করোনা সংক্রমণ রুখতে কলকাতার লাইফলাইন 'লক ডাউন', নোটিফিকেশন জারি

করোনা সংক্রমণ রুখতে কলকাতার লাইফলাইন 'লক ডাউন', নোটিফিকেশন জারি
ফাইল ছবি

কমিউনিটি স্প্রেডিং বন্ধ হোক, চাইছে কলকাতা মেট্রো।

  • Share this:

#কলকাতাঃ কলকাতায় দুটো অংশে মেট্রো চলে। একটি যায় নোয়াপাড়া থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত। অন্যটি, সল্টলেক সেক্টর ফাইভ থেকে সল্টলেক স্টেডিয়াম। এই দুটি অংশেই আগামিকাল থেকে মেট্রো চলবে না। রেল মন্ত্রক সূত্রে খবর, তারা চাইছে কমিউনিটি স্প্রেডিং বন্ধ করা হোক। ইতিমধ্যেই এই রাজ্যের তরফ থেকে মুখ্যসচিব রেল মন্ত্রকের কাছে চিঠি দিয়ে আবেদন জানিয়েছিলেন, ভিন রাজ্য থেকে আসা ট্রেন চলাচল যেন বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরে রবিবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত কোনও যাত্রীবাহী ট্রেন চালানো হবে না। পাশাপাশি, আজকের পর আগামী ৩১ তারিখ অবধি কোনও মেট্রো চলবে না।

কলকাতা মেট্রো ভারতীয় রেল কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত। তাই রেল মন্ত্রক নোটিফিকেশন জারি করে জানিয়ে দিয়েছে, মেট্রো চালানো হবে না। করোনা ভাইরাসের জন্য গত কয়েক দিন ধরেই ভীষণভাবে কমতে শুরু করেছিল মেট্রোর যাত্রীসংখ্যা। সেইজন্য  রবিবার কমানো হয়েছিল মেট্রোর সংখ্যা। এবার পুরোপুরি বন্ধ করা হল মেট্রো চলাচল। চলবে না ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রো। মেট্রো আধিকারিকদের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, গত কয়েকদিন ধরেই রেক স্যানিটাইজেশনের কাজ চলছে। যাত্রী সচেতনতার কাজ করেছেন তাঁরা। কিন্তু যে সমস্ত যাত্রী যাতায়াত করেন তাঁদের  প্রত্যেকের সুরক্ষার বিষয় হাতে নেই মেট্রো আধিকারিকদের। তাই পরিষেবা বন্ধ থাকলে আদপে যাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিধি মেনে চলা সম্ভব হবে বলে মনে করছে মেট্রো।

চিকিৎসকদের তরফ থেকে আশঙ্কা প্রকাশ করা হচ্ছিল, একসঙ্গে অনেক মানুষ থাকলে তা থেকে জীবাণু ছড়ানোর সম্ভাবনা অনেকাংশে বেড়ে যায়। যদি রেলের মতো গণপরিবহণ ব্যবস্থা পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়, তাহলে আর জীবাণু ছড়ানোর ভয় অনেকটাই কমে যাবে। তাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রবিবার 'জনতা কার্ফু'র দিন কলকাতায় চলেছে মাত্র ৫৪টি রেক। যদিও তাতে যাত্রী হয়নি বললেই চলে। তবে সোমবার থেকে টানা মেট্রো বন্ধ থাকলে কলকাতায় যারা জরুরি কারণে মেট্রো সফর করেন তাদের কি হবে?

প্রতিদিন যাতায়াতকারী প্রমিত চৌধুরী বেলন, "ভয়ে তো ছিলাম। বাধ্য হয়ে মেট্রোর সওয়ারি হতে হচ্ছিল। তবে স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা মনে রেখে যেভাবে পরিষেবা বন্ধ হচ্ছে তাতে আমার মনে হয় ভালই হবে। তবে যারা জরুরি বা আপতকালীন কাজের সাথে যুক্ত তাদের একটা বড় অংশ মেট্রোয় যাতায়াত করেন। বেজায় চিন্তায় পড়েছেন তাঁরা। সোমবার থেকে কী হবে?  তবে মেট্রোর একটাই স্লোগান 'আগে নিজে সুস্থ থাকুন, তারপরে বাকিটা  ভাবা যাবে'।

ABIR GHOSHAL

First published: March 22, 2020, 3:32 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर