Home /News /kolkata /
Kolkata News| Kolkata Corporation: পুরসভার অন্দরমহলে চাকরি দেওয়ার নামে সক্রিয় প্রতারণা চক্র! ভুয়ো নিয়োগ নিয়ে ফের হইহই কাণ্ড কলকাতা পুরসভার কেন্দ্রীয় ভবনে

Kolkata News| Kolkata Corporation: পুরসভার অন্দরমহলে চাকরি দেওয়ার নামে সক্রিয় প্রতারণা চক্র! ভুয়ো নিয়োগ নিয়ে ফের হইহই কাণ্ড কলকাতা পুরসভার কেন্দ্রীয় ভবনে

সমস্ত তথ্য ও প্রমাণসহ তিন জনকে নিউ মার্কেট থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যায় পুলিশ।

  • Share this:

#কলকাতা: পুরসভার অন্দরমহলে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা চক্র সক্রিয়। ভুয়ো নিয়োগ নিয়ে ফের হইহইকান্ড কলকাতা পুরসভার কেন্দ্রীয় ভবনে। এর আগেও পুরসভার অন্দরে কাউন্সিলর রুমে বসেই প্রতারণা চক্রের শিকার হয়েছিল এক যুবক। তারপর থেকেই তৎপর কলকাতা পৌরসভা। পুরসভার আভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা কর্মীদের নজরদারির জেরে হাতেনাতে ধরা পরল প্রতারণা চক্রের তিনজন।

আরও পড়ুন Rice Price Hike: আটা-ময়দার পর বাড়তে চলেছে চালের দামও! এই রাজ্যেও পড়বে প্রভাব

কলকাতা পুরসভার অন্দরে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগ। ভুয়ো নিয়োগপত্র দিতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ল তিনজন চক্রী। নিকাশি বিভাগের এক কর্মীর প্রথম নজরে আসে বিষয়টি। সন্দেহজনকভাবে তিন জনকে বিভিন্ন কাগজপত্র নাড়াচাড়া করতে দেখে জিজ্ঞাসা করেন কোন বিভাগের কর্মী? এই প্রশ্নের উত্তর দিতে উত্তেজিত হয়ে পরে তিন ব্যক্তি।  পাশেই কাউন্সিলর ক্লাব রুমে ছিলেন নিরাপত্তাকর্মী বলরাম দাস। নিরাপত্তাকর্মীর তৎপরতায় ধরা পড়ে এই তিন অভিযুক্ত যুবক। খবর পেয়ে কলকাতা পুরসভার কর্তব্যরত পুলিশকর্মী ছুটে আসেন। তিন যুবককে ধরে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়। পুলিশ ও পুরসভা সূত্রে খবর এই তিনজনের থেকেই কিছু ফর্ম, নিয়োগ পত্রের আদলে তৈরি কাগজপত্র এবং কলকাতা পুরসভার আদলে তৈরি কিছু পরিচিতি পত্র মিলেছে।

এই ঘটনায় পুলিশকে কঠোর পদক্ষেপ নিতে আবেদন জানিয়েছে পুরসভা কর্তৃপক্ষ। পুরসচিব হরিহর প্রসাদ মন্ডলের নির্দেশের নিউমার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন কলকাতা পুরসভার নিরাপত্তা আধিকারিকেরা । তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগের পর  নিউমার্কেট থানা তদন্ত শুরু করেছে।

ধৃত তিন জনের মধ্যে দু’জন পশ্চিম বর্ধমানের বাসিন্দা। আর একজন কলকাতা নিউ মার্কেট এলাকার বাসিন্দা।  তিন জনের মধ্যে পিন্টু রাউত দুর্গাপুরের বাসিন্দা, রবিন রায় আসানসোল এবং অশ্বিনী মিশ্র, কলকাতার ইন্ডিয়ান মিরর স্ট্রিট ধর্মতলা এলাকার বাসিন্দা।

আরও পড়ুন West Bengal Covid-19 Update: ফিরছে করোনা আতঙ্ক, এ রাজ্যে ১০০০ ছুঁই ছুঁই কোভিড-১৯ সংক্রমণ!

কলকাতা পুরসভার সূত্রে খবর, তিন জন বেশ কিছু ফর্ম ফিল আপ করছিল। সেই সময় কলকাতা পুরসভার কাউন্সিলর ক্লাবে কর্মরত  সিকিউরিটি গার্ড তাদেরকে ধরে ফেলে। সেই সময় এই অভিযুক্তরা ফর্ম ছিঁড়ে ফেলার চেষ্টা করে বলে জানান সিকিউরিটি গার্ড বলরাম দাস। তখনই পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। কলকাতা পুরসভার কর্মরত পুলিশ কর্মীরা এসে ওই তিন জনকে আটক করেন। প্রথমে পুরসভার অফিসার ইনচার্জ জি এস মহাপাত্র ঘরে নিয়ে যাওয়া হয়।  তিন জন অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। ৩ অভিযুক্তের কাছ থেকে মেলে কলকাতা পুরসভার ভুয়ো পরিচিতি পত্র। এদের কাছ থেকে পাওয়া যায় কলকাতা পৌরসভার স্বাস্থ্য বিভাগে চাকরি দেওয়ার আবেদন পত্র ও নিয়োগপত্র । এবং বেশ কিছু পুরসভার লেটারহেডের ফর্মও।

এই সমস্ত তথ্য ও প্রমাণসহ তিন জনকে নিউ মার্কেট থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যায় পুলিশ।

কলকাতা পৌর সংস্থায় ভুয়ো নিয়োগ প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত ছিল এই তিন জন বলেই সন্দেহ প্রকাশ করছেন পুর কর্তৃপক্ষ। তবে প্রকৃত কী ঘটনা ঘটেছে সেটা তদন্ত নেমেছে নিউ মার্কেট থানার পুলিশ।

অভিযুক্ত তিন জনকে পুরসভার করিডরে কাউন্সিলর রুমের পাশে বসে থাকতে দেখেন নিকাশি বিভাগের এক কর্মী। সেই কর্মী এবং কাউন্সিলার রুমের নিরাপত্তা কর্মীর কাছে বিস্তারিত শোনেন মেয়র পরিষদ তারক সিং। মেয়র পরিষদ নিকাশি তারক সিংহ বলেন, যে কোনো জায়গায় এই ধরেন ঘটনা ঘটতে পারে। তবে পুরসভার অন্দরে নজরদারি চালানো প্রয়োজন। পাশাপাশি তাঁর পরামর্শ , এই ধরনের ভুয়ো নিয়োগের নাম করে প্রতারণার ফাঁদে পা না দিয়ে বাড়ির লোকজনের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া জরুরি।

উল্লেখযোগ্য, কিছু দিন আগেই এই ধরনের ঘটনা কলকাতা পুরসভার অন্দরে কাউন্সিলর ক্লাব রুমের ভেতরই ঘটেছে বলে দাবি করেছিলেন এক যুবক। উত্তর২৪ পরগনার বাসিন্দা সেই যুবক নিয়োগপত্র নিয়ে সচিবালয়ে বিভাগে চাকরি করতে এসেছিলেন। পরদিন সমস্ত নথি পত্র নিয়ে তাকে পুলিশে অভিযোগ জানানোর নির্দেশ দিয়েছিল পুরসভা কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশ। যদিও তারপর থেকে বেপাত্তা সেই যুবক ।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Kolkata Corporation, Kolkata News

পরবর্তী খবর