রামকৃষ্ণদেবের মৃত্যুর অমূল্য নথিতে কী লেখা হয়েছিল? এবার তা আসবে প্রকাশ্যে

যেখানে মৃত্যুর কারণ হিসেবে লেখা হয়েছিল গলায় আলসার। সেই নথিই এবার প্রকাশ্যে আসতে চলেছে।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jun 28, 2019 09:16 AM IST
রামকৃষ্ণদেবের মৃত্যুর অমূল্য নথিতে কী লেখা হয়েছিল? এবার তা আসবে প্রকাশ্যে
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jun 28, 2019 09:16 AM IST

#কলকাতা: রামকৃষ্ণদেবের মৃত্যুর নথি। সেই আমলে মৃত্যুর তথ্য নথিভুক্ত করা হত থানায়। সেই মতো রামকৃষ্ণদেবের মৃত্যুর তথ্য নথিভুক্ত করা হয়েছিল কাশীপুর থানায়। যেখানে মৃত্যুর কারণ হিসেবে লেখা হয়েছিল গলায় আলসার। সেই নথিই এবার প্রকাশ্যে আসতে চলেছে।

সালটা ছিল ১৮৮৬। ১৮৮৬ সালের ১৫ অগাস্ট মাঝরাতে মারা যান রামকৃষ্ণ ৷ তখন তাঁর বয়স ৫২ বছর ৷ কলকাতায় ৪৯ নম্বর কাশীপুর রোডে কাশিপুর উদ্যানবাটিতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তখন দেশ জুড়েই মৃত্যুর তথ্য নথিভুক্ত করার নিয়মটা ছিল অন্যরকম।

এখন শ্মশানেই মৃত্যুর তথ্য নথিভুক্ত করতে হয়। কিন্তু আগে তা করতে হত, স্থানীয় থানায়। সেই মতো রামকৃষ্ণদেবের মৃত্যুর তথ্য নথিভুক্ত করা হয়েছিল কাশীপুর থানায়। যা পরে সংগ্রহ করে কলকাতা পুরসভা।

সম্প্রতি, বেলুড় মঠের সংগ্রহশালায় রাখার জন্য রামকৃষ্ণের ডেথ রেজিস্টার চায় রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন। কিন্তু, ওই রেজিস্টারে আরও অনেকের মৃত্যুর তথ্য নথিভুক্ত রয়েছে। তাই পুরসভা রামকৃষ্ণদেবের ডেথ রেজিস্টারের রেপ্লিকা তৈরি করেছে। যা শনিবার বেলুড় মঠ কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেবেন ডেপুটি মেয়র অতীন ঘোষ।

রামকৃষ্ণের ডেথ রেজিস্টারে মৃত্যুর কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছিল গলায় আলসার। দাহ করার সময় দক্ষিণের দিকে মাথা করে রাখা ছিল...আর যাতে কাউকে এ ভাবে দাহ না করা হয় তার জন্য ভক্তিফলক করা হয়েছিল ৷ কলকাতা পুরসভার ইতিহাসে এই প্রথম এভাবে ডেথ রেজিস্টারের রেপ্লিকা তৈরি করে কারও হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে।

First published: 09:14:12 AM Jun 28, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर