পাঁচ হাজার সভা করে গ্রাম দিয়ে শহর ঘেরার পরিকল্পনা সিপিআইএমের

পাঁচ হাজার সভা করে গ্রাম দিয়ে শহর ঘেরার পরিকল্পনা সিপিআইএমের

পাঁচ হাজার সভা করে গ্রাম দিয়ে শহর ঘেরার পরিকল্পনা  সিপিএমের, পুরসভা নির্বাচনে সার্বিক জোটের কৌশল

  • Share this:

#কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনে ভরাডুবি হলেও তারপর দলের গণসংগঠনগুলির পারফরম্যান্সে খুশি আলিমুদ্দিন স্ট্রিট। কিন্তু শহরে এই চিত্র দেখা গেলেও গ্রামের ছবি চিন্তায় রেখেছিল সিপিএমকে। তবে ৮ই জানুয়ারি ধর্মঘটে গ্রামবাংলায় ভাল সাড়া পাওয়া গিয়েছে বলে রিপোর্ট এসেছে আলিমুদ্দিনের হাতে। আর এই শক্তিকেই কাজে লাগাতে চাইছে দল। বুধবার দুদিনের রাজ্য কমিটির বৈঠকের শেষ দিনে রাজ্যজুড়ে পঞ্চায়েত স্তরে পাঁচ হাজার সভা করার নির্দেশ দিয়েছেন রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। সিএএ, এনআরসি বিরোধী আন্দোলনের পাশাপাশি আঞ্চলিক বিষয়গুলোকে সামনে রেখে লাগাতার আন্দোলনের জন্য প্রস্ততি নিতে বলা হয়েছে জেলা নেতৃত্বকে

কয়েকমাসের মধ্যে পুরসভা নির্বাচন হবে ধরে নিয়ে তারজন্যও প্রস্তুতি শুরু করতে চায় আলিমুদ্দিন স্ট্রিট। সেই নির্বাচনের প্রাথমিক রণকৌশল হিসেবে বিজেপি তৃণমূল বাদে কংগ্রেস-সহ বাকি দলগুলিকে নিয়ে সার্বিক জোট করতে চায় সিপিএম। ইতিমধ্যে এনআরসি-সহ বেশকিছু ইস্যুতে কংগ্রেস-সহ কুড়িটি রাজনৈতিক দলকে সঙ্গে নিয়ে কর্মসূচি করছে সিপিএম। নির্বাচনেও সেই ফসল তুলতে এমন রণকৌশল নেওয়া হয়েছে বলে দলীয় সূত্রে খবর। তবে সংগঠনের ভিত মজবুদ করতে গ্রামে শক্তি বাড়াতে হবে। আর সেই শক্তি বাড়াতে জেলা নেতৃত্বকে লাগাতার কর্মসূচি গ্রহণের কথা বলা হয়েছে। সিপিএম মনে করছে এনআরসি, সিএএ নিয়ে রাজ্যের মানুষের একটা বড় অংশে প্রতিষ্ঠান বিরোধী হাওয়া রয়েছে। আর সেই অংশে যদি আঞ্চলিক বিষয় মিশিয়ে দেওয়া যায় তাহলে নিজেদের ঝুলিতে একটা বড় অংশের সমর্থন আসবে বলে মনে করছে সিপিএম। সেই কারনে কেন্দ্র ও রাজ্যের বিরুদ্ধে লাগাতার আন্দোলন করতে চাইছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট

জোটের বিষয়ে আগের চাইতে অনেক মেপে পা ফেলতে চাইছে সিপিএম। লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের সাথে জোট করতে চাওয়ায় ফ্রন্টেরই অনেক শরিক দলের সাথে ভারসাম্য নষ্ট হয়েছিল বেশ কয়েকটি আসনকে কেন্দ্র করে। লিবারেশনের মতো কিছু বামপন্থী দল দুরত্বও বাড়িয়েছিল সিপিএমের সঙ্গে। কংগ্রেসের সঙ্গে জোট ভেস্তে গিয়েছিল আবার সেই দলগুলিকেও আসন ছাড়া যায়নি। যার ফায়দা অনেকটাই তুলেছে প্রতিদ্বন্দ্বীরা। তাই সেই সব অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে সতর্কতা অবলম্বন করছে দল। ধর্মঘট, এনআরসি বিরোধী মিছিল কংগ্রেসের পাশাপাশি কুড়িটি রাজনৈতিক দলকে একসঙ্গে আনা গিয়েছে। এবার নির্বাচনী লড়াইতে সবকটি দলকে এক সুতোয় বাঁধতে চাইছে আলিমুদ্দিন। তার আগে গ্রামে রসায়নটা আরও ভালো ভাবে করতে চাইছে সিপিএম ৷

First published: January 16, 2020, 10:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर