Home /News /jalpaiguri /
Jalpaiguri: জেলা জুড়ে ডেঙ্গু সংক্রমণ বাড়ায় জ্বরে আক্রান্তদের ওপর নজরদারি

Jalpaiguri: জেলা জুড়ে ডেঙ্গু সংক্রমণ বাড়ায় জ্বরে আক্রান্তদের ওপর নজরদারি

জলপাইগুড়ি জেলা জুড়েই বর্ষা বাড়তেই শুরু হয়েছে ডেঙ্গুর দাপট। জেলা জুড়ে এখনও অবধি সংক্রামিতের সংখ্যা চিন্তায় ফেলছে প্রশাসনকে।

  • Share this:

    জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি জেলা জুড়েই বর্ষা বাড়তেই শুরু হয়েছে ডেঙ্গুর দাপট। জেলা জুড়ে এখনও অবধি সংক্রামিতের সংখ্যা চিন্তায় ফেলছে প্রশাসনকে। বিশেষ করে সদর ব্লক ছাড়াও ধূপগুড়ি বানারহাট ইত্যাদি জায়গায় একাধিক মানুষের শরীরে ডেঙ্গুর অস্তিত্ব মিলেছে। সেই কারণেই এবার জ্বরে আক্রান্ত রোগীদের ওপর নজরদারি চালাচ্ছে স্বাস্থ্য দফতর। জানা গিয়েছে, চলতি সময়ে জ্বর ও পেটখারাপ নিয়ে অনেক মানুষ হাজির হচ্ছেন ধূপগুড়ি ব্লকের হাসপাতাল ও উপস্বাস্থ্যকেন্দ্র গুলিতে। এদিকে বাগ্রাকোটে কিছুতেই নিয়ন্ত্রনে আসছে না ডেঙ্গু। প্রতিদিন সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। এমতাবস্থায় জ্বর নিয়ে কেউ এলে তাকে পর্যবেক্ষণ ও পরবর্তীতে তার রক্ত পরীক্ষা করানো হচ্ছে। ধূপগুড়ির ৯ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা ও বানারহাটের ১৬ টি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাতেই সতর্কতা মূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে ডেঙ্গি দমনে। প্রসঙ্গত, শুধু ডেঙ্গুই নয়, ম্যালেরিয়া, টাইফয়েড সহ বিভিন্ন জলবাহিত রোগ আটকাতে সতর্কতা নেওয়া হচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরের পক্ষ থেকে।স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, পরিস্থিতির ওপর নজর রাখা হচ্ছে। জ্বর নিয়ে কেউ এলে তাকে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

    পাশাপাশি, সরকারি ভাবে রক্ত পরীক্ষাও করা হচ্ছে। জ্বরে আক্রান্ত রয়েছেন যারা,তাদের প্রতি বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে। এই প্রসঙ্গে আরো উল্লেখ্য, বাগ্রাকোটে ডেঙ্গু আক্রান্ত বেশ কয়েক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। ওদলা বাড়ি গ্রামীণ হাসপাতাল সূত্রে খবর, সেখানেও বেশ কিছু রোগী এই রোগের উপসর্গ নিয়ে এসেছেন। বাগ্রাকোটে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রনে না আসার প্রধান কারণ হিসেবে সেখানকার জল সংকটকেই দায়ী করা হচ্ছে। সেখানকার টপ লাইন সহ একাধিক এলাকায় জলসংকট ভয়াবহ।

    আরও পড়ুনঃ ডুয়ার্সে পালিত হল এভারেস্ট দিবস

    দিনে একবার ১ ঘন্টার জন্য সেখানে জল আসে। তা দিয়েই সারাদিনের সব কাজ সারতে হচ্ছে। যার ফলে সেখানকার মানুষ বিভিন্ন পাত্রে জল জমিয়ে রাখতে বাধ্য হচ্ছেন। আর সেই জমা জল থেকেই উদ্ভব হচ্ছে এডিস মশার। অনেক জায়গাতে স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা লার্ভা পরীক্ষায় নেমেছেন।নতুন করে রবিবার আবার ধূপগুড়ির গাদং-২ ব্লকে একজন ডেঙ্গুতে সংক্রামিত হয়েছেন। চিকিৎসকদের মতে, প্রায় হাজারখানেক রোগী পরিষেবা নিতে আসছেন রোজ। তাদের মধ্যে জ্বর ও পেটখারাপ।নিয়ে আসছেন বহু। কিছু ক্ষেত্রে তাদের ভর্তি রেখে চিকিৎসা করা হচ্ছে।

    আরও পড়ুনঃ জেলার গর্বকে সম্মাননা দিতে স্বাধীনতা সংগ্রামী মোহিত মৈত্রের নামে মূর্তি স্থাপন হবে জলপাইগুড়ির মোহিতনগরে

    আবার অনেককে বাড়িতেও রাখা হচ্ছে রোগী  তাদের আত্মীয়দের  পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।এদিকে, সচেতনতার লক্ষে কোথাও যাতে জল জমতে না পারে এবং মশারি টাঙিয়ে থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে স্বাস্থ্য দফতরের তরফে। পুরসভারগুলির পক্ষ থেকে জ্বরের বিষয়ে খোজ খবর ও সার্ভের কাজ বহাল থাকছে। আবর্জনা সাফাইয়ের বিষয়ে বিশেষ জোর দেওয়া হচ্ছে বাজার ও অনান্য এলাকাগুলিতে।

    Geetashree Mukherjee
    First published:

    Tags: Dengue, Jalpaiguri

    পরবর্তী খবর