• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • 'মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের টেস্ট হবে না, সরাসরি বোর্ডের পরীক্ষা দিতে পারবে পড়ুয়ারা', ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

'মাধ্যমিক-উচ্চমাধ্যমিকের টেস্ট হবে না, সরাসরি বোর্ডের পরীক্ষা দিতে পারবে পড়ুয়ারা', ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

টেস্ট পরীক্ষা কবে হবে তা নিয়ে বুধবার মুশকিল আসান করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং।

  • Share this:

#কলকাতা: টেস্ট পরীক্ষা কবে হবে তা নিয়ে বুধবার মুশকিল আসান করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বয়ং। এদিন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক ছাত্র-ছাত্রীদের টেস্ট পরীক্ষা নিয়ে বড় ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, "২০২১ সালে যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবেন তাদের টেস্ট পরীক্ষা দিতে হবে না। সব ছাত্র ছাত্রী মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দিতে পারবেন।" মূলত মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা কতটা সিলেবাসের উপর হবে তা এখনও চূড়ান্ত করতে পারিনি স্কুল শিক্ষা দফতর। সে ক্ষেত্রে সিলেবাস চূড়ান্ত করতে না পারলে টেস্ট পরীক্ষায় কার্যত নেওয়া যাবে না। আর তাই টেস্ট পরীক্ষা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেই মনে করছে শিক্ষকদের একাংশ।

এদিন নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা কবে নেওয়া হবে তা প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, "আগে স্কুল খুলুক তারপর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা নিয়ে ভাবা যাবে। স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে তারপরেই প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত নিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।" মুখ্যমন্ত্রী এই দিনের কথাতে কার্যত জল্পনা হতে শুরু করেছে তাহলে কি ২০২১ এর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার নির্দিষ্ট সময় হচ্ছে না? ইতিমধ্যেই মধ্যশিক্ষা পর্ষদ এবং উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের তর পেমে জুন মাসে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তাব জমা পড়েছে। যদিও মাধ্যমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার আগে ছাত্র-ছাত্রীদের টেস্ট পরীক্ষা নিতে হয়। সেই টেস্ট পরীক্ষা অবশ্য পরীক্ষার সাধারণত দুই থেকে তিন মাস আগেই নিয়ে নেয় বিভিন্ন স্কুল। বলতো টেস্ট পরীক্ষা না নেওয়ার ফলে ছাত্রছাত্রীদের কাছে এবার সরাসরি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ।

স্কুল শিক্ষা দফতরের আধিকারিকদের একাংশের মতে এ ক্ষেত্রে টেস্ট পরীক্ষা না নেওয়ার ফলে বাড়তি সুবিধা পাবে স্কুলগুলি। কারণ স্কুল যদি খুলে দেওয়া যায় তাহলে সময় পাওয়া যাবে ছাত্র-ছাত্রীদের ক্লাস নেওয়ার। মাধ্যমিকে প্রথম সামেটিভ-র ক্লাস নেওয়া সম্ভব হলেও উচ্চমাধ্যমিকের এখনও পর্যন্ত পড়ুয়াদের ক্লাসরুমে ক্লাস নেওয়া যায়নি। সেক্ষেত্রে ক্লাস চালু হয়ে গেলে দ্বিতীয় সামেটিভ এর ক্লাস করিয়ে নেওয়া সম্ভব অন্যদিকে উচ্চমাধ্যমিকের কিছুটা ক্লাস করিয়ে নেওয়া সম্ভব। এরই জেরে ছাত্র-ছাত্রীদের খানিকটা সিলেবাস শেষ করে এ পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হতে পারে। তাই আপাতত স্কুল না খুললে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা নেওয়ার ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসতে পারছেনা রাজ্য স্কুল শিক্ষা দফতর। যদিও মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ কে ইতিমধ্যেই যাবতীয় প্রস্তুতি সেরে রাখতে বলা হয়েছে স্কুল শিক্ষা দফতরের তরফে।

SOMRAJ BANDOPADHYAY

Published by:Shubhagata Dey
First published: