Bjp Yuva Morcha: 'হাতিয়ার' সেই থালা-বাটি! চাকরি চাইতে বাংলার পথে নামবে BJP যুব মোর্চা

ফের থালা-বাটি!

Bjp Yuva Morcha: রাজ্যের ৩৪১ টি বুথে ব্লক অফিসের সামনে থালা-বাটি নিয়ে আন্দোলনে বসবে যুবমোর্চা। ১৫ জুনের পর থেকেই শুরু হবে ব্লক স্তরে আন্দোলন।

  • Share this:

    কলকাতা: বিধানসভা নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়ের পর এবার নয়া স্লোগান নিয়ে আসরে নামছে বিজেপি যুব মোর্চা (Bjp Yuva Morcha)। সেই কারণে নয়া স্লোগানও তাঁরা বেধেছে। 'ভিক্ষা নয়, শিল্প চাই, কাজ চাই।' শিল্পের দাবিতে এবার আন্দোলনের পথে নামছে বিজেপি যুবকর্মীরা। ইতিমধ্যেই রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক (সংগঠন) অমিতাভ চক্রবর্তীর সঙ্গে আলোচনা সেরেছেন যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি সৌমিত্র খাঁ (Soumitra Khan)। কীভাবে হবে আন্দোলন? জানা গিয়েছে, রাজ্যের ৩৪১ টি বুথে ব্লক অফিসের সামনে থালা-বাটি নিয়ে আন্দোলনে বসবে যুবমোর্চা। ১৫ জুনের পর থেকেই শুরু হবে ব্লক স্তরে আন্দোলন। এমনকী কলকাতাতেও এই আন্দোলন হবে বলে জানা গিয়েছে।

    ২০০ আসনের লক্ষ্য নিয়ে বাংলায় ভোট যুদ্ধে নেমেছিল বিজেপি। কিন্তু থেমে যেতে হয়েছে ৭৭ আসনেই। আর এরপরে শোচনীয় এই হারের কারণ পর্যালোচনা করতে একাধিকবার বৈঠক করেছে বিজেপি (BJP)। কিন্তু এবার বঙ্গ বিজেপি নেতৃত্ব নতুন ভাবে নিজেদের রণকৌশল এবং নীতি নির্ধারণ করতে বৈঠকে বসতে চলেছে। জানা গিয়েছে, আগামী ৮ জুন হেস্টিংসের কার্যালয়ে রাজ্য গেরুয়া শিবিরের এই পর্যালোচনা বৈঠক রয়েছে। সেখানে থাকবেন কেন্দ্রীয় ও রাজ্যস্তরের সকল নেতাই।

    জানা গিয়েছে, বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে হারের পর্যালোচনার পাশাপাশি সাংগঠনিক স্তরে রদবদল নিয়েও আলোচনা হতে পারে ওই বৈঠকে। নির্বাচনের ফলাফলের পর থেকেই বিজেপিতে গুঞ্জন, দলের সংগঠনে এবার বড়সড় রদবদল হতে পারে। সেই প্রেক্ষিতেই মনে করা হচ্ছে এই বৈঠকে উঠে আসতে পারে সেই রদবদল প্রসঙ্গ। অপরদিকে, রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং রাজ্য সরকারকে কটাক্ষ করে নতুন স্লোগান তৈরি করে পথে নামার প্রস্তুতিও সেরে রাখা হবে ওই বৈঠক থেকেই।

    এই পরিস্থিতিতে সরকারের উদ্দেশে স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতেই আক্রমণ শানিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, 'আমাদের হাতে ৭৫ জন বিধায়ক আছে। আর তা দিয়েই আমার বিধানসভায় সরকারের দমবন্ধ করে দেব। আর বাইরেও আমাদের লড়াই চলবে।' একইসঙ্গে রাজ্যে শোচনীয় পরাজয়ের পিছনে দলীয় কর্মীদের ভয়ভীতিকেই কাঠগড়ায় তুলেছেন তিনি। বলেন, 'বহু এলাকায় ভয়ের পরিবেশ তৈরি করা হয়েছিল। আমাদের কর্মীরা ভয় পেয়ে পিছিয়ে গিয়েছেন অনেক জায়গায়। গণনাকেন্দ্র ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন। ফলে ক্ষতি হয়েছে।'

    Published by:Suman Biswas
    First published: