• HOME
  • »
  • NEWS
  • »
  • kolkata
  • »
  • LIVE BENGAL GLOBAL BUSINESS SUMMIT IN NEW TOWN MAIN AIM IS TO GET MORE INVESTMENT FOR THE STATE
liveLIVE NOW

LIVE: রাজ্যে আরও বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি মুকেশ আম্বানির, ইকমার্সেও পা রাখার ঘোষণা রিলায়েন্স কর্তার

  • News18 Bangla
  • | February 07, 2019, 12:51 IST
    facebookTwitterLinkedin
    LAST UPDATED 3 YEARS AGO

    AUTO-REFRESH

    15:9 (IST)

    বাংলা সবার জন্য ৷ বাংলা এটা দেখতে ভালবাসে, যে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে ৷ শিল্পের দিক থেকে নিশ্চিত করতে পারি, অনেকে দেশ ছেড়ে চলে গেছেন, তাঁরা ফিরে আসুন, সরকার বদলালে আমরা নতুন শিল্পনীতি করব ৷  আপনারা ফিরে আসুন, আমাদের দেশে বিনিয়োগ করুন, যাতে আগামী কুড়ি বছরে দেশ এগিয়ে যেতে পারে ৷ প্রত্যেক রাজ্য এগিয়ে চলুক, আমরা প্রত্যেকের খুশি দেখতে চাই ৷ আপনারা আলোচনা করুন, বার্তা দিন, কথা কম বলুন, কাজ বেশি করুন : মমতা

    15:9 (IST)

    অনেক মউ আগামিকাল সই হবে ৷ ১০ লক্ষ কোটির বেশি বিনিয়োগের প্রস্তাব এসেছে ৷ মনে করি আরও প্রস্তাব আসবে ৷ কুলপি বন্দর সাত বছর ধরে আটকে, তা ঘোষণা হবে ৷ আমরা আপনাদের স্বপ্নের কথা শুনব ৷ এটা আপনাদেরই ঘর ৷ আমদের এখানে আইটি হাব সিলিকন ভ্যালির মতোই ৷ বাংলায় সমুদ্র, জঙ্গল, পাহাড় ৷ পর্যটনের দিক থেকে সবকিছু আছে : মমতা

    14:13 (IST)

    দশ বছর আগে, লুফতহনসার সরাসরি বিমান ছিল, এখন দুবাই হয়ে যেতে হয়, তা আবার চালু করুন ৷ জার্মানিকে অটোমোবাইল শিল্প করতে অনুরোধ ৷ ইতালিয়ান শিল্পপতিদের আবেদন ৷ পোল্যান্ডের শিল্পপতিদের আবেদন ৷ মার্কিন শিল্পপতিদের আবেদন ৷ আরও বিনিয়োগ করুন ৷ আপনারা বাংলায় বিনিয়োগ করলে অনেক দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন ৷ হিলারি ক্লিন্টন অনেকবার এদেশে এসেছেন, কলকাতায় এসেছেন ৷ চিন, জাপান ও কোরিয়া থেকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন :মমতা

    14:13 (IST)

    দশ বছর আগে, লুফতহনসার সরাসরি বিমান ছিল, এখন দুবাই হয়ে যেতে হয়, তা আবার চালু করুন ৷ জার্মানিকে অটোমোবাইল শিল্প করতে অনুরোধ ৷ ইতালিয়ান শিল্পপতিদের আবেদন ৷ পোল্যান্ডের শিল্পপতিদের আবেদন ৷ মার্কিন শিল্পপতিদের আবেদন ৷ আরও বিনিয়োগ করুন ৷ আপনারা বাংলায় বিনিয়োগ করলে অনেক দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন ৷ হিলারি ক্লিন্টন অনেকবার এদেশে এসেছেন, কলকাতায় এসেছেন ৷ চিন, জাপান ও কোরিয়া থেকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন :মমতা

    14:12 (IST)

    পঞ্চায়েত ও মিউনিসিপ্যালিটিতে ৫০ শতাংশ সংরক্ষণ ৷ আমরা সংখ্যালঘুদের শক্তিকরণ করেছি ৷ সংখ্যালঘুদের স্কলারশিপ দেওয়াতে এক নম্বর ৷ পিছিয়ে পড়া জাতি, উপজাতিদের গুরুত্ব ৷ সামাজিক ক্ষেত্রে আমরা দলিতদের সবরকম সুবিধা দিই৷ ৯০ শতাংশ মানুষ সরকারি সুবিধা পান ৷ কৃষক, দলিতরা সুবিধা পেলে শিল্পও ঠিকঠাক বেঁচে থাকবে ৷ আপনারা বাংলায় আসলে দেখবেন সকলে আপনাদের ভালবাসবে, সমর্থন করবে ৷ বাংলাই সেরা ঠিকানা : মমতা

