corona virus btn
corona virus btn
Loading

'আপনি রাজ্যে সংখ্যালঘু তোষণ করছেন', দ্বিতীয় চিঠিতে বিস্ফোরক রাজ্যপাল

'আপনি রাজ্যে সংখ্যালঘু তোষণ করছেন', দ্বিতীয় চিঠিতে বিস্ফোরক রাজ্যপাল

মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির উত্তরে এই নিয়ে ২ চিঠি পাঠালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী সাংবিধানিকভাবে ব্যর্থ বলে রাজ্যপাল তার পাঠানো চিঠিতে লিখেছিলেন। শুক্রবার তার পাঠানো দ্বিতীয় চিঠিতে করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী ব্যর্থ বলে সরাসরি উল্লেখ করলেন রাজ্যপাল৷

  • Share this:
#কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির উত্তরে রীতিমতো চাঁচাছোলা ভাবে ১৪ পাতার উত্তর করলেন রাজ্যপাল৷ নির্দিষ্টি করে রাজ্যে ঘটে চলা বিভিন্ন ইস্যু একের পর এক লিখে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর তোপ দাগলেন৷ এমনকি এই উদ্বিগ্ন সময় সংখ্যালঘু তোষণ করছেন মুখ্যমন্ত্রী, একথাও চিঠিতে উল্লেখ করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর৷

দ্বিতীয় চিঠিতে বিস্ফোরক রাজ্যপাল শুক্রবারের পাঠানো চিঠিতে রাজ্যপাল বলেছেন "করোনা মোকাবিলায় আপনি ব্যর্থ। কৌশলে আপনি দৃষ্টি ঘোরাচ্ছেন। আপনি সংখ্যালঘু তোষণ করছেন। আপনাকে নিজাম উদ্দিনের ঘটনা নিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছিল। আপনি বলেছিলেন এই প্রশ্ন সাম্প্রদায়িক প্রশ্ন। যা একেবারেই আমার কাছে গ্রহণযোগ্য নয়। আপনি আপনার অন্তরাত্মার কথা শুনুন। আপনি আইনের ঊর্ধ্বে নন। সুপ্রিম কোর্ট ও তাই বলে। আপনি সংবিধান অবমাননা করেছেন।"

মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির উত্তরে এই নিয়ে ২ চিঠি পাঠালেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির উত্তরে মুখ্যমন্ত্রী সাংবিধানিকভাবে ব্যর্থ বলে রাজ্যপাল তার পাঠানো চিঠিতে লিখেছিলেন। শুক্রবার তার পাঠানো দ্বিতীয় চিঠিতে করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী ব্যর্থ বলে সরাসরি উল্লেখ করলেন রাজ্যপাল৷ শুক্রবারের পাঠানো চিঠিতে ৩৭ টি পয়েন্ট উল্লেখ করেছেন রাজ্যপাল।

তবে শুধু করোনা মোকাবিলা বা কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি আসার প্রসঙ্গ নিয়ে রাজ্যপাল তার পাঠানো চিঠিতে সীমাবদ্ধ রাখেননি। শুক্রবার এর পাঠানো চিঠিতে কেন্দ্রীয় নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রসঙ্গ তুলে আনলেন রাজ্যপাল। তিনি চিঠিতে এও বলেন 'CAA নিয়ে আপনি গণভোটের প্রস্তাব দিয়েছেন। প্রস্তাব দিয়েছিলেন রাষ্ট্রসংঘকে।' বিধানচন্দ্র রায়ের প্রসঙ্গ তুলে রাজ্যপাল তার পাঠানো চিঠিতে লেখেন 'এই বাংলা বিধান চন্দ্র রায় কে দেখেছে। ওনার মত মুখ্যমন্ত্রী হতে পারতেন। যে রাজ্যে রেশন কেলেঙ্কারি হয়না। যে রাজ্যে জনতার টাকা লুঠ হয় না।' এদিনের চিঠিতে রীতিমত আক্রমণাত্মক ছিলেন রাজ্যপাল। তিনি বলেন 'আপনি তথ্য লুকাচ্ছেন। কেন্দ্রীয় দল এ রাজ্যে কাজ করতে পারছে না। আপনি চিঠিতে আম্বেদকরের কথা বলছেন। আবার সংবিধানকে আপনি অবজ্ঞা করছেন। এর থেকে বড় পরিহাস হয়না। আপনার চিঠিতে অপ্রাসঙ্গিক অজুহাত আছে। সেগুলি আপনার ব্যর্থতা ঠেকাতে চিঠিতে অজুহাত দিয়েছেন। মাইক,ঝাঁটা হাতে মুখ্যমন্ত্রী কে মানায় না।' চিঠির একদম শেষ পর্বে তিনি লেখেন " আপনি জানবেন রাজভবনে আপনার একটি বন্ধু আছে যে মানুষের স্বার্থে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে যানে।" অর্থাৎ চিঠির শেষে কিছু অন্য সুরে মুখ্যমন্ত্রী উদ্দেশ্যে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছেন তিনি৷

governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM governer letter to CM
Published by: Pooja Basu
First published: April 24, 2020, 5:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर