Home /News /kolkata /
Dilip Ghosh: "জেলে গেলে প্রাণে বাঁচবেন, নইলে..." অনুব্রত মণ্ডলকে নিয়ে 'বিস্ফোরক' মন্তব্য দিলীপ ঘোষের!

Dilip Ghosh: "জেলে গেলে প্রাণে বাঁচবেন, নইলে..." অনুব্রত মণ্ডলকে নিয়ে 'বিস্ফোরক' মন্তব্য দিলীপ ঘোষের!

অনুব্রত মণ্ডলকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় দিলীপ ঘোষ প্রতীকী ছবি।

অনুব্রত মণ্ডলকে নিয়ে দুশ্চিন্তায় দিলীপ ঘোষ প্রতীকী ছবি।

Dilip Ghosh: ইতিমধ্যেই তাঁর সিবিআই-এর ডাক পেয়ে বার বার অসুস্থ হওয়া নিয়ে কটাক্ষ করেছে বিরোধীরা। এবার এই দাপুটে তৃণমূল নেতার নিরাপত্তা নিয়ে বিস্ফোরক বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রকাশ্যে দিলেন চরম আশঙ্কার বার্তা।

  • Share this:

    #কলকাতা : একের পর এক সিবিআই তলব এড়াচ্ছেন বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mandal)। ইতিমধ্যেই তাঁর সিবিআই-এর ডাক পেয়ে বার বার অসুস্থ হওয়া নিয়ে কটাক্ষ করেছে বিরোধীরা। এবার এই দাপুটে তৃণমূল নেতার নিরাপত্তা নিয়ে বিস্ফোরক বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রকাশ্যে দিলেন চরম আশঙ্কার বার্তা (Dilip Ghosh)।

    সোমবার সপ্তাহের শুরুতে নিয়মমাফিক ইকো পার্কে প্রাতঃভ্রমণে হাজির ছিলেন দিলীপ ঘোষ। সেই সময় অনুব্রত মণ্ডলকে নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে দিলীপ ঘোষ বলেন, "ওনার খালি সিবিআই দেখলে শরীর খারাপ হয়ে যায়। কিন্তু এভাবে তো বেশি দিন বাঁচা যায় না, আজ হোক কাল হোক আসতেই হবে। কিন্তু আমার যেটা সন্দেহ হচ্ছে, হয় ওনাকে সারাজীবন হাসপাতালে থাকতে হবে আর না হয় সারাজীবন জেলে থাকতে হবে।  (Dilip Ghosh)"

    আরও পড়ুন : বিছানাতেই দিন চমক! ঘরে আনুন দুর্দান্ত এই জিনিস! কয়েক মিনিটেই ঠান্ডা, দাম শুনলে চমকে যাবেন

    দিলীপ ঘোষ যোগ করেন, "জেলে থাকলে ঠিক আছে কিন্তু হাসপাতালে থাকলে বেঁচে থাকার সম্ভাবনা কম। এখন আমার যেটা মনে হচ্ছে, কোনোভাবে তাঁকে মেরে ফেলা হতে পারে সমস্ত তথ্য লোপাট করার জন্য। কেননা একাধিক মামলার সঙ্গে তিনি যুক্ত আর টিএমসি পার্টির বিভিন্ন নেতা এই সমস্ত কেসের সঙ্গে যুক্ত আছে। আমার মনে হয় একটা চাবিতেই সব ঘর খোলা যাবে সেজন্য চাবি হারিয়ে ফেলা হতে পারে। সেই জন্য এখন নতুন চিন্তা আমাদের এটা যে ওই লোকটা যদি জেলে চলে যায় তাহলে প্রাণটা থাকবে, না হলে খুব সম্ভাবনা আছে বেঁচে না থাকার।"

    এদিন নিউটাউনের প্রাতঃভ্রমণ সেরে দিল্লি রওনা দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ। তার আগে বিজেপিতে দিলীপ-সুকান্ত দ্বন্দ্ব নিয়ে যে জল্পনা শুরু হয়েছে সেই প্রসঙ্গে প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে সাবধানী মন্তব্যে দিলীপ ঘোষ বলেন, "উনি (সুকান্ত মজুমদার) সভাপতি হতেই লোকে ওকে জেনে গিয়েছে। পার্টি বড় হয়ে গিয়েছে। পার্টি বড় হয়ে যাওয়ার জন্য সবাই বড় হয়ে গিয়েছে। সাংগঠনিক দিকে থেকে সুকান্তর অভিজ্ঞতা কম। আমারও কম ছিল। রাজনীতিতে কাজ করতে করতে অভিজ্ঞতা বাড়ে।"

    আরও পড়ুন : এবার নিউটাউনের রাস্তা কাঁপাবে ই-বাস! কবে থেকে চালু? ভাড়া কত? জেনে নিন রুট...

    এই বিষয়ে তৃণমূলের কুণাল ঘোষের মন্তব্য নিয়ে তিনি বলেন, "কুণালের দূরদর্শীতা আছে। আগে রাহুল-দিলীপ ঘোষ করতেন। শুভেন্দু -দিলীপ করতেন। আর এখন সুকান্ত-দিলীপ করেন। এতো বড় পার্টি ওনাদের। বিশ্বনেত্রী রয়েছেন। তারপরেও রাজ্য কমিটি ঘোষণা করেও ভেঙে দিতে হল। ডুবে মরা উচিৎ ওদের।" শাসকদলকে আক্রমণের পাশাপাশি সুকান্ত মজুমদারের সঙ্গে তাঁর রসায়ন যে ভালোই সেই বার্তা দিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, "আমদের পার্টিতে ৪২ বছর বয়সে একজন রাজ্য সভাপতি হয়েছেন। দল তার পাশে আছে।

    অনুপ চক্রবর্তী

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published:

    Tags: Anubrata Mandal, Dilip Ghosh

    পরবর্তী খবর