Cyclone Yaas: আমফানের মতো ভোগান্তি হবে না, ইয়াসের আগে আশ্বাস সিইএসসি-র

আগামী বুধবার দুপুরে ওড়িশার বালাসোরের কাছে আছড়ে পড়বে ইয়াস (Cyclone Yaas)৷ যার জেরে কলকাতায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার বেগে ঝড় হতে পারে৷

আগামী বুধবার দুপুরে ওড়িশার বালাসোরের কাছে আছড়ে পড়বে ইয়াস (Cyclone Yaas)৷ যার জেরে কলকাতায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার বেগে ঝড় হতে পারে৷

  • Share this:

    #কলকাতা: আমফানের অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়েই ইয়াস মোকাবিলায় আগের থেকে সতর্ক হচ্ছে সিইএসসি৷ সংস্থার তরফে এ দিন আশ্বস্ত করে বলা হয়েছে, বুধবার ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা যাতে ভেঙে না পড়ে, তা নিশ্চিত করতে সবরকম ব্যবস্থা নিচ্ছে তারা৷ রাস্তায় নেমে কাজ করার জন্য তৈরি রাখা হচ্ছে আড়াই হাজার কর্মীকে৷ বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে প্রস্তুত রাখা হচ্ছে শতাধিক জেনারেটর৷

    গত বছর আমফানের পর প্রশ্নের মুখে পড়েছিল সিইএসসি-র পরিষেবা৷ কলকাতার বহু জায়গায় ঝড়ের এক সপ্তাহ পরেও বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক করা যায়নি৷ সিইএসসি-র বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ অভিযোগ উঠেছিল, আগে থেকে প্রস্তুতি না থাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করতে বিপাকে পড়তে হয় সংস্থাকে৷ তার উপর সেবারেও লকডাউন চলছিল৷

    সেই অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়েই এবার রাস্তায় নেমে কাজ করার জন্য সবথেকে আড়াই হাজার কর্মীকে তৈরি রাখছে সিইএসসি৷ সংস্থার তরফে দাবি করা হয়েছে, গত বছর আমফানের সময় যে সংখ্যক কর্মী কাজ করেছিলেন, এবার তার দ্বিগুন সংখ্যক কর্মীকে আগে থেকেই তৈরি রেখেছেন তারা৷ গত বছরও আমফানের সময় এখনকার মতোই লকডাউন চলছিল রাজ্যে৷ ফলে, লোকের প্রয়োজন হলেও বাড়ি থেকে কর্মীদের আনতে সমস্যায় পড়তে হয়েছিল সংস্থাকে৷ এবার তাই আগে থেকেই কর্মীদের তৈরি রাখা হয়েছে৷ পাশাপাশি, ১২০-টির কাছাকাছি জেনারেটরও জোগাড় করে রেখেছে সংস্থা৷ যাতে কোনও এলাকায় বিদ্যুৎ পরিষেবা ফিরতে দেরি হলে জেনারেটর দিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেওয়া যায়৷

    সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, সবথেকে খারাপ পরিস্থিতির কথা ভেবেই প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে৷ ফলে দুর্যোগ কাটার পর দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করা যাবে বলেই আশাবাদী তারা৷

    যে এলাকাগুলিতে বিদ্যুতের তার মাটির উপর দিয়ে গিয়েছে, সেখানে বাড়তি সতর্কতা অবলম্বন করছে সিইএসসি৷ কারণ ওই সমস্ত এলাকায় গত বছর গাছ পড়ে বেশি সমস্য়া তৈরি হয়েছিল৷ ঝড়ের সময় যাদবপুর, সন্তোষপুর, বেহালার মতো সংযোজিত এলাকাগুলিতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়ার কথাও ভেবে রাখা হয়েছে৷

    গ্রাহকদের সুবিধার্থে বেশ কয়েকটি হেল্পলাইন নম্বর চালু করেছে সিইএসসি৷ সেগুলি হল ৩৫০১- ১৯১২, ৪৪০৩-১৯১২,  ১৮৬০৫০০১৯১২ এবং শুধু ১৯১২৷ এর পাশাপাশি একটি হোয়াটসঅ্য়াপ নম্বরও থাকছে গ্রাহকদের সুবিধার্থে৷ সেটি হল ৭৪৩৯০০১৯১২৷

    আগামী বুধবার দুপুরে ওড়িশার বালাসোরের কাছে আছড়ে পড়বে ইয়াস৷ যার জেরে কলকাতায় ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৮০ কিলোমিটার বেগে ঝড় হতে পারে৷ পাশাপাশি আগামী দু' দিন শহরে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির সতর্কতা রয়েছে৷ দুর্যোগের পর দ্রুত শহরকে স্বাভাবিক করতে এবং ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে প্রস্তুতি নিচ্ছে কলকাতা পুরসভাও৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: