Home /News /jalpaiguri /
Jalpaiguri: ২০ কিলো কচ্ছপের মাংস উদ্ধারে চাঞ্চল্য জলপাইগুড়িতে! 

Jalpaiguri: ২০ কিলো কচ্ছপের মাংস উদ্ধারে চাঞ্চল্য জলপাইগুড়িতে! 

ডায়না ও মূর্তি এলাকা থেকে এই কচ্ছপ উদ্ধার হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে।

  • Share this:

    #জলপাইগুড়ি: প্রায় কুড়ি কিলো কচ্ছপের মাংস উদ্ধার জলপাইগুড়িতে। শনিবার সকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে জলপাইগুড়ি জেলার বানারহাট ব্লকের নাথুয়াহাট পুরাতন বাজার এলাকায় হানা দিয়ে প্রায় ২০ কিলো কচ্ছপের মাংস উদ্ধার করল বন দফতর। তবে মাংস ওই এলাকা থেকে এদিন উদ্ধার হলেও পালিয়ে যান কচ্ছপ হত্যাকারী দুই যুবক। ওই দুই যুবকের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা যায় বনদফতর সূত্র। এই কচ্ছপ গুলি সম্ভবত ডায়ানা ও মূর্তির জঙ্গল থেকে ধরা হয় বলে অনুমান বনদপ্তরের আর এরপরেই বেশ চড়া দামে বিক্রির চেষ্টা কচ্ছপের মাংস। জানা গিয়েছে, এদিন দুই হাজার টাকা কিলো দড়ে বিক্রি হচ্ছিল এই কচ্ছপের মাংস। খবর পেয়ে অভিযানে নামে বনদফতর। আর সেই সময় পালিয়ে ‌যায় অভিযুক্তরা।

    প্রসঙ্গত, গোটা ডুয়ার্স জুড়েই যেন চলছে পাচারকারীদের রমরমা। এর আগেও বিক্রির উদ্দ্যেশে পাচারের জন্য নিয়ে যাওয়া একটি প্রাপ্ত বয়স্ক প্যাঙ্গোলিন উদ্ধার করে বণদপ্তর। কিন্তু আজ ধরার আগেই হত্যা করা হয় ওই কচ্ছপ, এমনটাই জানা গিয়েছে। ডায়না ও মূর্তি এলাকা থেকে এই কচ্ছপ উদ্ধার হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে।

    আরও পড়ুনঃ সকালের পর দুপুরে আবার মিলল অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তির মৃতদেহ! চাঞ্চল্য

    আরও পড়ুনঃ বৃষ্টির জেরে ব্যাপক ক্ষতি ডুয়ার্সে! আট থেকে দশ হাজার চা গাছ ভেসে গেল

    এদিন বনদফতরের নাথুয়া রেঞ্জ এই অভিয়ান চালায়। তবে বনকর্মীদের আসতে দেখে মাংস ফেলে পালিয়ে যায় মাংস বিক্রেতা দুই যুবক। ওই দুই যুবকের বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণ আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানা গেছে । এই প্রসঙ্গে, ওয়াইল্ড লাইফ ওয়ার্ডেন সীমা চৌধুরী বলেন আমাদের প্রাথমিক অনুমান এই কচ্ছপ গুলি সম্ভবত ডায়ানা ও মূর্তির জঙ্গল লাগোয়া নদী থেকে ধরা হয়ছে।

    চড়া দামে বিক্রি করার চেষ্টা চলছিল। উদ্ধার করা মাংস গুলি নাথুয়া রেঞ্জে রাখা হয়েছে। সেগুলি পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। এই ঘটনার সাথে জড়িত ব্যক্তিদের কে ধরার চেষ্টা করা চলছে।

    Geetashree Mukherjee

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Forest Department, Jalpaiguri

    পরবর্তী খবর