Home /News /kolkata /
Bhawanipur Twin Murder: পেটের মধ্যে ছুরি, মাথায় কাছ থেকে গুলি! ভবানীপুরে জোড়া খুনের ময়নাতদন্তে চাঞ্চল্য!

Bhawanipur Twin Murder: পেটের মধ্যে ছুরি, মাথায় কাছ থেকে গুলি! ভবানীপুরে জোড়া খুনের ময়নাতদন্তে চাঞ্চল্য!

Bhawanipur Murder Update

Bhawanipur Murder Update

Post Mortem Report of Bhawanipur Murder Case: অশোকের স্ত্রী রশ্মিতাকে গুলি করে খুন করা হয়। গুলিটি মাথা দিয়ে ঢুকে কানের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায়।

  • Share this:

    #কলকাতা: ভবানীপুরের জোড়া খুনে ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্টে মিলল বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ জানিয়েছে, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণেই মৃত্যু হয়েছে ওই দম্পতির। মৃত অশোক শাহের শরীরে একাধিক কোপের চিহ্ন মিলেছে। অন্যদিকে রশ্মিতা শাহের মাথার পেছনের অংশে রয়েছে গুলির ক্ষতচিহ্ন। পুলিশ জানিয়েছে অশোক শাহের পেট থেকে ময়নাতদন্তের সময় একটি ফলকাটা জাতীয় ছুরি পাওয়া গিয়েছে। পুলিশ সূত্রের খবর, ব্যবসায়ী অশোক শাহের স্ত্রী রশ্মিতা শাহের মাথার পিছনে গুলি আর ব্যবসায়ী অশোক শাহকে মূলত ছুরি মেরেই খুন করা হয়েছে।

    আরও পড়ুন- নূপুর শর্মার মন্তব্যের জের, টিভি বিতর্কে অংশ নেওয়া নেতাদের জন্য বিজেপির নয়া বিধি

    পুলিশ আরও জানিয়েছে, ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট অনুযায়ী অশোক শাহের পেটের ডান দিকে এবং গলায় ক্ষতচিহ্ন রয়েছে। মৃতা রশ্মিতা শাহের মাথার পিছনে ৭ MM পিস্তল ব্যাবহার করে খুব কাছ থেকে গুলি করা হয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। মৃত স্বামী স্ত্রী দু’জনেরই দেহে সোনার গয়না নেই। পুলিশ আরও জানিয়েছে, ঘটনার দিন অর্থাৎ সোমবার, দুপুর ১২টা থেকে ৩টের মধ্যে খুন করা হয় দম্পতিকে। তবে পুলিশ জানিয়েছে, হরিশ মুখার্জি রোডের ওই বাড়িতে দুষ্কৃতীরা বলপূর্বক ঢোকেনি। তাহলে কি পরিচিত মানুষেরই হাতে খুন হতে হল দম্পতিকে? স্বাভাবিকভাবেই উঠছে এই প্রশ্ন। প্রাথমিক ভাবে তদন্তকারীরা মনে করছেন, একাধিক আততায়ী ছিল, এবং তাঁরা অবশ্যই এই দম্পতির পূর্ব পরিচিত।

    আরও পড়ুন-আপ মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনের আর্থিক তছরুপের মামলায় উদ্ধার নগদ ২ কোটি, সোনার কয়েন!

    পুলিশ জানিয়েছে, অশোক শাহের মৃতদেহ উদ্ধার হয় বাইরের ঘরে। সেখানেই তাঁকে একাধিকবার ছুরি দিয়ে কোপানো হয়। আর অশোকের স্ত্রী রশ্মিতাকে গুলি করে খুন করা হয়। গুলিটি মাথা দিয়ে ঢুকে কানের পাশ দিয়ে বেরিয়ে যায়। রশ্মিতার মৃতদেহ পাওয়া যায় শোয়ার ঘরের বিছানায়। সেই ঘরের আলমারিটিই ভাঙা অবস্থায় ছিল। এই আলমারি ছাড়া অন্য কোনও আলমারিই ভাঙা হয়নি।

    তদন্তকারীদের অনুমান, বাড়ি বিক্রি সংক্রান্ত কোনও আর্থিক জটিলতা কারণ হতে পারে এই মৃত্যুর নেপথ্যে। সিসিটিভি খুঁটিয়ে দেখা সহ তদন্তের কোনও অংশই বাদ দিচ্ছে না কলকাতা পুলিশ।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Bhawanipur Twin Murder

    পরবর্তী খবর