Home /News /kolkata /
Calcutta High Court on Hooghly School: প্রাণের ঝুঁকি ছিল ছাত্র-শিক্ষকদের, জিরাটের সেই স্কুল সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ হাই কোর্টের!

Calcutta High Court on Hooghly School: প্রাণের ঝুঁকি ছিল ছাত্র-শিক্ষকদের, জিরাটের সেই স্কুল সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ হাই কোর্টের!

জিরাটের সেই স্কুল

জিরাটের সেই স্কুল

Calcutta High Court on Hooghly School: অভিভাবকরা বলছেন, ''বিশেষত যখন বাচ্চারা স্কুলে যেত ভয়ে ভয়ে থাকতাম। এখন কোর্ট যখন বলেছে একটা ব্যবস্থা হবে।''

  • Share this:

    #কলকাতা: জিরাটের সেই স্কুল গঙ্গাপার থেকে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিলেন বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। যতদিন না স্থায়ী স্কুল ঘর তৈরী হয়, ততদিন প্রয়োজনে চারচালা তৈরি করে অন্য জায়গায় স্কুল চালাতে হবে জানিয়েছেন বিচারপতি। আর এই নির্দেশের পর জিরাট চর খয়রামারি প্রাথমিক স্কুলের পড়ুয়াদের অভিভাবকরা বলেন, এতদিন খুবই দুশ্চিন্তা নিয়ে দিন কাটত।

    অভিভাবকরা বলছেন, ''বিশেষত যখন বাচ্চারা স্কুলে যেত ভয়ে ভয়ে থাকতাম। এখন কোর্ট যখন বলেছে একটা ব্যবস্থা হবে।'' খয়রামারি স্কুলের শিক্ষক বলেন, ''আমরা আগে বারবার জানিয়েছি। প্রশাসন উদ্যোগও নিয়েছিল। কিন্তু কোনো কারণে একটা দীর্ঘ টালবাহানা চলছে। সব কিছু হয়ে গেলেও এতদিন অন্য জায়গায় স্কুল ঘর তৈরী হয়নি।

    স্কুলের জন্য জমি দান যিনি করেছিলেন তিনি বলেন, এই সরকার এতদিন সে ভাবে নজর দেয়নি। আগে যদি উদ্যোগ নেওয়া হত, তাহলে স্কুলটা বেঁচে যেত। এই স্কুলের মাঠেই রথ থেকে শুরু করে দুর্গাপুজা সব হত। এখন এই স্কুল তার ঐতিহ্য হারিয়েছে। আদালতের নির্দেশে গ্রামবাসীরা সকলে খুশি। স্থানীয় বাসিন্দা থেকে শুরু করে অভিভাবকরা আদালতের এই নির্দেশে খুশি।

    আরও পড়ুন: বিপুল লোক আসছে উত্তর থেকে, ২১ জুলাই থাকছে বড় চমক! অভিষেকের বার্তায় চাঞ্চল্য

    বলাগড় পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি পায়েল পাল বলেন, স্কুল অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য জমি দেখা হয়েছে, সেই জমি রেজিস্ট্রি হয়ে গেছে। গঙ্গার পাড় বাঁধানোর কাজ চলছে, পাশাপাশি অন্যত্র স্কুল সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার কাজও শুরু হবে।

    আরও পড়ুন: 'যে কোনওদিন মারা যাবে ছাত্র-শিক্ষকরা', জিরাটে স্কুল বন্ধের হুঁশিয়ারি হাই কোর্টের!

    প্রসঙ্গত, জিরাটের প্রাথমিক বিদ্যালয় বৃহস্পতিবার থেকেই বন্ধের হুঁশিয়ারি কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের। নদী পাড়ে বিপজ্জনক ভাবে স্কুল চালানো যাবে না। স্কুল সরিয়ে অন্যত্র শুরু করতে হবে। প্লাইউড দিয়ে অস্থায়ী স্কুল চলুক। প্রয়োজনে গাছ তলায় স্কুল চলুক।নদীগর্ভে তলিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা নিয়ে স্কুল চলবে না। যে কোনও দিন ছাত্র মারা যাবে সঙ্গে শিক্ষকরাও। তারপর তদন্ত কমিটি গঠন হবে। এই ভর্ৎসনার পর এবার নির্দিষ্ট জায়গা থেকে স্কুলই সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিল কলকাতা হাই কোর্ট।

    Published by:Suman Biswas
    First published:

    Tags: Calcutta High Court, Hooghly news

    পরবর্তী খবর