Home /News /kolkata /
Firhad Hakim on KK Death: ভিড়েই কাজ করেনি এসি, স্বীকার ফিরহাদের! দোষারোপে নারাজ পুরমন্ত্রী

Firhad Hakim on KK Death: ভিড়েই কাজ করেনি এসি, স্বীকার ফিরহাদের! দোষারোপে নারাজ পুরমন্ত্রী

কেকে-র মৃত্যুতে বিতর্ক চান না ফিরহাদ৷

কেকে-র মৃত্যুতে বিতর্ক চান না ফিরহাদ৷

মঙ্গলবারের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির জন্য নজরুল মঞ্চেরও বেশ কিছু ক্ষতি হয়েছে৷ ভিড়ের চাপে ভেঙে যায় একটি গেট৷

  • Share this:

#কলকাতা: মাত্রাতিরিক্ত ভিড়েই মঙ্গলবার কাজ করেনি নজরুল মঞ্চের এসি৷ কার্যত স্বীকারই করে নিলেন পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম৷ যে নজরুল মঞ্চে মঙ্গলবার জীবনের শেষ অনুষ্ঠান করেন কেকে, সেই নজরুল মঞ্চের রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে কেএমডিএ৷

নজরুল মঞ্চে আড়াই হাজারের কাছাকাছি আসন রয়েছে৷ অভিযোগ, মঙ্গলবার কেকে-র অনুষ্ঠান দেখতে ভিড় জমিয়েছিলেন সাত হাজারের বেশি মানুষ৷ পরিস্থিতি এমন দাঁড়ায় যে কাজ করেনি প্রেক্ষাগৃহের বাতানুকূল ব্যবস্থা৷ বাধ্য হয়ে প্রেক্ষাগৃহের পাঁচটি দরজা খুলে দেওয়া হয়৷ হাঁসফাঁস পরিস্থিতিতে অস্বস্তিতে পড়েন উপস্থিত দর্শকরাও৷ অভিযোগ, এই দমবন্ধকর পরিস্থিতিতেই গান গাইতে গাইতে আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন কেকে৷

আরও পড়ুন: ছিল না ডায়াবেটিস, ছিল না উচ্চ রক্তচাপ বা অসুস্থতা! কেকে'র প্রাণঘাতী হার্ট অ্যাটাকের নেপথ্যে কী কারণ?

যদিও কেকে-র মৃত্যুর জন্য বিশৃঙ্খল পরিস্থিতিকে দায়ী করতে রাজি হননি পুরমন্ত্রী৷ বাতানুকূল ব্যবস্থা কাজ করেনি স্বীকার করে নিয়ে মন্ত্রীর যুক্তি, 'এসি ঠিক ছিল৷ কিন্তু ২৭০০ লোকের জায়গায় যদি ৭০০০ লোক ঢুকে যায় তাহলে কী করা যাবে? মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসেরও থেকেও গরম বেড়ে যায়৷ সেই কারণেই দরজা খুলে রাখতে হয়েছিল৷

যে কোনো মৃত্যু হলেই আপনারা বিতর্ক তৈরি করেন। এখানে তেমন কিছু হয়নি৷' এর পরেই ফিরহাদ যোগ করেন, 'কখন যে কার ডাক আসে! আমিও কিছুক্ষণ পর নাও থাকতে পারি।'

আরও পড়ুন: গানের জন্য এসেছিলেন যে শহরে, গানস্যালুট নিয়ে সেই কলকাতা ছাড়ছেন কেকে

মঙ্গলবারের বিশৃঙ্খল পরিস্থিতির জন্য নজরুল মঞ্চেরও বেশ কিছু ক্ষতি হয়েছে৷ ভিড়ের চাপে ভেঙে যায় একটি গেট৷ এ দিন কেএমডিএ-র বিল্ডিং বিভাগের আধিকারিকরা নজরুল মঞ্চ পরিদর্শন করেন৷ মন্ত্রী জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে কলেজের কোনও অনুষ্ঠান নজরুল মঞ্চ ভাড়া না দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেছেন কেএমডিএ-র আধিকারিকরা৷ যদিও এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি৷

পুরমন্ত্রী বলেন, 'কলেজ ছাত্রদের কাছে কেকে-এর জনপ্রিয়তা ছিল মারাত্মক। কিছুদিন আগে কলেজ ছেলেমেয়েরা এসেছিল আমি ওদের করে দিয়েছি। পরিস্থিতির পর কেএমডিএ আধিকারিকরা বলেছেন ভবিষ্যতে কলেজ ছেলেমেয়েদের জন্য না দিলে ভালো হয়। আমি এখনো সিদ্ধান্ত নিইনি । কথা বলে আলোচনার পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

পরবর্তী খবর