    14:11 (IST)

    ৪২ মাল্টিসুপার হাসপাতাল ৷ আমরা কীভাবে এই সংস্কার করলাম? প্রায় বিনামূল্যে সকলের জন্য চাল ৷ সরকারি হাসপাতালে পুরো বিনামূল্যে স্বাস্থ্য পরিষেবা ৷ শিশুকন্যাদের শক্তিকরণ ৷ কন্যাশ্রীর জন্য আন্তর্জাতিক পুরস্কার : মমতা

    14:11 (IST)

    বাংলাই এখন এনার্জি ৷ বিদ্যুৎ সংকট নেই ৷ রেল ও সড়ক যোগাযোগ দুর্দান্ত ৷ দ্রুতগতির এয়ারপোর্ট, দেশে একমাত্র গ্রিনফিল্ড এয়ারপোর্ট ৷ বড় বাজার
    নানা কৃষি পণ্যের বড় উৎপাদক ৷ সাত বছরে আমরা বদলে দিয়েছি: মমতা

    14:10 (IST)

    বাংলা একমাত্র জায়গা যেখানে বৈচিত্রেই ঐক্য রয়েছে, কোনও ভেদাভেদ নেই ৷ আমরা সকলের পাশে দাঁড়াই ৷ বেঙ্গল নর্থইস্টের গেটওয়ে ৷ নেপাল, ভুটান, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক-তাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, দুবাই ও বাংলাদেশের গেটওয়ে ৷ বাংলায় বিনিয়োগ করলে পূর্ব ও উত্তর-পূর্ব ভারত ও বিদেশ কভার করা যাবে ৷ নাসা থেকে গ্রাউন্ড লেভেল, সব জায়গা ছুঁয়ে যাবে ৷ আমাদের যুব সম্প্রদায়ের প্রতিভা ৷ পৃথিবীর নানা দেশের বিভিন্ন ঐতিহ্যপূর্ণ বিশ্ববিদ্যালয়ে বাঙালিরা ৷ এটা হিউম্যান ক্যাপিটাল : মমতা

    14:9 (IST)
    বাংলাই হল গন্তব্য কৃষক ও যুবকদের জন্য, বললেন মমতা ৷ 

    14:9 (IST)

    দেশে ২ কোটি মানুষের চাকরি গিয়েছে, সেখানে রাজ্যে কর্মসংস্থান হয়েছে ৷ কৃষিক্ষেত্র অনেক বড় হয়েছে ৷ রাজ্যে পরিকাঠামো দারুণ ৷ এ জন্যই আপনারা এখানে আসবেন ৷ বাংলা এগিয়ে যাচ্ছে, তা প্রমাণ করেছে : মমতা

    রাজ্যে আরও বিনিয়োগ টানার লক্ষ্যে আজ থেকে নিউটাউনে শুরু হচ্ছে দু'দিনের শিল্প সম্মেলন। ইওরোপ, এশিয়া, লাতিন আমেরিকা-সহ বিভিন্ন দেশের প্রায় চার হাজার প্রতিনিধি থাকবেন সম্মেলনে। যোগ দেবেন রাজ্যের তাবড় শিল্পপতিরাও।

    নিউটাউনে দুদিনের শিল্প সম্মেলন অংশ নিচ্ছেন ছত্রিশটি দেশের প্রতিনিধিরা। সেজে উঠেছে বিশ্ববঙ্গ কনভেনশন সেন্টার। মূল মঞ্চে বিনিয়োগ প্রস্তাব দেবেন বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা। সেই প্রস্তাব নিয়ে রাজ্য সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মুখোমুখি আলোচনা করতে তৈরি হয়েছে গ্যালারি। একেকটি দেশের জন্য একেকটি গ্যালারি। বিভিন্ন বিনিয়োগ প্রস্তাব কিভাবে বাস্তবে রূপায়ন করা যায়, সেই নিয়েই ওয়ান টু ওয়ান আলোচনা হবে এই গ্যালারিতে।