• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • আল-কায়দা মডিউলের হদিশ রাজ্যে ! কলকাতা স্টেশন থেকে গ্রেফতার ৩ জঙ্গি

আল-কায়দা মডিউলের হদিশ রাজ্যে ! কলকাতা স্টেশন থেকে গ্রেফতার ৩ জঙ্গি

ধৃত তিন আল কায়দা জঙ্গি

ধৃত তিন আল কায়দা জঙ্গি

ISIS-এর পর এবার রাজ্যে আল কায়দা মডিউল ফাঁস।

  • Share this:

    #কলকাতা: ISIS-এর পর এবার রাজ্যে আল কায়দা মডিউল ফাঁস। আজ কলকাতা স্টেশন থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে তিন আল কায়দা জঙ্গিকে। যাদের মধ্যে রয়েছে মনোতোষ দে নামে এক বাঙালিও। বাকি দু’জন বাংলাদেশি। উদ্ধার হয়েছে সংগঠনের বহু নথি ও নাশকতার ছক।

    মধ্যপ্রাচ্যে ইসলামিক স্টেটের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বেশ খানিকটা পিছিয়ে পড়েছিল আল কায়দা। সেই খামতি ঝেড়ে ফেলে অনেক আগেই ভারতীয় উপমহাদেশকে টার্গেট করেছিল জঙ্গি সংগঠনটি। উদ্দেশ্য ছিল, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ ও মায়ানমারে নাশকতা চালানো। সেই উদ্দেশ্যে তারা যে অনেকটা সফল তার প্রমাণ মিলল এবার।

    খোদ কলকাতা স্টেশন থেকে গ্রেফতার করা হল তিন আল কায়দা জঙ্গিকে। ধৃতদের মধ্যে রয়েছে মনোতোষ দে নামে এক বাঙালিও। বাকি দু’জন রিয়াজুল ইসলাম ও সামশাদ মিঞা বাংলাদেশের বাসিন্দা।

    আল কায়দা মডিউল ফাঁস - মনোতোষ দে বসিরহাটের বাসিন্দা - রিয়াজুল ও সামশাদ বাংলাদেশের বাসিন্দা - তারা গত এক থেকে দেড় বছর অবৈধভাবে রাজ্যে বাস করছিল - অস্ত্র কেনার সূত্রেই মনোতোষের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ - অস্ত্রের স্যাম্পল দেখতেই তারা ভারতে আসে

    এর আগে রাজ্যে আইএস মডিউলের হদিশ মিলেছিল। এবার মিলল আল কায়দা মডিউলের খোঁজ। পুজোর সময় এসটিএফকে রাজ্যে আল কায়দা জঙ্গিদের কথা জানায় সেন্ট্রাল আইবি। তার পর থেকেই ধৃতদের উপর নজর রাখা হচ্ছিল। ধৃতদের থেকে যেসব নথি উদ্ধার হয়েছে তাতে রাজ্যে আল কায়দা মডিউলের অনেক গোপন তথ্যই সামনে আসবে বলে মনে করা হচ্ছে।

    ধৃত জঙ্গিদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে বাংলা, হিন্দি ও তেলুগুতে লেখা আল কায়দার লিফলেট  ৷ তেলুগু ও হিন্দিতে আল কায়দার লিফলেট, ধর্মীয় প্রচারমূলক সিডি, ল্যাপটপ, পেন ড্রাইভ, কয়েক রাউন্ড গুলি, ৭.৩২ মিমি পিস্তল ও ওয়ান শটার,  কলকাতার নকশা যেখানে গুরুত্বপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত করা রয়েছে ৷ বোমা বানানোর বেশকিছু বই, রেইকি করার বইও পাওয়া গিয়েছে জঙ্গিদের কাছ থেকে ৷

    কলকাতা বা পার্শ্ববর্তী এলাকায় নাশকতার ছক ছিল জঙ্গিদের ৷ আল কায়দার বাংলা পোর্টাল আল বাংলা-র লিঙ্কও মিলেছে ৷

    First published: