corona virus btn
corona virus btn
Loading

মমতাকে জীবিত অবস্থাতেই NRC দেখে যেতে হবে, পাল্টা জবাব দিলীপের

মমতাকে জীবিত অবস্থাতেই NRC দেখে যেতে হবে, পাল্টা জবাব দিলীপের

এনআরসির প্রতিবাদে সিঁথি মোড় থেকে শ্যামবাজার পদযাত্রায় তৃণমূলনেত্রীর হুঁশিয়ারের পাল্টা জবাব বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ৷

  • Share this:

#কলকাতা: এনআরসি নিয়ে এবার কী মুখোমুখি সংঘাত? এনআরসির প্রতিবাদে সিঁথি মোড় থেকে শ্যামবাজার পদযাত্রায় তৃণমূলনেত্রীর হুঁশিয়ারের পাল্টা জবাব বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের ৷ বলেন, মমতাকে জীবিত অবস্থাতেই NRC দেখে যেতে হবে ৷ বৃহস্পতিবার NRC ইস্যুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘আমি বেঁচে থাকতে বাংলায় NRC হতে দেব না ৷’

মমতার পদযাত্রা শেষ হতেই বিজেপি রাজ্য দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন করে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘বাংলায় এনআরসি হবেই ৷ অনুপ্রবেশকারীদের আটকাতেই এনআরসি ৷ মমতা-সহ অন্য দলের বিরোধিতাতে এনআরসি আটকাতে পারবে না ৷ মমতা বন্দোপাধ্যায়কে এটা দেখে যেতে হবে ৷’

এনআরসিতে হিন্দুদের নাম বাদ পড়ায় অসমে ধাক্কা খেয়েছে বিজেপি। তাই বাংলায় তাদের এবার নয়া কৌশল। এনআরসি না হলে কী কী হতে পারে সেটা তুলে ধরেই প্রচার করতে চাইছে গেরুয়া শিবির। এনআরসি। এটা বিজেপির যেমন অস্ত্র, তেমনই বিজেপি বিরোধীদেরও হাতিয়ার। বিরোধীদের দাবি, এনআরসির ফলে অসমে ১৯ লক্ষের মধ্যে ১০ লক্ষেরও বেশি হিন্দুর নাম বাদ গিয়েছে। পাল্টা বিজেপির দাবি, এনআরসি না হওয়ার ফলে বাংলায় খাগড়াগড় হয়েছে।

বাংলাদেশ থেকে সহজেই জঙ্গিরা ঢুকেছে। আস্তানা গেড়েছে খাগড়াগড়ে। তারপর সেখানেই বিস্ফোরণ। বিজেপির দাবি, এই অনুপ্রবেশ আটকাতেই এনআরসি দরকার। অর্থাৎ, এনআরসি না হওয়ার ফল কতটা বিপজ্জনক হতে পারে সেটা তুলে ধরেই এ রাজ্যে প্রচার চালাতে চাইছে পদ্মশিবির। এনআরসি প্রচারে বিজেপি যেমন ঝাঁপাবে, তেমনই ঝাঁপাবে গেরুয়া শিবিরের অন্যান্য শাখাও। হিন্দুদের বোঝানো হবে ওপার থেকে আসা সংখ্যালঘুরাই তাঁদের বিপদ। এনআরসি হলে সেই সংখ্যালঘুদেরই তাড়ানো হবে ৷ আবার সংখ্যালঘুদের কাছে গিয়ে বার্তা দেওয়া হবে, ওপারের সংখ্যালঘুরা এসে তাঁদের রোজগারের সুযোগ কাড়ছেন। এভাবেই এনআরসিকে সামনে রেখে বিভেদের রাজনীতির পালে হাওয়া দিতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

তবে, বিজেপি শাসিত অসমে এনআরসি, আর তৃণমূল শাসিত বাংলায় এনআরসি, যে এক নয়, সেটা বঙ্গ বিজেপি ভালই বুঝতে পারছে। এনআরসি নিয়ে প্রচার করতে ২৭ সেপ্টেম্বর কলকাতায় আসছেন বিজেপির কার্যকরী সভাপতি জে পি নাড্ডা। অক্টোবরের শুরুতে আসার কথা অমিত শাহেরও। লক্ষ্য একটাই। অসমের ধাক্কাকে সামাল দিয়ে বাংলায় নয়া এনআরসি রণকৌশলকে কাজে লাগানো।

First published: September 12, 2019, 10:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर