আচার্যকে ছাড়াই যাদবপুরের সমাবর্তনের সিদ্ধান্তে সিলমোহর, ফিরে গেলেন জগদীপ ধনখড়

আচার্যকে ছাড়াই যাদবপুরের সমাবর্তনের সিদ্ধান্তে সিলমোহর, ফিরে গেলেন জগদীপ ধনখড়
  • Share this:

#কলকাতা : দেড় ঘন্টার বিক্ষোভ , যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে বেরিয়ে গেলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ৷ রাজ্যপালকে ছাড়াই হবে সমাবর্তন অনুষ্ঠান ৷ উপাচার্য জানিয়ে দেন যেহেতু বিক্ষোভের জেরে রাজ্যপাল যিনি চ্যান্সেলর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঢুকতেই পারেননি তাই তাঁকে ছাড়াই পড়ুয়ারদের মেডেল দেওয়া হবে ৷ উপাচার্য জানিয়ে দেন যেহেতু বহু পড়ুয়া বহুদূর থেকে এসেছেন তাই আচার্য না থাকলেও তাঁদের সম্মান দান থেকে বঞ্চিত করা হবে না ৷

বেরিয়ে যাওয়ার আগেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ট্যাগ করে ট্যুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ৷

এদিকে এর আগে দেড় ঘন্টা ধরে বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে নাটক ছিল টানটান ৷প্রথমে ছাত্র বিক্ষোভ , গো ব্যাক স্লোগান, কালো পতকা -যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে পৌঁছেও বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢোকা আটকে যায় রাজ্যপাল তথা  আচার্য জগদীপ ধনখড়ের ৷ এরপরেই তিনি অনড় হয়ে ক্যাম্পাসেই ঢুকে থাকেন ৷ উপাচার্যকে বিক্ষোভস্থলে আসতে নির্দেশ দেন জগদীপ ধনখড়,  ফোনে উপাচার্যকে নির্দেশ আচার্যের ৷ দশ মিনিটে বেশি কথা হয় দু'জনের ৷ সেখানে উতপ্ত বাদানুবাদও হয় ৷ তিনি জানিয়ে দেন তাঁকে ঘেরাও করে রাখা হয়েছে, পড়ুয়ারা জানিয়ে দিয়েছেন যদি তিনি আচার্যের সঙ্গে দেখা করতে যান তাহলে তাঁকে পড়ুয়াদের দেহের ওপর দিয়ে যেতে হবে ৷

আরও পড়ুন - বড়দিনের আনন্দ মাটি করতে তৈরি বৃষ্টি, তারপরেই উইকএন্ডে জমিয়ে পড়বে কনকনে ঠান্ডা

বিভিন্ন বিভাগীয় প্রধানের সঙ্গে কথা বলেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস ৷ তারপরে বিভিন্ন শিক্ষাকর্মীদের দলের সঙ্গে কথা বলেন কোর্ট সদস্যরা ৷ এদিকে তাঁদের আবেদন খারিজ ৷ তৃণমূল কর্মী-কর্মচারীরা জানিয়ে দিয়েছেন কীভাবে বার্ষিক সমাবর্তনের আয়োজন হয়েছে ৷ চ্যান্সেলর জগদীপ ধনখড়কে ছাড়াও সমাবর্তনের নিয়ম রয়েছে , কোনওভাবেই ঢুকতে দেওয়া হবে না রাজ্যপালকে জানিয়ে দিল তৃণমূলপন্থী শিক্ষা-কর্মচারীদের মুখপাত্র ৷

রাজ্যপালের হাত থেকে মেডেল না নিতে অনড় পড়ুয়ারা ৷ গাড়িতে বসে ট্যুইটের পর রাজ্য ও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে একহাচত নিলেন জগদীপ ধনখড় ৷ তিনি জানিয়েছেন রাজ্যের প্রশাসনের মদতেই শিক্ষাঙ্গন রাজনৈতিক অভিসন্ধি পূরণের আখড়ায় পরিণত হয়েছে ৷ আর তাদের মদতেই শিক্ষা একেবারে নক্কারজনক সময়ের মধ্যে দিয়েই যাচ্ছে ৷ রাজ্যপাল রাজ্যকে একহাত নেওয়ার পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয়ের সহ উপাচার্য সুরঞ্জন দাশকে সঠিক ব্যবস্থা না নেওয়ার জন্য দাবি করেন ৷ তাঁর সরাসরি অভিযোগ বিশ্ববিদ্যালয় কর্কৃপক্ষ নিজের কর্মচারীদের দিয়ে বিক্ষোভ হঠাতে পারতেন কিন্তু তিনি ইচ্ছাকৃতভাবেই তা করেননি ৷

সংবাদমাধ্যমে ক্ষোভ উগড়ে দেওয়ার পর ফের একগুচ্ছ ট্যুইট করেন রাজ্যপাল ৷ তাঁর জোর দাবি আচার্য থাকাকালীন  কনভোকেশনে অন্য কেউ মেডেল তুলে দিতে পারেন না ৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উপলক্ষ্য করেও ট্যুইট করেন তিনি ৷

পরিস্থিতি কীভাবে আয়ত্তে আনা যায় তা নিয়ে নিজেদের মধ্যে কথা চালাচ্ছেন সহ উপাচার্য ও কোর্টকর্মীরা ৷

আরও দেখুন

First published: 12:14:40 PM Dec 24, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर