• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Kolkata Metro| Bangla news: ইতিহাসের সমাপ্তি! গীতা পাঠ সহযোগে নন-এসি মেট্রোর বিদায় চিরকালের মতো

Kolkata Metro| Bangla news: ইতিহাসের সমাপ্তি! গীতা পাঠ সহযোগে নন-এসি মেট্রোর বিদায় চিরকালের মতো

Kolkata Metro| Bangla news: ইতিহাসের সমাপ্তি! গীতা পাঠ সহযোগে নন-এসি মেট্রোর বিদায় চিরকালের মতো

Kolkata Metro| Bangla news: ইতিহাসের সমাপ্তি! গীতা পাঠ সহযোগে নন-এসি মেট্রোর বিদায় চিরকালের মতো

Kolkata Metro| Bangla news: যাত্রী ছাড়াই টালিগঞ্জ থেকে নোয়াপাড়া কারশেডে অবসর জীবন পালন করতে যাবে মেট্রো। 

  • Share this:

#কলকাতা: আগামীকাল জন্মদিনেই অবসরে যাচ্ছে 'নন এসি মেট্রো রেক' (Non AC Metro)। সকালেই হবে গীতা পাঠ। তার পরে পুরনো কর্মীরা অভিজ্ঞতা বলবেন। দেখানো হবে তথ্যচিত্র। বিকেল অবধি যাত্রীরা দেখতে পাবেন এই রেক। তার পরে অবসর ঘোষণা করা হবে। আগামীকাল ৩৭ বছরের জন্মদিন কলকাতা মেট্রোর (Kolkata Metro)।

শুরু হয়েছিল ১৯৮৪ সালের ২৪ অক্টোবর। সেটাও ছিল এক উৎসবের মুহূর্ত। আর সেই ইতিহাস শেষ হল আরও এক উৎসবের মরসুমেই৷। আপাতত রোজনামচা আর যাত্রী বহনের সব রেকর্ড ছেড়ে ইতিহাসের পাতায় কলকাতার নন এসি মেট্রো রেক ।কখনও আকাশি-নীল, কখনও হলুদ-লাল, কখনও আবার সাদা-কালো রঙের মেট্রোরেল। যা ছিলে দেশের মধ্যে প্রথম ভূগর্ভস্থ মেট্রো।

প্রথম দফায় চেন্নাই থেকে কলকাতায় এসেছিল ৯টি নন এসি রেক। নব্বইয়ের মাঝামাঝি এসে পৌঁছয় আরও ৯টি নন এসি রেক। সেই চেন্নাই থেকেই। তারাই ২০১২ সাল অবধি প্রতিদিন কয়েক লক্ষ যাত্রী বহন করত দমদম থেকে কবি সুভাষ অবধি পর্যন্ত। অবশ্য ২০১২ সালে যাত্রী চাহিদা মেনেই ধীরে ধীরে কলকাতার লাইফ লাইনে প্রবেশ ঘটে এসি মেট্রো রেকের। আর তাদের পরিষেবায় ধীরে ধীরে নোয়াপাড়া কারশেডের সাইড লাইনে চলে যায় নন এসি মেট্রো রেক।

নিয়মানুযায়ী একটি মেট্রো রেকের কোডাল লাইফ হয় ২৫ বছর। তবে ঘন ঘন মেট্রো চালাতে গিয়ে ২৫ বছর অনেকটা লম্বা ইনিংস হয়ে যায়। ফলে ২০০৯ থেকে ২০১২ সবটাই ছিল অবসর নেওয়ার সঠিক সময়। কিন্তু যাত্রী সংখ্যার চাপে পড়ে মাঝে মধ্যেই সুড়ঙ্গ জুড়ে দাপিয়ে বেড়িয়েছে নন এসি মেট্রো রেক। এখন অবশ্য সবটাই অতীত। আগামী মাসে ফেয়ারওয়েল দেওয়া হবে নন এসি মেট্রো রেককে। তবে চাকরি থেকে অবসর নিলেও, ছুটি মিলছে না নন এসি মেট্রো রেকের। কারণ মাঝে মধ্যেই এমারজেন্সি ডিউটিতে বেরোতে হবে কলকাতার প্রথম মেট্রোকে।

রাতের বেলা লাইন পরীক্ষা, স্টাফ স্পেশাল, সিগন্যাল চেকিং, নয়া লাইনে দৌড়ানো প্রথম বার সবটাই সারবে সেই নন এসি মেট্রো রেক। তবে বয়সের ভারে অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছে। নড়ন চড়ন করার ক্ষমতা আর নেই তাদের। আর তাদেরকেই অযোগ্য বলে ঘোষণা করা হবে খাতায় কলমে। তারপর সেগুলি কেটে ফেলা হবে। শখ করে কেউ কেউ অবশ্য কামরা রেখেও দিতে পারেন। আপাতত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মেট্রোর ২২টি এসি রেক দক্ষিণেশ্বর থেকে কবি সুভাষ অবধি দৌড়বে। ধাপে ধাপে বাড়ানো হবে এসি রেকের সংখ্যাও। কলকাতায় প্রথম মেট্রো চালু হলেও, যে সব শহরে মেট্রো পরে চালু হয় তারা এসি রেক চালাত। একমাত্র কলকাতায় চলত নন এসি মেট্রো।

আরও পড়ুন- গড়িয়াহাট জোড়া খুনে ৩ জন গ্রেফতার হলেও এখনও রয়েছে ধোঁয়াসা! উঠছে বেশ কিছু প্রশ্ন

মেয়াদ ফুরানো রেকের যন্ত্রাংশ বদলেও চালানোর নজির ছিল। আপাতত যে নন এসি মেট্রো চলবে না, তা জানিয়ে দিয়েছেন কলকাতা মেট্রো রেলের জেনারেল ম্যানেজার। প্রথম যে রেক কলকাতায় চলেছিল তার কামরা অবশ্য হাওড়া রেল মিউজিয়ামে এখন রাখা আছে। বাকি নন এসি রেক রাখা আছে নোয়াপাড়া কারশেডে। আপাতত সেখানেই থাকবে কলকাতার পাতাল রেলের ইতিহাস। তার আগে শেষ নন এসি রেক দেখার সুযোগ মিলবে টালিগঞ্জ মেট্রো স্টেশনে।

Abir Ghoshal

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: