হোম /খবর /কলকাতা /
করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কাউন্সিলর, বিশেষ নজদারিতে রাখা হয়েছে ওয়ার্ডটি

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কাউন্সিলর, বিশেষ নজদারিতে রাখা হয়েছে ওয়ার্ডটি

শুধুমাত্র এই ওয়ার্ডের জন্য ৫টি ঠেলা গাড়িকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে ৷ ওয়ার্ডের ভিতরে গিয়ে মাছ ও সবজি বিক্রির জন্য।

  • Share this:

#কলকাতা: ব্যালকনিত দৌড়ে এসেছেন পুরো পরিবার হঠাৎ রাস্তায় গাড়ির আওয়াজ। শুক্রবার সন্ধোর পর থেকে মধ্যমগ্রাম পুরসভার ১০ নং ওয়ার্ডে বিশেষ কোয়ারেন্টাইন ব্যবস্থা চালু করেছে প্রশাসন। এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর অরবিন্দ মিত্র করোনাতে আক্রান্ত হয়ে বেলেঘাটা আইডিতে ভর্তি। তার পরিবার ও পরিচিত মিলেয়ে এই ওয়ার্ডের ১৩ জনকে বারাসত বারাকপুর রোডের কোয়ারান্টাইন সেন্টারে রাখা হয়েছে।

হটস্পট হিসেবে প্রশাসন এই এলাকাকে ঘোষণা করেনি। কিন্তু ওয়ার্ডটির সব ঢোকা ও বেরোনোর রাস্তায় গার্ড রেলে দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে । তবে এই গার্ডে রেল দিয়ে ঘিরে দেওয়া রাস্তায় না পুলিশ না সিভিক ভলেন্টিয়ার কাউকে চোখে পড়েনি এদিন। মধ্যমগ্রাম পুরসভার ভবনে খোলা হয়েছে পুলিশের বিশেষ করোনা কন্ট্রোলরুম ফর ১০ নং ওয়ার্ড । প্রায় ২০০০ প্লটের এই ওয়ার্ডে প্রশাসনের নির্দেশ বাড়ি থেকে বের হবেন না।

প্রশাসন সব সময় তাদের সঙ্গে আছে।আর যে কোনও প্রয়োজনে পুলিশের দুটি হেল্পলাইন নম্বার চালু করা হয়েছে। সেগুলি হল- 9875355317/9875354907 ৷ মাইকে করে ওই এলাকায় কী করবে আর কী করবে না তা প্রচারও করা হচ্ছে। এদিন দুপুরে বারাসত পুলিশ জেলার সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় এলাকা পরিদর্শনে যান। এই দিন তিনি জানান, ১০ নং ওয়ার্ডকে আলাদা করে বিশেষ নজদারিতে রাখা হয়েছে।

শুধুমাত্র এই ওয়ার্ডের জন্য ৫টি ঠেলা গাড়িকে অনুমতি দেওয়া হয়েছে ৷ ওয়ার্ডের ভিতরে গিয়ে মাছ ও সবজি বিক্রির জন্য। এইদিন এই এলাকায় এক ঘুমটির দোকানদারকে পুলিশ আটক করে দোকান খোলার অভিযোগে। এই দিন মধ্যমগ্রাম পুরসভার চেয়ারম্যান ইন কাউন্সিল হেলথ নিমাই ঘোষ জানান তাদের কাউন্সিল করোনাতে আক্রান্ত হওয়ার পর এলাকাটি স্যানিটাইজ করা হয়েছে। প্রতিনিয়ত নজরদারি চলছে। আগামিকাল থেকে থার্মাল গান দিয়ে এই ওয়ার্ডের প্রতিটি নাগরিককের পরীক্ষা করা হবে। এদিন তার জন্য প্রতিটি পরিবারে ফোন নং এর ডেটাবেস তৈরি করা হচ্ছে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Corona Virus, COVID-19, Home quarantine, Madhyamgram