অর্জুনের মত বল করতে পারলে গর্বিত হতেন সচিন বলছেন মাহেলা

অর্জুনের মত বল করতে পারলে গর্বিত হতেন সচিন বলছেন মাহেলা
বল হাতে নজর কেড়েছেন অর্জুন

সচিনের সঙ্গে ওঁর তুলনা করাটা ঠিক নয়। অর্জুন বোলিং অলরাউন্ডার। অর্জুনের মত বল করতে পারলে সচিন নিজেও গর্বিত হত

  • Share this:

    #মুম্বই: আইপিএল নিলামে সবচেয়ে শেষ নামটা ছিল অর্জুন তেন্ডুলকর। কুড়ি লাখ টাকায় তাঁকে দলে নিয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। এই নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় বিশেষ করে সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে। কেউ বলছেন যোগ্যতার তুলনায় বেশি মূল্য পেয়েছেন অর্জুন। কেউ বলছেন অর্জুনের থেকে বেশি রান করা এবং উইকেট নেওয়া ক্রিকেটাররা ব্রাত্য থাকলেও শুধুমাত্র সচিন পুত্র হওয়ার কারণে এই সুবিধা পেয়েছেন তিনি। অর্থাৎ বেশিরভাগ অভিযোগ যোগ্যতা নয়, পদবির জন্য নিলামে দল পেয়েছেন অর্জুন।

    সমালোচনা যে কানে আসেনি এমন নয়। কিন্তু দলের হেড কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনে এবং ডিরেক্টর অফ ক্রিকেট জাহির খান স্পষ্ট করে দিয়েছেন অর্জুনকে দলের নেওয়ার পেছনের আসল কারণ। মাহেলা জানিয়েছেন,"সকলেই জানেন সচিনের ছেলে বলে ওঁর ওপর আলাদা চাপ থাকবে। ওঁর থেকে প্রত্যাশা থাকবে। কিন্তু আমরা অর্জুনকে দলে নিয়েছি ওঁর স্কিল দেখে, নাম দেখে নয়। আমি মনে করি সচিনের সঙ্গে ওঁর তুলনা করাটা ঠিক নয়। অর্জুন বোলিং অলরাউন্ডার। অর্জুনের মত বল করতে পারলে সচিন নিজেও গর্বিত হত"।

    তবে দীর্ঘদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার সুবাদে প্রতিভা দেখে চিনতে অসুবিধা হয় না জয়বর্ধনের। অর্জুনকে দেখে যথেষ্ট প্রতিভাবান মনে হয়েছে প্রাক্তন শ্রীলঙ্কান অধিনায়কের। সময় দিলে এবং সাহস দিলে অর্জুন নিজের স্বাভাবিক খেলা তুলে ধরতে পারবে মনে করেন তিনি। জাহির খান নিজের ছিলেন বাঁহাতি পেসার। অর্জুনও বাঁহাতি পেসার। জাহির বলেন,"অর্জুন ক্রিকেটের প্রতি প্রচন্ড শ্রদ্ধাশীল। বয়স কম, প্রচুর শেখার আছে। কিন্তু সবচেয়ে বড় কথা ওঁর শেখার ইচ্ছে আছে। তাছাড়া গত বছর আবুধাবিতে দলের সঙ্গে ছিল। আমাদের সঙ্গে যথেষ্ট সময় কাটিয়েছে। তাই এই পর্যায়ে কীভাবে নিজেকে তৈরি করতে হয় একটা ধারণা হয়ে গিয়েছে। বলের গতি আগের থেকে অনেক বেড়েছে। ব্যাট হাতেও আক্রমনাত্মক। কিন্তু তাও ওঁকে সময় দিতে হবে"।


    যাঁকে নিয়ে এত আলোচনা সেই অর্জুন নিজে সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়েছেন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলে সুযোগ পেয়ে। দলে সুযোগ পেলে নিজের সেরাটা উজাড় করে দিতে চান জানিয়েছেন সচিন পুত্র। দিদি সারা তেন্ডুলকর ভাইয়ের সাফল্যে আনন্দিত হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: