক চালক এবং মালিকরা৷ বালিঘাট গুলিতেও ২৫০ স্কয়ার ফুট বালির দাম পড়ছে ৮০০০ টাকা৷ আগে যা পড়ত সবমিলিয়ে প্রায় সাড়ে ১২ হাজার টাকা৷ এক সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে পরিবহণ খরচ৷ ফলে আগে যেখানে কলকাতায় ২৫০ স্কয়ার ফুট বালির দাম পড়ত ২৬ থেকে ২৭ হাজার টাকা, এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজারের আশেপাশে৷

আরও পড়ুন: এবার অনুব্রতর মেয়েকে জেরা, দু' একদিনের মধ্যেই বোলপুরের বাড়িতে যেতে পারে সিবিআই

বীরভূম জুড়ে অনুব্রত মণ্ডল এবং তাঁর অনুগামীদের দাপটের কথা কারও অজানা নয়৷ নিন্দুকরা বলেন, অনুব্রতর ইশারা ছাড়া বীরভূমে গাছের পাতাও নড়ে না৷ তাই অনুব্রতকে সিবিআই গ্রেফতার করার পর পরই বালির দাম সস্তা হওয়া নিতান্ত কাকতালীয় না কি দু'টি বিষয়ের মধ্যে যোগ রয়েছে, তা নিয়ে জোর চর্চা শুরু হয়েছে ব্যবসায়ী এবং লরি মালিক ও চালকদের মধ্যে৷

এতদিন বালি বহনকারী লরিগুলিকে রীতিমতো মান্থলি কার্ড রাখতে হত৷ যাতায়াতের পথে লরিগুলি ঠিক ভাবে তোলার টাকা মেটাচ্ছে কি না, এই কার্ডে রীতিমতো তার হিসেব রাখা হত৷ সেই উপদ্রবও এখন কমেছে বলে দাবি লরি চালকদের৷ সবমিলেয়ে বালির ক্রেতারা যেমন দাম কমায় খুশি, েসরকমই জুলুমবাজি কমায় খুশি লরি মালিক এবং চালকরাও৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Anubrata Mondal, CBI

পরবর্তী খবর