Home /News /kolkata /
সুস্থ হয়ে জিজ্ঞাসাবাদের সামনে যেতে চান, ১৪ দিন সময় চাইলেন অনুব্রত, খবর সূত্রে

সুস্থ হয়ে জিজ্ঞাসাবাদের সামনে যেতে চান, ১৪ দিন সময় চাইলেন অনুব্রত, খবর সূত্রে

অনুব্রত মণ্ডলের ফাইল চিত্র

অনুব্রত মণ্ডলের ফাইল চিত্র

এ দিকে বোলপুর হাসপাতালের নাম আরও বেশি করে জড়িয়ে যাচ্ছে অনুব্রতর সঙ্গে। বুধবার সকালে খবর এসেছে, ওই হাসপাতালের সুপার আপাতত ছুটিতে রয়েছেন।

  • Share this:

#কলকাতা: বুধবার সিবিআই-এর ডাকে সাড়া দিলেন না বীরভূমের তৃণমূল নেতা অনুব্রত মন্ডল। বুধবার সকাল থেকেই ছিল জল্পনা, ১০ বার তলব করার পর বুধবার কি তিনি হাজিরা দেবেন সিবিআই-এর সামনে। কথা ছিল এ দিন সকাল ১১টা নাগাদ হাজিরা দেওয়ার। সূত্র মারফত সকালেই খবর পাওয়া যায়, তিনি সিবিআইয়ের হাজিরা এড়াতে পারেন। সেই পরিস্থিতিতেই বেলা ১১টা নাগাদ খবর আসে, অনুব্রতর আইনজীবীরা নতুন করে সিবিআই-এর কাছে একটি আবেদনপত্র জমা দেন। সেখানে বলা হয়, ১৪ দিন সময় চাইছেন অনুব্রত। সুস্থ হয়ে তিনি ফের সিবিআই-এর সামনে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাজির হবেন। আগেও তিনি তদন্তে সহযোগিতা করেছেন, এর পরেও করবেন। বুধবার সকালে এই চিঠি নিয়ে নিজাম প্যালেসে হাজির হন অনুব্রতর আইনজীবীরা।

এর আগে সব মিলিয়ে ১০ বার অনুব্রত মন্ডলকে ডেকে পাঠিয়েছে সিবিআই। এত বার ডাকার পরে মাত্র একবার তিনি সিবিআই-এর সামনে হাজিরা দিয়েছেন। সেই কারণেই, মঙ্গলবার থেকে খবর পাওয়া যায়, এ বার যদি হাজিরা এড়ান অনুব্রত, তা হলে কড়া ব্যবস্থা নিতে পারে সিবিআই। যদিও সূত্র মারফত বুধবার সকালে খবর পাওয়া যায়, তিনি জিজ্ঞাসাবদের সময় পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন করেছেন। আগামী ১৪ দিন পর শারীরিক ও মানসিক ভাবে সুস্থ হয়ে তবেই জিজ্ঞাসাবাদের সামনে হাজির হবেন। সব মিলিয়ে সারাদিনে কুড়িটির বেশি ওষুধ খেতে হয় অনুব্রতকে। পাশাপাশি কয়েকদিন আগেই তাঁর একটি অস্ত্রোপচার হয়েছে। সেই পরিস্থিতিতে হাজিরা দেওয়ার জন্য সময় দরকার, তেমনটাই মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন- বিহারে ফের 'লালু ম্যাজিক'! 'লালু বিন বিহার চালু' হতে পারে না, ইঙ্গিত লালু কন্যার

আরও পড়ুন- উদ্ধবের পরিণতি থেকে শিক্ষা, মহারাষ্ট্র কাণ্ড দেখেই বিজেপি-তে বিশ্বাসভঙ্গ নীতীশের

এ দিকে বোলপুর হাসপাতালের নাম আরও বেশি করে জড়িয়ে যাচ্ছে অনুব্রতর সঙ্গে। বুধবার সকালে খবর এসেছে, ওই হাসপাতালের সুপার আপাতত ছুটিতে রয়েছেন। মঙ্গলবার এই হাসপাতালের সুপারের বিষয়ে একটি বড় খবর প্রকাশিত হয়। সাদা কাগজে অনুব্রতকে বেড রেস্ট লিখে দেওয়ার জন্য তাঁর উপর চাপ সৃষ্টি করা হয়েছিল, এমনই জানান ও হাসপাতালের চিকিৎসক। তার পরেই চিকিৎসকের সূত্র ধরে নাম আসে ওই হাসপাতালের সুপারের। চিকিৎসক বলেন, অনুব্রতর বাড়িতে গিয়ে তাঁকে চিকিৎসকা করার কথা বলেছিলেন ওই হাসপাতালের সুপার। কিন্তু তার পর, বুধবার সুপারের খোঁজ করতেই দেখা যায়, তিনি ছুটিতে রয়েছেন। সেই কারণেই এই ঘটনা নিয়ে রহস্য বাড়ে।

আপাতত সকলের নজর রয়েছে সিবিআই-এর দিকে। এত বার জিজ্ঞাসাবাদের নোটিশ এড়ানোর পর অনুব্রতর বিরুদ্ধে কি নতুন করে কোনও ব্যবস্থা নেবে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। বিশেষত চিকিৎসকের বিস্ফোরক দাবির পরে নতুন করে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয় কি না, সে দিকে নজর থাকছে।

অর্ণব হাজরা

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: Anubrata Mondal

পরবর্তী খবর