বৃহত্তর বেঞ্চে আজও হল না ফয়সালা, বুধবার পর্যন্ত গৃহবন্দিই থাকছেন চার নেতা

আপাতত গৃহবন্দিই থাকতে হবে চার নেতাকে৷

নারদ কাণ্ডে (Narada Case) ধৃত চার নেতা জামিন পাবেন কি না, তার ফয়সালা এ দিনও হল না হাইকোর্টে৷

  • Share this:

#কলকাতা: চার গৃহবন্দি নেতা ভবিষ্যৎ কী হবে, এ দিনও কলকাতা হাইকোর্টে তার ফয়সালা হল না৷ পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চের সামনে এ দিন সকাল থেকেই এই মামলার শুনানি শুরু হয়৷ যদিও, এ দিনের মতো শুনানি শেষ হয়ে গিয়েছে হাইকোর্টে৷ আগামী বুধবার ফের মামলার শুনানি হবে হাইকোর্টে৷ ফলে, আরও অন্তত দু' দিন মামলার শুনানি হবে হাইকোর্টে৷ ততদিন পর্যন্ত গৃহবন্দিই থাকবে হবে চার নেতাকে৷

গত শুক্রবার নারদ কাণ্ডে ধৃত চার নেতাকে জেল হেফাজত থেকে বের করে গৃহবন্দি করে রাখার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ৷ কিন্তু জামিন দেওয়া নিয়ে দুই বিচারপতির মধ্যে মতানৈক্য় হওয়ায় গঠিত হয় পাঁচ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চ৷ সেই বেঞ্চে ছিলেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দাল, বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন, বিচারপতি সৌমেন সেন এবং বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায়৷ এ দিন সকাল ১১টা থেকে সেই বেঞ্চের সামনেই সওয়াল শুরু করেন দু' পক্ষের আইনজীবীরা৷

অন্য়দিকে রবিবার গভীর রাতে গত শুক্রবার দেওয়া কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশের বিরোধিতা করে স্পেশ্যাল লিভ পিটিশন দায়ের করে সিবিআই৷ যাতে চার নেতাকে গৃহবন্দি করার নির্দেশ বাতিল করে তাঁদের জেল হেফাজতে পাঠানো হয়৷ এ দিন কলকাতা হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে মামলার শুনানি শুরু হতেই সুপ্রিম কোর্টে সিবিআই-এর করা আবেদনের কথা উল্লেখ করেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা৷ যদিও সেই আবেদন খারিজ করে দেয় হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চ৷ কিছুক্ষণের মধ্যেই খবর আসে, আবেদনে একগুচ্ছ ভুল থাকায় সু্প্রিম কোর্টে করা সিবিআই-এর আবেদনই খারিজ হয়ে গিয়েছে৷

এ দিনও বৃহত্তর বেঞ্চে শুনানি শুরু হতেই ফের একবার চার নেতাকে গ্রেফতারির দিন সিবিআই অফিসের বাইরে বিক্ষোভ, উত্তেজনার কথা তুলে ধরেন তুষার মেহতা৷ পাল্টা সিবিআই-এর বিরুদ্ধে অহেতুক মামলার শুনানিতে দেরি করানোর কৌশল নেওয়ার অভিযোগ তোলেন অভিযুক্ত নেতাদের পক্ষে সওয়াল করা অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি, সিদ্ধার্থ লুথরারা৷ সওয়াল, পাল্টা সওয়ালে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভার্চুয়াল শুনানি৷

তবে এ দিন বেশ কিছু অস্বস্তিকর প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে সিবিআই-এর হয়ে সওয়াল করা অ্যাডভোকেট জেনারেল তুষার মেহতাকে৷ বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায় যেমন প্রশ্ন করেন, প্রায় পাঁচ বছর ধরে চলা মামলায় কেন এখনই চার অভিযুক্ত নেতাকে গ্রেফতার করতে হল সিবিআই-কে? আবার সিবিআই মামলার শুনানি স্থগিত করার আবেদন করায় বিচারপতি হরিশ ট্যান্ডন বলেন, রাজ্যে ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ ফলে দু' একদিন পর মামলার শুনানি করাই হয়তো সম্ভব হবে না৷ এই ধরনের সওয়াল করার আগে সিবিআই-এর ভেবে দেখা উচিত বলেও মন্তব্য করেন বিচারপতি ট্যান্ডন৷ শেষ পর্যন্ত অবশ্য় নারদ মামলার বুধবারই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়৷ ঘটনাচক্রে সেদিনই রাজ্য়ে ঘূর্ণিঝড় যশ আছড়ে পড়ার কথা৷

 Arnab Hazra

Published by:Debamoy Ghosh
First published: